corona virus btn
corona virus btn
Loading

দলে দলে ইস্তফা দিচ্ছেন নার্সেরা, সঙ্কটে রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা, ছাড়লেন আরও ২৪২ নার্স

দলে দলে ইস্তফা দিচ্ছেন নার্সেরা, সঙ্কটে রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা, ছাড়লেন আরও ২৪২ নার্স

আমরি, বেলভিউ, ডিসান থেকে চার্নক, পিয়ারলেস। রাজ্যের প্রথম সারির বেসরকারি হাসপাতালে নার্সদের ইস্তফার হিড়িকে বেকায়দায় রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা ।

  • Share this:

#কলকাতা: জমা পড়ছে একের এক ভিনরাজ্যের নার্সদের ইস্তফা পত্র ৷ নার্সদের রাজ্য ছাড়ার হিড়িক। সঙ্কটে বেসরকারি হাসপাতালের পরিষেবা। শনিবার কাজে ইস্তপা দিলেন আরও ২৪২জন নার্স।

আমরি, বেলভিউ, ডিসান থেকে চার্নক, পিয়ারলেস। রাজ্যের প্রথম সারির বেসরকারি হাসপাতালে নার্সদের ইস্তফার হিড়িকে বেকায়দায় রাজ্যের চিকিৎসা পরিষেবা । শুক্রবারই রাজ্য ছাড়েন মণিপুরের ১৮৫ জন নার্স। আর আজ সবমিলিয়ে ইস্তফা দিয়ে নিজরাজ্যে ফিরছেন ২৪২ জন ৷ এদিন থেকে আমরি থেকে ৭২ নার্সের ইস্তফা, ডিসান হাসপাতালে জমা পড়ে ৭৬ নার্সের ইস্তফা, চার্ণক ছাড়লেন ১৪ জন নার্স ৷ EEDF থেকে ইস্তফা ৪২ নার্সের ৷ ২৬ জন নার্স ইস্তফা দেন বেলভিউ থেকে৷ পিয়ারলেস থেকে ছেড়ে গিয়েছেন ১২ নার্স ৷

বৃহস্পতিবার থেকে হঠাৎ কলকাতার বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলিতে নার্সের সঙ্কট দেখা দিয়েছে৷ কারণ মণিপুর সরকার কলকাতায় কর্মরত তাদের ১৮৫ জন নার্সকে নিজেদের রাজ্যে ফেরত নেওয়ার উদ্যোগ নেয়৷ মণিপুর সরকারই নার্সদের সড়কপথে ফেরাতে বাস পাঠিয়ে দেয়৷ সেই মতো মণিপুরের নার্সরা কলকাতায় চাকরি ছেড়ে তাঁদের নিজের রাজ্যে ফিরে যান। এর ফলে তীব্র সমস্যায় পরে বেসরকারি হাসপাতাল নার্সিং হোমগুলি।সূত্রের খবর, কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতাল, নার্সিংহোমের থেকে অনেক বেশি টাকা বেতনের টোপ দিয়ে এবং অন্যান্য সুযোগ সুবিধার আশ্বাস দিয়ে এই নার্সদের ফেরানো হয়েছে৷

মূলত কলকাতার বিভিন্ন বড় বেসরকারি হাসপাতাল, নার্সিংহোমগুলি উত্তর - পূর্বের রাজ্যগুলির নার্সদের উপর বিশেষ ভাবে নির্ভরশীল। আমরি, ফর্টিস, আর এন টেগোর, পিয়ারলেস, মেডিকার মতো বড় হাসপাতালগুলিতে সহ মণিপুর, মিজোরাম, মেঘালয়, অরুণাচল প্রদেশের নার্সদের সংখ্যা অনেকটাই বেশি। এছাড়াও ওড়িশা এবং ত্রিপুরা থেকে আসা নার্সদের সংখ্যাও নেহাত কম নয়।

রাজ্যে নার্সিং কলেজ অনেক কম হওয়ায় প্রতিবছর যে পরিমাণে নার্স পাশ করে বের হন, তাতে রাজ্যের বেসরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় যত নার্স লাগে, তা পূরণ হয় না। ফলে বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলিকে উত্তর-পূর্বাঞ্চল, ওড়িশা, দক্ষিণ ভারতের নার্সের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয়। এই করোনা পরিস্থিতিতে এক ধাক্কায় এত নার্স কাজ ছেড়ে যাওয়ায় সঙ্কটে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা ৷

Published by: Elina Datta
First published: May 16, 2020, 8:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर