corona virus btn
corona virus btn
Loading

অন্য রাজ্য থেকে বিমানে ফিরলেই কোয়ারেন্টাইন, কেন্দ্রের নিয়মের তোয়াক্কা না করে নির্দেশিকা কর্নাটকের

অন্য রাজ্য থেকে বিমানে ফিরলেই কোয়ারেন্টাইন, কেন্দ্রের নিয়মের তোয়াক্কা না করে নির্দেশিকা কর্নাটকের
Representative Image

কোনও ঝুঁকি নিতে চায় না রাজ্য সরকার। কারণ, এক জনও করোনা আক্রান্ত নিরাপত্তার ফাঁক গলে চলে গেলে তাঁর থেকে অনেকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকছে। সে কারণেই এই ব্যবস্থা।

  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক জানিয়েছে, ডোমেস্টিক উড়ান চালু হওয়ার পরে ওই সব উড়ানে যাঁরা যাতায়াত করবেন, তাঁদের কোয়ারান্টিনে থাকার প্রয়োজন নেই। কিন্তু কেন্দ্রের এই নিয়মের তোয়াক্কা করা হবে না, তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিল কর্নাটক সরকার। ওই রাজ্য সরকারের তরফে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সাতটি রাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের বাধ্যতামূলক ভাবে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

কর্নাটক সরকারের এক মুখপাত্রের কথায়, "এটা ঠিক, এখন মানুষ অনেক বেশি সচেতন। তা ছাড়া, আরোগ্য অ্যাপে স্ব-ঘোষণা করেই ফ্লাইটে উঠবেন যাত্রীরা। বিমানবন্দরে বারংবার মেডিকেল পরীক্ষাও হবে। কিন্তু তা সত্ত্বেও কোনও ঝুঁকি নিতে চায় না রাজ্য সরকার। কারণ, এক জনও করোনা আক্রান্ত নিরাপত্তার ফাঁক গলে চলে গেলে তাঁর থেকে অনেকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকছে। সে কারণেই এই ব্যবস্থা।

দীর্ঘ দু'মাস পর সাধারণ যাত্রীদের জন্য খুলছে বিমান পরিষেবা। করোনা অতিমারির জেরে দেশের মধ্যে বিমান পরিষেবা বন্ধ হয়েছিল গত 25 মার্চ থেকে। ফের 25 মে দেশের মধ্যেকার শহরগুলির মধ্যে শুরু হচ্ছে বিমানে যোগাযোগ। তবে এখনই সব শহরের মধ্যে যোগাযোগ তৈরি হচ্ছে না। মূলত মেট্রো শহরগুলি থাকছে এই যোগাযোগ তালিকায়। এ ছাড়াও বেশ কিছু বড় শহরের সঙ্গে মেট্রো শহরগুলির যোগাযোগও তৈরি হবে। তবে বিমান পরিষেবা শুরু হলেও এখনই তা পুরোমাত্রায় চালু হচ্ছে না। মাত্র 30% শতাংশ বিমান পরিষেবাই চালু করা হবে। 25 মে থেকে 30 জুন পর্যন্ত 340টি উড়ান চলবে।

এই সব ডোমেস্টিক ফ্লাইটে যাঁরা যাবেন, তাঁদের উড়ানের সূচির অন্তত দু'ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে পৌঁছতে হবে। মানতে হবে নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নিয়মাবলী। যাত্রী পিছু একটি হ্যান্ড লাগেজ এবং একটি চেক-ইন লাগেজকে অনুমতি দেওয়া হবে। তার বেশি লাগেজ নিয়ে যাওয়ার অনুমোদন মিলবে না। যে চেয়ার ব্যবহারের নয় বলে লেখা থাকবে, সে সব চেয়ার ব্যবহার করা যাবে না। সামাজিক দূরত্ব সব জায়গায় কড়া ভাবে বজায় রাখতে হবে। অন্তঃসত্ত্বা মহিলা বা বয়স্ক ব্যক্তিদের এ সময়ে খুব প্রয়োজন না পড়লে বিমানে যাতায়াত করতে বারণ করা হচ্ছে।

এত নিয়ম-কানুন থাকা সত্ত্বেও কর্নাটক সরকার সাতটি রাজ্যের জন্য সাত দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার বন্দোবস্ত করেছে। ওই সাতটি রাজ্য হল, মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, দিল্লি, গুজরাত, তামিলনাড়ু, দিল্লি এবং মধ্যপ্রদেশ।

Shalini Datta

Published by: Elina Datta
First published: May 23, 2020, 4:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर