corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউন মেনেই হাসপাতালে রোগীদের রক্ত দানে এগিয়ে এলো স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা !

লকডাউন মেনেই হাসপাতালে রোগীদের রক্ত দানে এগিয়ে এলো স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা !

লকডাউনের মাঝেই রক্ত দিতে এগিয়ে এলো উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া ব্লকের দাসপাড়ার একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

  • Share this:

#ইসলামপুর: লকডাউনের মাঝেই রক্ত দিতে এগিয়ে এলো উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া ব্লকের দাসপাড়ার একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। অসহায় মানুষের স্বার্থে সাধারন মানুষকে স্বেচ্ছায় রক্তদান করার আহ্বান জানালেন স্বেচ্ছাসেবী  সংস্থার কর্নধার।সমস্ত নিয়মনীতি মেনে রক্ত সংগ্রহ করার আশ্বাষ দিয়েছেন ইসলামপুর ব্লাড ব্যাঙ্কের চিকিৎসক কৌস্তভ রায়। সারা পৃথিবী করোনা ভাইরাসের মত মারন রোগে কাপছে।ভারতবর্ষ এই মারন ভাইরাসে আক্রান্ত।আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সারা দেশে লকডাউন চলছে।মানুষকে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে না আসার আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

উত্তরদিনাজপুর জেলার ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতাল ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে অবস্থিত। পথ দুর্ঘটনা লেগেই। লকডাউনে কারনে জাতীয় সড়কে যান চলাচল কম হওয়ায় দুর্ঘটনার সংখ্যায় কম।কিন্ত থ্যালেসেমিয়ে রোগী বেশ কিছু রোগীদের নিয়মিত রক্ত দিতে হয়।ইসলামপুর হাসপাতাল সারা রাজ্যে হাসপাতালগুলিতে চলছে চরম রক্ত সংকট।ইসলামপুর হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্কে মাত্র ৬ ইউনিট রক্ত মজুত আছে।নতুন করে কোন রক্ত দান শিবির না হওয়ায় হাসপাতালের তরফ থেকে রোগীদের রক্ত সরবরাহ করা হচ্ছে।শুধুমাত্র গ্রুপ অনুযায়ী ডোনার এনে রক্ত দেওয়া হছে।এই রক্ত সংকটের হাত থেকে কিছুটা  রেহাই দিতে চোপড়া দাসপাড়া একটি স্বেচ্ছাসেবী  সংস্থা রক্ত দান করতে এগিয়ে এলেন। এই লকডাউন চলাকালীন সাধারন মানুষ রক্ত দান করলে মুমূর্ষু রোগী প্রানে বাঁচতে পারেন বলে মনে করেন রক্ত দাতা সরদেশ শর্মা।ব্লাড ব্যাঙ্কের চিকিৎসক কৌস্তভ রায় জানিয়েছেন,সাধারন মানুষ রক্ত দানে এগিয়ে না এলে মুমুর্ষু রোগী চরম সমস্যা পড়েছেন।স্বেচ্ছাসেবী  সংগঠন,ইসলামপুর পৌরসভা সহ একাধিক জায়গায় তারা রক্ত দান শিবির করার জন্য আবেদন করেছেন।কোন সংস্থাই তাদের এই আবেদনে সাড়া দেন নি।ফলে চরম রক্ত সংকটের মধ্যে পড়েছে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালের ব্লাড ব্যাঙ্ক।মানুষ রক্ত দিতে এগিয়ে এলে সম্পূর্ন নিয়মনীতি মেনে রক্ত সংগ্রহ করা হবে। এতে আতঙ্কিত হবার কোন কারন থাকবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন চিকিৎসক কৌস্তভ রায়।

UTTAM PAUL

Published by: Piya Banerjee
First published: March 28, 2020, 11:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर