Corona Vaccine: কী কাণ্ড! কোভ্যাক্সিনের পর কোভিশিল্ড, মহারাষ্ট্রে বৃদ্ধকে দু'বার ২ ধরনের টিকা

দত্তাত্রেয় বাগমারে।

মহারাষ্ট্রের জালনা জেলার বাসিন্দা দত্তাত্রেয় বাগমারে। ২২ মার্চ তিনি করোনার প্রথম টিকা নেন।

  • Share this:

    #মুম্বই: প্রথমবার কোভ্যাক্সিন (Covaxin)। দ্বিতীয়বার কোভিশিল্ড (Covishield)। মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) এক গ্রামীণ হাসপাতালে ৭২ বছরের বৃদ্ধকে দু'বার ২ ধরনের টিকা দিলেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সম্প্রতি ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসার পরেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। টিকাকরণে (Coronavirus Vaccine) কী ভাবে এমন গুরুতর ভুল হল তা খুঁজতে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

    মহারাষ্ট্রের জালনা জেলার বাসিন্দা দত্তাত্রেয় বাগমারে। ২২ মার্চ তিনি করোনার প্রথম টিকা নেন। প্রথমবার তাঁকে ভারত বায়োটেকের তৈরি দেশীয় টিকা কোভ্যাক্সিন দেওয়া হয়। ৩০ এপ্রিল অন্য এক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে করোনার দ্বিতীয় টিকা নেন বৃদ্ধ। কিন্তু কোভ্যাক্সিনের বদলে সেখানে তাঁকে সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ডের ডোজ দেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

    বৃদ্ধের ছেলে দিগম্বর জানিয়েছেন, করোনার দ্বিতীয় ডোজের পর তাঁর বাবার সামান্য জ্বর, মাথা ব্যথার সমস্যা হয়। উৎকণ্ঠাও বাড়তে থাকে। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। তার পরেই টিকাকেন্দ্রের দেওয়া কাগজপত্র দেখে গন্ডগোলের বিষয়টি জানতে পারে বৃদ্ধের পরিবার। ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য বিভাগে নালিশ জানিয়েছে দত্তাত্রেয় বাগমারের পরিবার। দিগম্বর জানিয়েছেন, ‘আমার বাবা শিক্ষিত নন। আমিও খুব বেশি পড়াশোনা করিনি। আমার বাবাকে কী টিকা দেওয়া হচ্ছে তা স্বাস্থ্যকর্মীদের দেখা উচিত ছিল।’

    একই ব্যক্তিকে করোনার দু’ধরনের টিকা দেওয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মেডিক্যাল জার্নাল দ্য ল্যানসেটে রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, দু’ধরনের টিকা দেওয়ার ফলে মাথা ব্যথা, ক্লান্তির মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। টিকার ‘ককটেল’-এর প্রভাব করোনার উপর কতটা পড়ে তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: