corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা সংক্রমণে রাশ টানতে শহরে শুরু হল ৭ দিনের লকডাউন, জরুরি পরিষেবায় ছাড়

করোনা সংক্রমণে রাশ টানতে শহরে শুরু হল ৭ দিনের লকডাউন, জরুরি পরিষেবায় ছাড়

বর্ধমান শহরের পঁয়ত্রিশটি ওয়ার্ডে বুধবার সকাল থেকে করোনা মোকাবিলায় লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

  • Share this:

#বর্ধমান: সাত দিনের সম্পূর্ণ লকডাউন শুরু হল বর্ধমানে। শহরের ৩৫টি ওয়ার্ডে বুধবার সকাল থেকে করোনা মোকাবিলায় লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। সেইমতো এ দিন সকাল থেকেই লকডাউন কড়াকড়ি করতে রাস্তায় নামে পুলিশ। শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবা, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছে।

বুধবার সকাল থেকেই শহরের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ। রাস্তায় লোক দেখলেই তাঁদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চাইছে পুলিশ। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, শহর জুড়ে করোনার সংক্রমণ ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। সেই সংক্রমণে রাশ টানতেই এই লকডাউন। তাই বিনা কারণে কেউ রাস্তায় বের হলে তাদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

রাজ্যের অন্যান্য জেলার সঙ্গে পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও  করোনার সংক্রমণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। সেই সঙ্গে উদ্বেগজনকভাবে করোনার সংক্রমণ বেড়ে চলেছে জেলার সদর শহর বর্ধমানে। এই শহরে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। একজনের মৃত্যু হয়েছে। সেই তথ্য হাতে আসার পরই লকডাউনের কথা ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। এই নিয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৪৬৫জন করোনা আক্রান্ত হলেন। তাদের মধ্যে বর্ধমান শহরে আক্রান্ত হয়েছেন আশি জনেরও বেশি বাসিন্দা। তাদের মধ্যে বেশিরভাগই আক্রান্ত হয়েছেন এক সপ্তাহের মধ্যে।

বর্ধমান শহরের ছোটনীলপুর, বড়নীলপুর, লোকো এলাকায় এমনিতেই পুরোপুরি লকডাউন চলছিল। শহরের খোসবাগান এলাকা ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছিল। বিসি রোড, বড়বাজার, সোনাপট্টি, চাঁদনী চক, পুলিশ লাইন এলাকা, বেড় মোড়, বীরহাটা সহ গুরুত্বপূর্ণ বাজার এলাকাগুলিতে অর্ধেক দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। সবজি ও মাছ বাজারগুলি খোলা রাখার সময়সীমা কমিয়ে আনা হয়েছিল। কিন্তু তাতেও শহরে রাস্তায় ভিড় নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছিল না। সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছিল না। অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে অনীহা প্রকাশ করছিলেন। তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাড়ছিল করোনার সংক্রমণ। এসব কারণেই একটানা সাতদিন লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। লকডাউন চালু হওয়ার  সঙ্গে  সঙ্গে শহরে যান চলাচল, সরকারি-বেসরকারি যাবতীয় প্রতিষ্ঠান, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Shubhagata Dey
First published: July 22, 2020, 12:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर