করোনা ভাইরাস

corona virus btn
corona virus btn
Loading

অক্সফোর্ড টিকা স্থগিত হতেই জয়জয়কার দেশি ভ্যাকসিনের, পশুর ট্রায়ালে চূড়ান্ত সফল কোভ্যাকসিন

অক্সফোর্ড টিকা স্থগিত হতেই জয়জয়কার দেশি ভ্যাকসিনের, পশুর ট্রায়ালে চূড়ান্ত সফল কোভ্যাকসিন
কোভ্যাকসিনের দৌড় অব্যাহত।

দিন কয়েক আগে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন দাবি করেছিলেন ভারত বায়োটেকের টিকা তৈরি হয়ে যাবে ডিসেম্বরেই। অর্থাৎ জানুয়ারি থেকেই এই টিকাকরণ শুরু করা যাবে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন নিয়ে যখন বিশ্বজুড়ে দোলাচল তখনই স্বস্তির বাতাস বয়ে আনল ভারতের কোভ্যাকসিন। কোভ্যাকসিনের নির্মাতা সংস্থা ভারত বায়োটেক জানিয়ে দিয়, পশুর উপর করা ট্রায়ালে সাফল্য়ের সঙ্গে উতরেছে কোভ্যাকসিন। সংস্থার তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, পশুর শরীরে সক্রিয় ভাইরাল সংক্রমণ সাফল্যের সঙ্গে আটকেছে কোভ্যাকসিন। স্তন্যপায়ী অন্য প্রাণীর উপর ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা থেকে অনুমান করা হচ্ছে মানুষের উপরেও তা দ্রুত কার্যকরী হবে, গড়ে তুলবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

অন্য দিকে সিরাম ইন্সটিটিউট জানিয়েছে আপাতত ভারতেও কোভিশিল্ডের পরীক্ষা বন্ধ থাকথে।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও সুইডিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রোজেনেকার তৈরি এই করোনা প্রতিষেধক তৃতীয় স্তরের ট্রায়ালে হঠাৎই থমকে যায়। এই ব্রিটিশ স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হয়ে পড়ায় ব্রিটেনে এর ট্রায়াল বন্ধ করে দেওয়া হয়। যদিও ভারতে কোভিশিল্ড পরীক্ষামূলক প্রয়োগের দায়িত্বে থাকা সিরাম ইন্সটিটিউট মানবদেহে ভ্যকসিনের ট্রায়াল বন্ধ করতে চায়নি। পরে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া শো-কজ নোটিশ পাঠিয়ে তাদের কাছে জানতে চায়, কেন তারা প্রতিকূলতার কথা জেনেও পরীক্ষা চালাতে আগ্রহী। তখনই মত বদল করে সিরাম ইন্সটিটিউট।

উল্লেখ্য ভারতের বাজারে কোন ভ্যাকসিনটি সবার আগে আসবে তাই নিয়ে জোর জল্পনা সর্বত্র। আগে সিরাম ইন্সটিটিউট জানিয়েছিল সব ঠিক থাকলে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন আসবে নভেম্বরে। কিন্তু হঠাৎ প্রয়োগ বন্ধ হওয়ায় তা এখন বিশ বাও জলে। এখন লড়াইয়ে রয়েছে বায়োটেকের কোভ্যাকস ইন এবং জাইডাস ক্যাডিলার জাইকভ ডি। দিন কয়েক আগে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন দাবি করেছিলেন ভারত বায়োটেকের টিকা তৈরি হয়ে যাবে ডিসেম্বরেই। অর্থাৎ জানুয়ারি থেকেই এই টিকাকরণ শুরু করা যাবে।

বিশেষজ্ঞরা মানছেন এ কথা এখনও নিশ্চিত নয় যে এ বছরের শেষে ভারত বায়োটেকের টিকা এ বছরের শেষে বাজারে আসছেই। গণ উৎপাদন এত তাড়াতাড়ি অসম্ভব। তাছাড়া টিকার নিরাপত্তা, স্বেচ্ছাসেবীদের উপর ট্রায়ালের রিপোর্ট সবই প্রতি মুহূর্তে বদল হতে পারে। কিন্তু দৌড়ে যে সবাইকে পিছনে ফেলে ভারত বায়োটেকই এগিয়ে রইল, তা এদিন প্রমাণিত।

তবে ভ্যাকসিন বলে কথা, পিকচার আভি বাকি হ্যায়...

Published by: Arka Deb
First published: September 12, 2020, 8:31 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर