corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘আমার নামে বিজ্ঞপ্তি, অথচ আমিই কিছু জানি না’, পুরসভা নিয়েও রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত

‘আমার নামে বিজ্ঞপ্তি, অথচ আমিই কিছু জানি না’, পুরসভা নিয়েও রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত

এবার কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে বসা নিয়ে নয়া বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়া নিয়ে সরব হলেন রাজ্যপাল। মূলত কলকাতা পুরসভার ৬ মে’র বিজ্ঞপ্তি কেন রাজভবনে জানানো হলো না, তা নিয়ে সরব হয়েছেন রাজ্যপাল।

  • Share this:

SOMRAJ BANDOPADHYAY

#কলকাতা: রাজ্য রাজ্যপাল সংঘাত কমার কোন লক্ষণই নেই। উল্টে ক্রমশই তা বেড়ে যাচ্ছে। রেশনের কালোবাজারি নিয়ে সরব হওয়ার পর এবার কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে বসা নিয়ে নয়া বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়া নিয়ে সরব হলেন রাজ্যপাল। মূলত কলকাতা পুরসভার ৬ মে’র বিজ্ঞপ্তি কেন রাজভবনে জানানো হলো না, তা নিয়ে সরব হয়েছেন রাজ্যপাল। অবিলম্বে মুখ্য সচিবকে সেই নোটিফিকেশন বা নির্দেশিকা পাঠানোর কথা বলা হয়েছে রাজভবনের তরফে। বৃহস্পতিবার তা নিয়ে পরপর তিনটি ট্যুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। ট্যুইট করে তিনি বলেন, "কলকাতা পুরসভা নিয়ে ৬ মে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। সেই বিজ্ঞপ্তি পৌঁছায়নি রাজভবনে। দ্রুত বিজ্ঞপ্তি রাজভবনে পাঠাতে হবে। সব মিডিয়ার কাছে সেই বিজ্ঞপ্তি কপি আছে। আমার নামে নির্দেশিকা । কিন্তু আমি কিছুই জানি না। কোনও আলোচনা নেই, খবর নেই। কোথায় যাচ্ছি আমরা? সংবিধান মেনে চলতে হবে।" দিন কয়েক আগে মুখ্যমন্ত্রীর পাঠানো চিঠির উত্তর দিয়েছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। রাজ্যপালের পাঠানো চিঠিতে গণবণ্টন ব্যবস্থার রাজনীতিকরণের ফলে রেশন নিয়ে বিক্ষোভ, অশান্তি, হিংসা শুরু হয়েছে বলে মুখ্যমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে অভিযোগ করেছিলেন রাজ্যপাল। শুধু এখানেই থেমে থাকেননি তিনি, বুধবার পরপর তিনটি ট্যুইট করেছিলেন রাজ্যপাল। সেখানে রাজ্যের রেশন ব্যবস্থার কালোবাজারি নিয়ে সরব হয়েছিলেন। প্রথম দু’টি ট্যুইটে লকডাউন চলাকালীন কোন কেন্দ্রীয় প্রকল্পে রাজ্য কতটা খাদ্যশস্য পাচ্ছে তার পরিসংখ্যান তুলে ধরেছেন। বুধবার ট্যুইট করে তিনি দাবি করেন, গত ৫ মে প্রধানমন্ত্রী গরীব কল্যাণ ও অন্য যোজনায় ৯ হাজার ৮৮৯ মেট্রিক টন ডাল ফ্রি হিসেবে পাঠানো হয়েছে রাজ্যকে। শুধু তাই নয়, বুধবারের করা দ্বিতীয় ট্যুইটে রেশন ব্যবস্থা নিয়ে আশঙ্কাজনক রিপোর্ট পাওয়া যাচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছিলেন রাজ্যপাল। আর তাঁর তৃতীয় ট্যুইটে তিনি গণবণ্টন ব্যবস্থার স্বাস্থ্যবান হওয়ার প্রয়োজন বলেও সওয়াল করেছিলেন।

বৃহস্পতিবার রেশনের কালোবাজারি নিয়ে সরব হওয়ার পর এবার কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদের বসানো নিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারির প্রসঙ্গ নিয়েও সরব হলেন রাজ্যপাল। বৃহস্পতিবার পরপর তিনটি করা ট্যুইটে প্রথমের দিকে মুখ্যসচিবকে নির্দেশিকা পাঠানোর ব্যবস্থা করতে বলেন। পরবর্তী দু’টি ট্যুইটে রাজ্যকে কার্যত খোঁচাই দেন রাজ্যপাল। রাজ্যপালের নামে নির্দেশিকা বেরোলেও কেন তাঁকে জানানো হবে না, সে নিয়েই সরব হন রাজ্যপাল। একাংশের দাবি, কলকাতা পুরসভার মেয়াদ বাড়াতে গেলে অর্ডিন্যান্স জারি করতে হত রাজ্য সরকারকে। সেক্ষেত্রে রাজ্যপালের অনুমোদন নিতে হত রাজ্যকে। তাই রাজ্যপালকে আপাতত এড়িয়ে চলার জন্য কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও এবার কলকাতা পুরসভার প্রশাসক পদে বিজ্ঞপ্তি জারি নিয়ে আবারও রাজ্য রাজ্যপালের সংঘাত জোরালো হবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

First published: May 7, 2020, 10:35 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर