• Home
  • »
  • News
  • »
  • coronavirus-latest-news
  • »
  • একসঙ্গে করোনা আক্রান্ত চার আইনজীবী, একটানা সাত দিন কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ধমান আদালতের আইনজীবীদের

একসঙ্গে করোনা আক্রান্ত চার আইনজীবী, একটানা সাত দিন কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ধমান আদালতের আইনজীবীদের

আদালতের মধ্যে জোর করোনা সংক্রমণ৷

আদালতের মধ্যে জোর করোনা সংক্রমণ৷

আদালতের মধ্যে জোর করোনা সংক্রমণ৷

  • Share this:

#বর্ধমান : করোনা সংক্রমণের কারণে বন্ধ হয়ে গেল বর্ধমান আদালত। আগামী সাতদিন বন্ধ থাকবে আদালত। শুক্রবার এমনই সিদ্ধান্ত নিল বর্ধমান আদালতের বার অ্যাসোসিয়েশন। দীর্ঘ লকডাউনের পর আনলক পর্বের হাত ধরে খুলেছিল আদালত। দীর্ঘদিন জমে থাকা মামলার ধাপে ধাপে নিষ্পত্তি হবে বলে আশা করেছিলেন বিচারপ্রার্থীরা। পুরোদমে আদালত চালু হতেই করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়লেন একসঙ্গে চার আইনজীবী। তার জেরে তড়িঘড়ি বন্ধ করে দেওয়া হল আদালত।

বর্ধমান আদালতের চার আইনজীবী করোনায় আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। তার জেরে আগামী ৭ ডিসেম্বর থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সমস্ত

আইনজীবী কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন। বর্ধমান আদালতের বার অ্যাসোসিয়েশনের বৈঠকে শুত্রুবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বর্ধমান বার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক সদন তা জানান, বর্ধমান আদালতের চার জন আইনজীবী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে রীতিমত আতংকের মধ্যে রয়েছেন বাকি আইনজীবীরা। তাঁরাও যেকোনও সময় আক্রান্ত হওয়ার আশংকা করছেন। তাছাড়া আদালতে জেলার নানা প্রান্ত থেকে বাসিন্দারা আসছেন। অনেক ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছে না। তাই ঝুঁকি না নিয়ে একরকম বাধ্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নিতে হলো।

জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বর্ধমান শহরে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। যদিও বারের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত নন আইনজীবীদের একটা অংশ। তাদের বক্তব্য, দীর্ঘদিন আদালতের কাজ বন্ধ ছিল। মাসখানেক হল আদালতের কাজ স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। এই সময় ফের করোনার অজুহাতে আদালতের কাজকর্ম বন্ধ রাখা ঠিক নয়। এমনিতেই করোনার জেরে আইনজীবীরা সংকটে রয়েছেন। তার ওপর দফায় দফায় আদালতের কাজকর্ম বন্ধ রাখায় তাঁদের ক্ষতি পাশাপাশি বিচারপ্রার্থীদেরও ক্ষতি।

জুনিয়র আইনজীবীদের একাংশ জানিয়েছেন, সোমবারও তাঁরা অনান্য দিনের মতোই কাজে যোগ দেবেন। সেক্ষেত্রে বার অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে সংঘাতের পরিবেশ তৈরি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে আবার অনেকেই কারণে আদালতে কাজ বন্ধ রাখার পক্ষেই মত দিয়েছেন।

Saradindu Ghosh

Published by:Debalina Datta
First published: