corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে মিলছে ছাড়, রাজ্যের রেড,অরেঞ্জ জোনে ব্যাঙ্ক বন্ধের আবেদন AIBOC-র

লকডাউনে বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে মিলছে ছাড়, রাজ্যের রেড,অরেঞ্জ জোনে ব্যাঙ্ক বন্ধের আবেদন AIBOC-র
সিসিটিভিতে আগত ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত করার জন্যই এই নির্দেশিকা ৷ মধ্যপ্রদেশ সরকারের জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, নতুন নিয়ম অনুযায়ী ব্যাঙ্ক ও গয়নার দোকানে প্রবেশের আগে সিসিটিভির সামনে অন্তত ৩০ সেকেন্ড মাস্ক খুলে রাখতে হবে ৷ ছবি রেকর্ড হয়ে গেলে নিরাপত্তারক্ষীরা সবুজ সঙ্কেত দেখালে ক্রেতারা ৷ মাস্ক পরে প্রবেশ করতে পারবেন দোকানে ৷

রাজ্যের রেড-অরেঞ্জ দুই জোনেই ব্যাঙ্ক বন্ধ রাখার আবেদন জানানো হয়েছে ৷

  • Share this:

#কলকাতা: ২০ এপ্রিল অর্থাৎ আজ, সোমবার থেকে বেশ কিছু ক্ষেত্রে শিথিল লকডাউন। করোনার সংক্রমণ ছড়ায়নি এমন অঞ্চল অর্থাৎ গ্রিন জোনে কিছু কিছু ক্ষেত্রে কাজ শুরুর অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র। সবক্ষেত্রেই নির্দিষ্ট গাইডলাইন থাকছে। নিয়ম ভাঙলেই নেওয়া হবে কড়া ব্যবস্থা।

কোথায় কোথায় লকডাউন শিথিল? কোন কোন ক্ষেত্রে ছাড়? গত ১৫ এপ্রিল এনিয়ে বিস্তারিত নির্দেশিকা প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। রবিবার, কেন্দ্রের দাবি, ছাড় দেওয়া হলেও সবক্ষেত্রেই কড়া নির্দেশিকা মানতে হবে।

কোন ক্ষেত্রে ছাড় মিলবে?

১. চিকিৎসা পরিষেবা, চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহে বাধা নেই ৷ চিকিৎসা সরঞ্জাম উৎপাদন ৷ আয়ুষ ও সবকটি চিকিৎসাক্ষেত্রেই ছাড় দেওয়া হয়েছে ৷

২. চাষের কাজ চালাতে বাধা নেই। কৃষিপণ্য পরিবহণ, প্যাকেটজাত করার কাজও হবে। কৃষি বাজার, সার ও রাসায়নিকের দোকান খোলা। মাছ চাষ ও মাছ ধরাতেও বাধা নেই।

৩. উৎপাদন ক্ষেত্রে ছাড়: চা-কফি-রবার উৎপাদন করা যাবে। আবাসন, নির্মাণ ক্ষেত্রেও কাজ শুরুর অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র ৷

৪. আর্থিক প্রতিষ্ঠান লকডাউনের মধ্যেই ব্যাঙ্ক খোলা ছিল। সোমবার থেকে খুলছে অন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ঋণদানকারী সংস্থাগুলোও কাজ শুরু করতে পারবে ৷ তবে রাজ্যের রেড, অরেঞ্জ জোনে অবশ্য ব্যাঙ্ক বন্ধের আবেদন জানিয়েছে AIBOC ৷  স্টেট লেভেল ব্যাঙ্কার্স কমিটির কাছে আবেদন সংগঠনের ৷

৫. জনপরিষেবায় ছাড় টেলিফোন, গ্যাস, বিদ্যুৎ, জল সরবরাহের মতো পরিষেবা পুরোপুরি ছাড় মিলবে ৷

৬. ১০০ দিনের কাজ শুরু করা যাবে। অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিবহণ, লোডিং-আনলোডিংয়ে ছাড় দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহেও বাধা নেই। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ। তবে অনলাইন পড়াশোনার জোর দিতে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্র ৷

৭. সরকারি অফিসেও কাজ শুরু হচ্ছে। তবে অবশ্যই নির্দিষ্ট গাইডলাইন মেনে। কিভাবে অফিস চলবে, কতজন কর্মী আসবেন, তাও নির্দিষ্ট করা হয়েছে ৷

যে কোনও জোনেই অবশ্য অনেকগুলি ক্ষেত্রে ছাড় মেলেনি। যেখানে করোনা সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে, বা সেই প্রবণতা রয়েছে সেখানে কোনও ছাড় নয় ৷ যেমন- বিশেষ কারণ ছাড়া ট্রেন, বাস, বিমান চলাচল করবে না - শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিল্প সংস্থা, উ‍ৎপাদন ইউনিট বন্ধ - শপিং মল, সিনেমা হল, হোটেল খুলবে না - ক্লাব, বিনোদন পার্ক বন্ধ থাকবে - ধর্মীয়, রাজনৈতিক সমাবেশ নিষিদ্ধ

কেন্দ্র জানিয়েছে, যাবতীয় বিধিনিষেধ মেনেই যাতে কাজ হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে রাজ্য প্রশাসনকে।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: April 20, 2020, 12:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर