corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউন দাওয়াইতেও কমছে না করোনা, পুরনো ‘এই’ শহরে এক একদিনে পাওয়া যাচ্ছে নতুন সংক্রমিত

লকডাউন দাওয়াইতেও কমছে না করোনা, পুরনো ‘এই’ শহরে এক একদিনে পাওয়া যাচ্ছে নতুন সংক্রমিত

জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক বলেন, একটানা লকডাউন ও তার পরবর্তী সময়ে বাজারে ভিড় নিয়ন্ত্রণে নানান বিধি নিষেধ চালু থাকায় আক্রান্তের সংখ্যা একটা জায়গায় দাঁড় করিয়ে রাখা সম্ভব হয়েছে।

  • Share this:

পূর্ব বর্ধমান: বর্ধমান শহরে ফের একদিনে উনিশ জন করোনা আক্রান্ত হলেন। এই শহরে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকায় চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন বাসিন্দারা। প্রতিদিনই এই শহরে ব্যাপক সংখ্যায় করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলছে। ইতিমধ্যেই এই শহরে করোনা আক্রান্ত হয়ে অন্তত কুড়ি জন বাসিন্দার মৃত্যু হয়েছে। শুধুমাত্র এই শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা তিনশো ছাড়িয়ে গিয়েছে।

লকডাউনের পাশাপাশি করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এই শহরে দোকান বাজার খোলা বন্ধের ব্যাপারে নানান বিধি নিষেধ জারি করেছে জেলা প্রশাসন। একবেলার বেশি বাজার বসছে না। দুপুরের আগেই সব সবজি বাজার বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। বিকেল পাঁচটার পর সমস্ত দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তারপর পুরোপুরি লকডাউনের চেহারা নিচ্ছে শহর। তারপরও করোনার সংক্রমণ কমার কোনো লক্ষণ দেখা না দেওয়ায় আতঙ্কিত বাসিন্দাদের অনেকেই।

বর্ধমান শহরে নতুন করে আক্রান্ত উনিশ জনের মধ্যে শুধু মাত্র পঁচিশ নম্বর ওয়ার্ডেই পাঁচজন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। শহরের ছ নম্বর ওয়ার্ডেও  পাঁচ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। সাতাশ নম্বর ওয়ার্ডে তিন জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া শহরের এক নম্বর ওয়ার্ড, পাঁচ নম্বর ওয়ার্ড, চোদ্দ ও পনের নম্বর ওয়ার্ড, উনিশ নম্বর ওয়ার্ড, আঠাশ ও উনত্রিশ নম্বর ওয়ার্ডে নতুন করে একজন করে করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। এই শহরে বেশ কয়েকজন ডাক্তার,নার্স,স্বাস্থ্য কর্মী, পুলিশ কর্মী অফিসার, সরকারি অফিসের বেশ কয়েক জন কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক বলেন, একটানা লকডাউন ও তার পরবর্তী সময়ে বাজারে  ভিড় নিয়ন্ত্রণে নানান বিধি নিষেধ চালু থাকায় আক্রান্তের সংখ্যা একটা জায়গায় দাঁড় করিয়ে রাখা সম্ভব হয়েছে। এইসব বিধি নিষেধ না থাকলে আক্রান্তের সংখ্যা ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যেতে পারত। এই শহর জুড়ে করোনার গোষ্ঠী সংক্রমণ চলছে। তাই বাসিন্দাদের উচিত প্রয়োজন ছাড়া রাস্তা বা জনবহুল এলাকা এড়িয়ে চলা। সেইসঙ্গে মাস্কে মুখ ঢাকা অবশ্যই জরুরি। তার পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার সহ যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা করতে হবে। সব সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলার ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।

Saradindu Ghosh

Published by: Debalina Datta
First published: August 19, 2020, 3:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर