corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আটকাতে সাহায্যের ঝুলি নিয়ে ৮২ বছরের ‘যুবক’ ICMR প্রাক্তনী, এগিয়ে এলেন দেবশঙ্কর, সত্যরূপ সিদ্ধান্তরা

করোনা আটকাতে সাহায্যের ঝুলি নিয়ে ৮২ বছরের ‘যুবক’ ICMR প্রাক্তনী, এগিয়ে এলেন দেবশঙ্কর, সত্যরূপ সিদ্ধান্তরা

সকাল বিকেল ব্যায়াম করে এখনও নিজেকে শারীরিক ও মানসিক ফিট রেখে চলেন।লোহার আংটা ও ওড়না পেঁচিয়ে তাঁর শারীরিক কসরত আধুনিক জিমকেও হার মানাবে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা মোকাবিলা সম্ভব? নিশ্চিত সম্ভব। কীভাবে? করোনা সংক্রমণের ভয় মন থেকে দূর করতে হবে। সমাজে করোনা আক্রান্তের থেকে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে তাঁর দিকে বাড়িয়ে দিতে হবে সাহায্যের হাত। তাঁর মনে এই বিশ্বাস ঢুকিয়ে দিতে হবে করোনা লড়াইয়ে, হাম সব এক হ্যায়। এমন দর্শনের মানুষটি জীবনের অভিজ্ঞতায়  নিজেকে সমাজের কাছে দায়বদ্ধ মনে করেন । আর তাই ৮২ বছর বয়সে জীবন সন্ধ্যায় এসেও হাত দুটো বাড়িয়ে দিতে চান সমাজের জন্য। তিনি প্রাক্তন প্রফেসর ডঃ জ্ঞানব্রত শীল।

সকাল বিকেল ব্যায়াম করে এখনও নিজেকে শারীরিক ও মানসিক ফিট রেখে চলেন।লোহার আংটা ও ওড়না পেঁচিয়ে তাঁর শারীরিক কসরত আধুনিক জিমকেও হার মানাবে। সম্প্রতি এক আত্মীয়ের করোনা আক্রান্ত হওয়া থেকে মুত্যু পর্যন্ত নানা অভিজ্ঞতার সাক্ষী থেকেছেন। আর তাতেই আইসিএমআর এর প্রাক্তন বিজ্ঞানী মনে মনে একটা সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন, করোনা সংক্রমণ আতঙ্ক থেকে সমাজকে টেনে তোলার ।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক ছিলেন। এক সময় সংক্রমণ রোগ নিয়ে হু কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন রাশিয়ায় গিয়ে ১৯৭৪ সালে। এহেন মানুষটি বলেন করেনা সংক্রমণ রুখতে হোক 'সাহায্যের' সংক্রমণের বিস্ফোরণ।  সম্প্রতি চিকিৎসক যোগীরাজ রায়, সত্যরূপ সিদ্ধান্ত,দেবশংকর হালদার, অরিন্দম দাস'দের তৈরি সংস্থা কোভিড কেয়ারের কাজ মন ছুঁয়ে যায় তাঁর। নিজেই ৮২ বছরের অশক্ত শরীরে চান করোনা বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সমাজের পাশে থাকতে। সোশ্যাল সাইটেই নিজের ইচ্ছে প্রকাশ করেন তিনি। বর্তমানে ওয়ার্ক ফ্রম হোমের মাধ্যমে ঠাকুরপুকুর ক্যান্সার রিসার্চের হয়ে কাজ করে চলেছেন ।

করোনা মোকাবিলায় জ্ঞানব্রতবাবুর এমন আবেদনের সাড়া এসেছ সত্যরূপ সিদ্ধান্ত,  দেবশংকর হালদারদের থেকে। খুব তাড়াতাড়ি সাহায্যের ঝুলি নিয়ে করোনা দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াতে চান তিনি। সাহায্যের এমন সংক্রমণে পিছু হঠবে ছুৎমার্গ,  অস্পৃশ্যতা। এমন বিশ্বাসকে পাথেয় করেই এগোতে চান তিনি।চিকিৎসক যোগীরাজ রায় ৮২ বছরের এমন মানুষের সাহায্যের হাত বাড়ানোর ভূয়সী প্রশংসা করেন। চিকিৎসক যোগীরাজ রায়ে'র কথায়, "সংক্রমণের রোগ নিয়েই আমার কাজ। তবে এই করোনা রোগকে হারানো সম্ভব। জ্ঞানব্রত শীলের মতন অভিজ্ঞ মানুষ আমাদের উদ্যোগে সামিল হলে খুব ভাল হবে।"

সংস্থা'র তরফে আইনজীবী অরিন্দম দাস ও সত্যরূপ সিদ্ধান্ত জানান,  "সোশ্যাল সাইটে সোজাসাপ্টা ভাবে যে ভাবে সাহায্য করতে চেয়ে এগিয়ে এসেছেন জ্ঞানব্রত বাবু তা শেখবার মতন। ওনার আগ্রহ আমাদের আরও ভাল কাজের ক্ষিদে বাড়িয়ে দিল।"

Arnab Hazra

Published by: Elina Datta
First published: August 13, 2020, 12:18 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर