• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • সাংসদ, বিধায়ক তহবিলের টাকায় অ্যাম্বুলেন্স করোনা আক্রান্তদের পরিবহণের কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসনের

সাংসদ, বিধায়ক তহবিলের টাকায় অ্যাম্বুলেন্স করোনা আক্রান্তদের পরিবহণের কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত জেলা প্রশাসনের

অনেক ক্ষেত্রে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সেইসব অ্যাম্বুলেন্স মাসের পর মাস পড়েও রয়েছে। আবার অনেক অ্যাম্বুলেন্সের ফিট সার্টিফিকেট, বিমাসহ প্রয়োজনীয় অনেক কাগজপত্রই নেই বলেও অভিযোগ।

অনেক ক্ষেত্রে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সেইসব অ্যাম্বুলেন্স মাসের পর মাস পড়েও রয়েছে। আবার অনেক অ্যাম্বুলেন্সের ফিট সার্টিফিকেট, বিমাসহ প্রয়োজনীয় অনেক কাগজপত্রই নেই বলেও অভিযোগ।

অনেক ক্ষেত্রে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সেইসব অ্যাম্বুলেন্স মাসের পর মাস পড়েও রয়েছে। আবার অনেক অ্যাম্বুলেন্সের ফিট সার্টিফিকেট, বিমাসহ প্রয়োজনীয় অনেক কাগজপত্রই নেই বলেও অভিযোগ।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: সাংসদ, বিধায়ক তহবিলের টাকায় কেনা অ্যাম্বুলেন্সগুলিকে করোনা আক্রান্তদের পরিবহণের কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নিল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট দফতরে এ ব্যাপারে নির্দেশ পাঠিয়েছেন জেলাশাসক বিজয় ভারতী। সরকারি তহবিলের টাকায় কেনা যেসব অ্যাম্বুলেন্স অচল হয়ে পড়ে রয়েছে সেগুলোকেও কাজের উপযুক্ত করে গড়ে তুলে কোভিড মোকাবিলায় কাজে লাগানোর কথা বলেছেন জেলাশাসক। সরকারি অনুদানে কেনা এইসব অ্যাম্বুলেন্সগুলি বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত, ক্লাব ও সংস্থাকে দেওয়া হয়েছিল। এলাকার দুস্থ, আর্থিক দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়া বাসিন্দাদের সুবিধার জন্য এই অ্যাম্বুলান্স দেওয়া হয়েছিল। অথচ এর অনেকগুলি কোনও কোনও ব্যক্তিকে মাসিক টাকার চুক্তিতে ঠিকায় দিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ।

অনেক ক্ষেত্রে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সেইসব অ্যাম্বুলেন্স মাসের পর মাস পড়েও রয়েছে। আবার অনেক অ্যাম্বুলেন্সের ফিট সার্টিফিকেট, বিমাসহ প্রয়োজনীয় অনেক কাগজপত্রই নেই বলেও অভিযোগ। সেই অভিযোগ ওঠার পরে পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানিয়েছিলেন, অনিয়ম থাকলে সেইসব অ্যাম্বুলেন্সগুলি জেলা প্রশাসন নিয়ে  তা করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কাজে লাগাবে। যেহেতু অ্যাম্বুলেন্সগুলির রেজিস্ট্রেশন জেলাশাসকের নামে তাই জেলা প্রশাসন তা নিতেই পারে বলে জানিয়েছিলেন জেলাশাসক। এরপর জেলাশাসক সংশ্লিষ্ট দফতর সেই সিদ্ধান্তের কথা জানানোর পাশাপাশি কোন অ্যাম্বুলেন্স কোথায় কিভাবে রয়েছে তা বিস্তারিতভাবে জানানোর নির্দেশ দিয়েছেন। সেই তথ্য সংগ্রহ করছে পরিকল্পনা দফতর।

করোনা পরিস্থিতিতে মাঝেমধ্যেই অ্যাম্বুলেন্স পেতে সমস্যা হচ্ছে জেলা প্রশাসনের। করোনা আক্রান্তদের হদিশ মিললে সেইসব পজিটিভ পুরুষ মহিলাদের করোনা হাসপাতাল বা সেফ হাউসে নিয়ে যাওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্সের প্রয়োজন হচ্ছে। অনেকেই করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় সেই কাজ করতে চাইছে না। একদিনে অনেকজন আক্রান্তের হদিশ মিললে রোগীদের নিয়ে আসার কাজে অ্যাম্বুলেন্স পেতে খুব সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে প্রশাসনকে। সাংসদ, বিধায়ক তহবিলের টাকায় কেনা অ্যাম্বুলেন্সগুলিকে সেকাজে ব্যবহার করা গেলে সেই সমস্যার অনেকটাই সমাধান হবে বলে মনে করছে জেলা প্রশাসন।

Published by:Pooja Basu
First published: