করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

১৩টি দেশে ৬৪টি বিমানে আটকে পড়া ১৪ হাজারের বেশি ভারতীয়দের ফেরানো হচ্ছে প্রথম দফায়

১৩টি দেশে ৬৪টি বিমানে আটকে পড়া ১৪ হাজারের বেশি ভারতীয়দের ফেরানো হচ্ছে প্রথম দফায়
File Photo

আমেরিকা, ব্রিটেন ছাড়াও ফিলিপিন্স, সিঙ্গাপুর, বাংলাদেশ, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, সৌদি আরব, কাতার, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্স, ওমান, বাহরিন এবং কুয়েতে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরানো হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: পরিযায়ী শ্রমিকদের পরে এ বার দেশের বাইরে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরানোর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে শুরু করল ভারত সরকার। প্রথম ধাপে বিশ্বের ১৩টি দেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরাবে বিদেশমন্ত্রক। সেই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট দেশগুলির দূতাবাস এবং হাইকমিশন আটকে থাকা এবং দেশে ফিরতে ইচ্ছুক ভারতীয়দের তালিকা তৈরি করতে শুরু করেছে।

একই সঙ্গে, ১৭ মে-তে তৃতীয় লকডাউনের মেয়াদ কাটার পরে দেশের কিছু কিছু অংশে বিমান পরিবহণ চালু করার কথা ভাবা শুরু করল কেন্দ্র। তবে বিমান পরিবহণ চালু হলে তা শুরু হবে শুধুমাত্র গ্রিন জোন এলাকার মধ্যে। এই প্রস্তাব ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দফতরে পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর শিলমোহর পাওয়ার পরেই তা চালু করার কাজ শুরু হবে।

তার আগেই অবশ্য বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের ফেরানোর কাজ শুরু হচ্ছে। কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রক সূত্রে খবর, আগামী ৭ মে থেকে প্রথম পর্যায়ে সাত দিনে 8 হাজারেরও বেশি মানুষকে দেশে ফিরিয়ে আনা হতে পারে। আমেরিকা, ব্রিটেন ছাড়াও ফিলিপিন্স, সিঙ্গাপুর, বাংলাদেশ, সংযুক্ত আরব আমিরশাহী, সৌদি আরব, কাতার, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন্স, ওমান, বাহরিন এবং কুয়েতে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরানো হবে।

প্রথম সাত দিনে যে আট হাজারেরও বেশি ভারতীয়কে ফেরানো হবে, তাঁদের সিংহভাগই কেরল, তামিলনাড়ু এবং দিল্লির বাসিন্দা। এই তিন রাজ্যে মোট ৩৭টি ফ্লাইট ঢুকবে। এ ছাড়া, মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানায় আসবে ৭টি করে ফ্লাইট। গুজরাতে ৫টি, জম্মু ও কাশ্মীরে এবং কর্ণাটকে তিনটি করে আর উত্তরপ্রদেশে একটি ফ্লাইট ঢুকবে। সাত দিনে আসবে মোট ৬৪টি ফ্লাইট।দেশে ফেরার জন্য লন্ডন থেকে আহমেদাবাদ, মুম্বই, বেঙ্গালুরু আসার ভাড়া ধার্য হয়েছে ২০ হাজার টাকা। আমেরিকা থেকে ফেরার ভাড়া ১ লক্ষ টাকা। ঢাকা থেকে ১২ হাজার এবং সিঙ্গাপুর থেকে ১০ হাজার টাকা ভাড়া দিয়ে ফিরতে পারবেন আটকে থাকা ভারতীয়রা।

তবে দেশে ফিরতে চাইলেই হবে না। ফ্লাইটে ওঠার আগে সব যাত্রীদের মেডিক্যাল পরীক্ষা করে দেখে নেওয়া হবে কোভিডের কোনও লক্ষণ আছে কি না। অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের এক অফিসার বলেন, "বিমানে আসতে হবে মেডিক্যাল প্রোটোকল মান্য করেই। তার পরে এ দেশে এসে আবার সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির শারীরিক পরীক্ষা করা হবে। করোনার কোনও লক্ষণ ধরা না পড়লেও ওই যাত্রীকে ১৪ দিনের সরকারি বা বেসরকারি কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। ১৪ দিনের শেষে নিয়ম মেনে কোভিড পরীক্ষা হবে। তাতে নেতিবাচক ফল হলে তবেই ছাড়া পাবেন ওই ব্যক্তি।"

Shalini Datta

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 5, 2020, 7:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर