corona virus btn
corona virus btn
Loading

স্কুল খোলার রোডম্যাপ তৈরি শুরু শিক্ষা দফতরের, অভিভাবকদের মতামত নিয়েই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত!

স্কুল খোলার রোডম্যাপ তৈরি শুরু শিক্ষা দফতরের, অভিভাবকদের মতামত নিয়েই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত!
ফাইল ছবি

মূলত কীভাবে স্কুল চালু করা হবে, প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক স্তরের পড়ুয়াদের কীভাবে এবং কতজন পড়ুয়া নিয়ে ক্লাস নেওয়া হবে? নবম-দশম এবং একাদশ-দ্বাদশ এর জন্য ক্লাস নেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা, যাবতীয় বিষয় নিয়ে রোডম্যাপ প্রস্তুতির কাজ চলছে।

  • Share this:

#কলকাতাঃ লকডাউন পরবর্তী পর্যায়ে কীভাবে রাজ্যে চালু হবে স্কুল! তা নিয়ে এবার রোডম্যাপ তৈরীর কাজ শুরু করল রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর । সূত্রের খবর,  গত সপ্তাহ থেকেই কয়েকজন প্রধান শিক্ষকের সাহায্য নিচ্ছেন রাজ্য দফতরের  আধিকারিকরা । মূলত কীভাবে স্কুল চালু করা হবে, প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিক স্তরের পড়ুয়াদের কীভাবে এবং কতজন পড়ুয়া নিয়ে ক্লাস নেওয়া হবে? নবম-দশম এবং একাদশ-দ্বাদশ এর জন্য ক্লাস নেওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা, যাবতীয় বিষয় নিয়ে রোডম্যাপ প্রস্তুত করছে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের  আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, এ নিয়ে রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের সচিব কয়েকটি ভিডিও কনফারেন্স সেরে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই । জানা গিয়েছে, স্কুল চালু করার আগে নেওয়া হতে পারে স্কুল ভিত্তিক অভিভাবকদের মতামত । তবে তা আপাতত পরিকল্পনা স্তরেই রয়েছে সবটাই । তাই এ বিষয়ে অবশ্য মন্তব্য করতে চাননি স্কুল শিক্ষা দফতরের কোনও  আধিকারিক বা মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ।

ইতিমধ্যেই বৃহস্পতিবার শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনার পর্ব চলাকালীন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী ৩০% পড়ুয়া নিয়ে একই সঙ্গে ক্লাস শুরু করার কথা বলেছেন লকডাউন পরবর্তী পর্যায়ে । যা নিয়ে এ ইতিমধ্যেই আলোচনা ও চর্চা শুরু হয়েছে দেশজুড়ে । কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী জানিয়েছেন লকডাউন পরবর্তী পর্যায় কিভাবে স্কুল চালু করা হতে পারে তা নিয়ে এনসিইআরটি গাইডলাইন তৈরি করছে । ইতিমধ্যেই সেই গাইডলাইন তৈরি চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে বলেও বৃহস্পতিবারই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী । এনসিইআরটি সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউন পরবর্তী পর্যায় স্কুল চালু নিয়ে একাধিক সুপারিশ দেওয়া হতে পারে । যার মধ্যে থাকতে পারে স্কুলে কোনও প্রার্থনা সভা করা যাবে না । আপাতত স্কুলগুলিতে কোনও সেমিনার বা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা যাবে না পাশাপাশি নেওয়া হতে পারে  শিফট ভিত্তিক ক্লাস । অর্থাৎ,  সেক্ষেত্রে একই দিনে দুটি করে শিফটের মাধ্যমে ক্লাস নেওয়া হবে পড়ুয়াদের

রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ১০ ই জুন পর্যন্ত স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি বন্ধ রাখার ঘোষণা করা আছে । আগামীতে লকডাউন বাড়বে কিনা বা  স্কুল বন্ধের সময়সীমা আরও বাড়ানো হবে কিনা সেই বিষয়ে অবশ্য শুক্রবার পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি । তবে স্কুল যদি চালু করা হয় সে ক্ষেত্রে এ রাজ্যে একাধিক বিধিনিষেধ জারি করা হবে তাতে কোন সন্দেহ নেই । অবশ্যই সে ক্ষেত্রে গুরুত্ব পাবে সোশ্যাল ডিসটেন্স বা সামাজিক দূরত্বের প্রসঙ্গ । আপাতত রোড ম্যাপ তৈরির প্রসঙ্গ পরিকল্পনা স্তরে থাকলেও তা নিয়ে শীর্ষ মহলেও আলোচনা শুরু হয়েছে বলে দফতর সূত্রে খবর।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 15, 2020, 4:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर