‘‌দরকার হলে আমাদের ‌সংস্থার রিসর্টে অস্থায়ী শুশ্রুষা কেন্দ্র হবে’‌, ঘোষণা আনন্দ মহিন্দ্রার

‘‌দরকার হলে আমাদের ‌সংস্থার রিসর্টে অস্থায়ী শুশ্রুষা কেন্দ্র হবে’‌, ঘোষণা আনন্দ মহিন্দ্রার

ক লড়াইয়ের উদাহরণ তৈরি করলেন শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রা

  • Share this:

#‌নয়া দিল্লি:‌ জাতি, ধর্ম, বর্ণ, শিবির ভুলে এখন দেশ লড়াই করছে এক সঙ্গে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সকলেই হারিয়ে দিতে চাইছেন করোনা ভাইরাস আতঙ্ককে। একজন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে একজন সেলেব্রিটি, সকলেই হাতে হাত ধরে লড়াই করতে চাইছেন। তেমনই এক লড়াইয়ের উদাহরণ তৈরি করলেন শিল্পপতি আনন্দ মহিন্দ্রা। রবিবার ২২ মার্চ, একাধিক ট্যুইট করে আনন্দ মহিন্দ্রা লিখেছেন, ‘‌যা পরিস্থিতি, তাতে মনে হচ্ছে ভারত ক্রমশ করোনা অতিমারীর তৃতীয় স্তরে পৌঁছে যাচ্ছে। এমন ভাবে সংখ্যাটা বাড়তে থাকলে লক্ষ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হতে পারেন, যার যেরে সরাসরি প্রভাব পড়তে পারে ভারতের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোয়।

আশা করা যায়, আগামী কয়েক সপ্তাহের এই লকডাউন একটু হলেও চাপ কমাবে আর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সাহায্য করবে। কিন্তু তাও আমাদের অস্থায়ী শুশ্রুষা কেন্দ্র তৈরি রাখতে হবে পাশাপাশি ভেন্টিলেটর তৈরির কাজেও নামতে হবে। আর সেই কারণেই মহিন্দ্রা গ্রুপ এই মুহূর্ত থেকে ভেন্টিলেটর তৈরির কাজ শুরু করবে। দেখা হবে কীভাবে আমাদের পরিকাঠামোয় আমরা এই জিনিস তৈরি করতে পারি। আর মহিন্দ্রার রিসোর্টগুলিকে আমরা তৈরি করছি, সেখানে অস্থায়ী ভাবে শুশ্রুষা কেন্দ্র তৈরি করা যেতে পারে। সরকার ও সেনাকে আমাদের কর্মীরা সবসময় সাহায্যের জন্য তৈরি আছে। ছোট ব্যবাসয়ীদের সাহায্যের জন্যও মহিন্দ্রা ফাউন্ডেশন একটি ফান্ড তৈরি করবে যা তাঁদের এই আর্থিক সমস্যার সময় সাহায্য করতে পারবে।’‌

First published: March 23, 2020, 8:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर