সত্যি নাকি! ১৯৮১ সালের এই উপন্যাসেই করোনার কথা বলা ছিল?

সত্যি নাকি! ১৯৮১ সালের এই উপন্যাসেই করোনার কথা বলা ছিল?
এই বইটিকে ঘিরেই বিতর্ক৷ ছবি:ফেসবুক

অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, ২০২০ সালে করোনার সংক্রমণ শুরু উহান থেকেই৷ কার্যত বধ্যভূমিতে পরিণত হয়েছে এই অঞ্চলটি৷ কার্যত সারা পৃথিবী থেকে এখন বিচ্ছিন্ন চিন৷

  • Share this:

সোশ্যাল মিডিয়ায় হইচই পড়ে গিয়েছে৷ নেটিজেনরা দেখাচ্ছেন থ্রিলার লেখক ডিন কুন্টজের একটি বই ‘দ্যা আইস অফ ডার্কনেসে’ বহু আগেই করোনার কথা বলেছিল ৷ বইয়ে ভাইরাসটির নাম দেওয়া হয় উহান ৪০০৷ উপন্যাসে দেখানো হয় চিনের উহান প্রদেশের গবেষণাগারে জৈব অস্ত্র হিসেবে এই ভাইরাস তৈরি করা হবে৷

ডিন তাঁর লেখায় দেখিয়েছেন ১২ ঘণ্টায় একটি অঞ্চলের সব মানুষকে মেরে ফেলতে পারে এই ভাইরাস৷ ৩৩৩ নম্বর পাতায় দেখা যাচ্ছে, এক চরিত্র বলছে, ‘‘উহান-৪০০ একটি দারুণ অস্ত্র৷ এটা শুধুই মানুষের ওপরেই কার্যকর হবে৷ এটি অনেকটি সিফিলিসের মতো৷ মানব দেহের বাইরে এক মিনিটের বেশি অস্তিত্ব রাখতেই পারবেই না৷’’

বিষয়টি সামনে আসতেই নানা সম্ভাবনার কথা ঘুরে বেড়াচ্ছে৷ এক টুইটারেত্তি লিখেছেন, অনেক আগেই এই বই আকারে ইঙ্গিতে সতর্ক করেছিল করোনা নিয়ে৷ যেমন, উহান ৪০০ এর কথা লেখা রয়েছে ৩৩৩ নং পাতায়৷ করোনা ভাইরাস বানাতে প্রয়োজনীয় আরএনএ প্রোটিনটির বেস ৩৩৩৷ উহান-৪০০ ভাইরাসের ৪০০ সংখ্যাটিকে ২০*২০ এই ভাবেই লেখা যায়৷ ওই টুইটারেত্তির দাবি এভাবেই সতর্ক করেছিলেন লেখক৷ যদিও এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে দেখা যায়নি ডিন কুন্টজকে৷

তবে মিল যেমন রয়েছে অমিলও রয়েছে৷ কুন্টজ দেখিয়েছিলেন উহান ৪০০ ০-এর সংক্রমণে মৃত্যর সম্ভাবনা ১০০ শতাংশ৷ কিন্তু তথ্য বলছে করোনা বিপর্যয়ের ফলে মৃত্যুর হার ২ শতাংশ যা ইবোলার থেকেও কম৷ প্রাথমিক ভাবে উপন্যাসটিতে চিনা শহর উহানের নাম নেওয়া হয়নি৷ নাম নেওয়া হয়েছিল ‘গোর্কি’ নামক এক রাশিয়ান শহরের৷ কিন্তু ১৯৮৯ সালে নাম বদলে ‘উহান’ করে দেওয়া হয়৷

First published: March 5, 2020, 2:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर