করোনা ভাইরাস

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুরীর রথ টানবেন পাঁচ হাজার সেবায়েত, হাতি রাখার প্রস্তাব সোসাইটির

পুরীর রথ টানবেন পাঁচ হাজার সেবায়েত, হাতি রাখার প্রস্তাব সোসাইটির
এই দৃশ্য এবার দেখা যাবে না পুরীতে।

রথযাত্রা দিন পর্যটকরা আসতে পারবেন না পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির চত্বরেও।

  • Share this:

কলকাতা: চূড়ান্ত হয়ে গেল জগন্নাথদেবের রথযাত্রা। আগামী ২৩ জুন রথযাত্রায় প্রভু জগন্নাথের সেবায় থাকবেন ৫ হাজার সেবায়েত। পুরীর মন্দির অঞ্চল জুড়ে জারি থাকবে ১৪৪ ধারা। মন্দির সোসাইটির পক্ষ থেকে তিনটি হাতি রাখার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। শেষ পর্যন্ত সোসাইটির প্রস্তাব মেনে রথযাত্রা দিন ৩টি হাতি রাখা হলে সেটাই হতে চলেছে এবারের পুরীর রথযাত্রার বড় চমক।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুলিশ কর্মী মোতায়েন থাকলেও রথের রশি টানবেন ৫ হাজার সেবায়েত। প্রসঙ্গত এই মুহূর্তে পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দিরে সেবাইতের সংখ্যা দশ হাজার। কোভিড পরবর্তী পর্যায়ে কী ভাবে প্রভু জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা সম্পন্ন করা হবে, সেই নিয়ে ভাবনার শেষ ছিলনা ওড়িশা প্রশাসনের। দফায় দফায় বৈঠকের পর শেষ পর্যন্ত ঠিক হয়, সেবাইতদের মাধ্যমেই ২৩ জুন প্রভু জগন্নাথ দেবের রথ টানা হবে। ২৩ জুন সকাল ১১ টা থেকে দুপুর বারোটার মধ্যে মাসির বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেবে জগন্নাথ দেবের রথ।

প্রভু জগন্নাথ দেবের মন্দির থেকে মাসির বাড়ি পর্যন্ত অঞ্চল জুড়ে বলবৎ থাকবে ১৪৪ ধারা। আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হাজারের বেশি পুলিশ মোতায়েন থাকবে ওই অঞ্চলে। মন্দিরের মুখ্য দ্বৈতাপতি রাজেশ দ্বৈতাপতি জানান, "অন‍্য বার প্রভু জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা উপলক্ষে লক্ষ লক্ষ মানুষের সমাগম হয় পুরীতে। এবারের পরিস্থিতি অন্যরকম। একেবারে নতুন। রথযাত্রায় সামিল হতে পারবেন শুধুমাত্র সেবাইতরা। মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে তিনটি হাতি রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। ১৬ জুন মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মন্দির সোসাইটির সদস্যরা।"

ইতিমধ্যেই পর্যটকদের কথা ভেবে পুরীর সমুদ্র সৈকতে হোটেল খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে পর্যটকরা তিন দিনের বেশি হোটেলে থাকতে পারবেন না, বলে জানানো হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। রথযাত্রা দিন পর্যটকরা আসতে পারবেন না পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির চত্বরেও।

Published by: Arka Deb
First published: June 14, 2020, 1:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर