corona virus btn
corona virus btn
Loading

চরম আতঙ্ক! ২৪ ঘণ্টায় গার্ডেনরিচ শিপ ইয়ার্ডে করোনা আক্রান্ত ৩৭ সিআইএসএফ জওয়ান

চরম আতঙ্ক! ২৪ ঘণ্টায় গার্ডেনরিচ শিপ ইয়ার্ডে করোনা আক্রান্ত ৩৭ সিআইএসএফ জওয়ান
প্রতীকী ছবি (সংগৃহীত)

কলকাতা বন্দর, বিমান বন্দর, (জিআরএসইএল), ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এবং ভারতীয় জাদুঘরের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে সিআইএসএফ । বন্দর এলাকায় ভূতঘাটের কাছে রয়েছে সিআইএসএফ ব্যারাক ।

  • Share this:

#কলকাতাঃ করোনা আক্রান্ত গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড (জিআরএসইএল)-এর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৩৭ জন সিআইএসএফ জওয়ান । তাঁরা প্রত্যেকেই বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন । তবে প্রত্যেকের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে সিআইএসএফ সূত্রে ।এর আগে এক কেন্দ্রীয় শিল্প নিরাপত্তারক্ষীর মৃত্যু হয় এম আর বাঙুরে মৃত্যু হয় জওয়ানের । এএসআই পদমর্যাদার জওয়ান জহরু বর্মন (৫৫) কিছুদিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন, কিন্তু সুস্থ হয়ে যাওয়ায় তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় । এরপর ফের তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দেয় । এম আর বাঙুর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সোমবার রাতে মৃত্যু হয় তাঁর। তাঁকে ধরে মোট চার সিআইএসএফ জওয়ানের মৃত্যু হল কলকাতায় ।

এদিকে, সিআইএসএফ জওয়ান করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকায় । শিপ ইয়ার্ডের ক্যান্টিনে খেতে আসা জাহাজের কর্মীদের থেকে সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান কর্তৃপক্ষের । ইতিমধ্যের ক্যান্টিন বন্ধ  করে দেওয়া হয়েছে । কলকাতা বন্দর, বিমান বন্দর, (জিআরএসইএল), ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এবং ভারতীয় জাদুঘরের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে সিআইএসএফ । বন্দর এলাকায় ভূতঘাটের কাছে রয়েছে সিআইএসএফ ব্যারাক । এর আগে কলকাতা জাদুঘরে কর্তব্যরত এক সিআইএসএফ জওয়ান করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন । এবং মুম্বইয়ে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের দায়িত্বে থাকা এক সিআইএএফ জওয়ানও মারা জান করোনা আক্রান্ত হয়ে । প্রসঙ্গত, ২০১৬ সাল থেকে এখানে নিরাপত্তায় দায়িত্বে রয়েছে সিআইএসএফ ।

কলকাতার অন্যত্র যে সিআইএসএফ ইউনিট রয়েছে, সেখানে নিয়মিত জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হয়েছে । সেই সঙ্গে ক্যান্টিনে যাতে বাইরের কেউ যাতায়াত না করতে পারেন সে বিষযে সতর্কতা নেওয়া হয়েছে । এর আগে বিএসএফের ১০ জওয়ান আক্রান্ত হয়েছিলেন করোনায় ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 13, 2020, 5:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर