World Hypertension Day 2021: করোনা রোগীর জন্য হাইপারটেনশন কতটা মারাত্মক হতে পারে?

(Representative pic: Shutterstock)

হাইপারটেনশন অনেক রোগ ডেকে নিয়ে আসে। সঠিক চিকিৎসা না হলে মারাত্মক হতে পারে এটি।

  • Share this:

#কলকাতা: হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপ-এর চিকিৎসায় সচেতনতা বাড়াতে প্রতি বছর ১৭ মে এই দিনটিকে পালন করা হয়। হাইপারটেনশন অনেক রোগ ডেকে নিয়ে আসে। সঠিক চিকিৎসা না হলে মারাত্মক হতে পারে এটি। তাই এর সঠিক পরীক্ষা প্রয়োজন। ওয়ার্ল্ড হাইপারটেনশন ডে-তে (World Hypertension Day) প্রথমেই যেটা জানতে হবে রক্তচাপ বা বিপির সংজ্ঞা। যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবা (UK’s National Health Service) অনুসারে, রক্তচাপ হল মানব দেহে রক্তের সরবরাহ করতে যে শক্তি প্রয়োজন হয় তার পরিমাপ। ভারতের জাতীয় স্বাস্থ্য পোর্টাল (India’s National Health Portal) বলেছে, একজন ব্যক্তির রক্তচাপ যদি ১৪০/৯০-এর উপরে হয়, তবে সেটা হাইপারটেনশনের আওতায় পড়ে। আর যদি সেটা ১৮০/১২০ হয় তবে সেটা গুরুতর বলে বিবেচিত হবে।

উচ্চ রক্তচাপে লবণের ভূমিকা

লবণ আমাদের খাদ্যতালিকায় একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, তবে বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে লবণ এবং হাইপারটেনশন মধ্যে সরাসরি সম্পর্ক রয়েছে। যে সকল লোকেরা ডায়েটরি সোডিয়াম (Dietary Sodium) গ্রহণ করেন, তাঁদের হাইপারটেনশন হওয়ার প্রবণতা থাকে। কারণ, লবণ গ্রহণের ফলে বেশি পরিমাণে জলের সঞ্চার হয় যা পরবর্তীতে হার্টের পক্ষে রক্ত পাম্প করা আরও কঠিন করে তোলে, এর ফলে রক্তনালীতে চাপ বাড়ায়। তাই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা হাইপারটেনশনের জন্য নিয়মিত লবণ খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। যে সমস্ত লোকেরা ডায়েটে কম লবণ গ্রহণ করেন তাঁদের রক্তচাপ হ্রাস পেতে দেখা গিয়েছে।

উচ্চ রক্তচাপ এবং কোভিড ১৯

করোনায় আক্রান্ত রোগীদের জন্য হাইপারটেনশন বা উচ্চ রক্তচাপ মারাত্মক হতে পারে। বহু সংখ্যক রোগীদের ক্ষেত্রে এটা প্রমাণিত হয়েছে। যাঁরা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তাঁদের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রয়োজন রয়েছে। এই বছর ওয়ার্ল্ড হাইপারটেনশন ডে-র থিম বা লক্ষ্য হল রক্তচাপকে সঠিক ভাবে পরিমাপ করা, নিয়ন্ত্রণ করা, দীর্ঘজীবী হওয়া। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এবং অবশ্যই মাঝে মাঝে রক্তচাপ মাপাতে হবে। কারণ, করোনাকালে প্রত্যেকের সুস্থ থাকা এখন সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: