corona virus btn
corona virus btn
Loading

ইঞ্জিন বদলের সময় দুর্গাপুর স্টেশনে জোর করে নেমে পড়লেন শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের যাত্রীরা !

ইঞ্জিন বদলের সময় দুর্গাপুর স্টেশনে জোর করে নেমে পড়লেন শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের যাত্রীরা !
পরিযায়ী শ্রমিকদের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক৷ PHOTO- FILE

স্টেশনে মোতায়েন রেল পুলিশ যাত্রীদের নামতে বাধা দিতে গেলে তারা প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েন।

  • Share this:

#দুর্গাপুর: বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৩৫ মিনিট নাগাদ বেঙ্গালুরু থেকে নিউ জলপাইগুড়িগামী একটি শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন ইঞ্জিন বদলের জন্য দুর্গাপুর স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্মে আসে।

ঠিক এই সময় ৫৭ জন যাত্রী জোর করে নেমে পড়ে দুর্গাপুর স্টেশনে। স্টেশনে মোতায়েন রেল পুলিশ যাত্রীদের নামতে বাধা দিতে গেলে তারা প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়েন। যাত্রীদের দাবি তারা দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা। অনেকেই আবার দুর্গাপুরেরই বাসিন্দা। তাই তারা দুর্গাপুর স্টেশনে নেমে পড়েছেন।

সকাল ১১টা বেজে ১০ মিনিটে ট্রেনটি দুর্গাপুর স্টেশন ছেড়ে নিউ জলপাইগুড়ির উদ্যেশে রওনা হয়। এরপরই দুর্গাপুর স্টেশনের এক নম্বর প্ল্যাটফর্মে চরম যাত্রী বিক্ষোভ শুরু হয়। যাত্রীরা বেশিরভাগই বেঙ্গালুরুতে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। লকডাউনের জেরে তারা সেখানে আটকে পড়ে। মঙ্গলবার তারা বেঙ্গালুরু থেকে এই শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে চাপে। যাত্রীদের অভিযোগ, দুর্গাপুর স্টেশনে যারা নেমে পড়েন তাদের কেউ ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, দুর্গাপুরে থাকেন, এদের অভিযোগ ছিল কেন প্রশাসনিক স্তরে একটু ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি ৷ তাহলে তো আবার ট্রেনে চেপে অন্যত্র চলে যেতে না হয়। কারণ দুর্গাপুর থেকেই তাদের বাড়ি ফেরায় সুবিধা। চরম এই যাত্রী বিক্ষোভের জেরে রেলের আধিকারিক থেকে প্রশাসনিক আধিকারিকের কর্তারা সবাই ছুটে আসে দুর্গাপুর স্টেশনে। পরিস্থিতির সামাল দিতে গোটা স্টেশন চত্বরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়। নিয়ে আসা হয় যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মেডিকেল টিমও।

এইদিকে যাত্রীদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয় তার জন্য খাবার ও পানীয় জল দেওয়া হয় পুলিশ প্রশাসন থেকে। শিশুদের জন্য দুধের ব্যবস্থাও করা হয়।

যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দিতে মহকুমা প্রশাসন থেকে ব্যবস্থাও নেওয়া হয়। দুর্গাপুরের মহকুমা শাসক অনির্বান কোলে জানিয়েছেন, সবকিছু পরীক্ষা করে এই যাত্রীদের ঘরে ফেরানোর ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: May 14, 2020, 3:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर