corona virus btn
corona virus btn
Loading

তারাতলা পোর্ট ট্রাস্ট হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ১০, চরম আতঙ্কে বন্ধ করা হল প্যাথোলজি বিভাগ

তারাতলা পোর্ট ট্রাস্ট হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ১০, চরম আতঙ্কে বন্ধ করা হল প্যাথোলজি বিভাগ
ফাইল ছবি

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রাজ্যে প্রায় দু'শো চিকিৎসক এবং দু'শোর বেশি নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত । করোনা আক্রান্ত হয়ে দুই বর্ষীয়ান চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যে প্রতিদিনই কোনও না কোনও হাসপাতাল বা নার্সিংহোমে করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে । পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রাজ্যে প্রায় দু'শো  চিকিৎসক এবং দু'শোর বেশি নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত । করোনা আক্রান্ত হয়ে দুই বর্ষীয়ান চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে । একের পর এক হাসপাতাল নার্সিংহোম হয় পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অথবা আংশিক বন্ধ হচ্ছে। সেই তালিকায় নবতম সংযোজন তারাতলায় কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট হাসপাতাল। তার জেরে বন্ধ করে দেওয়া হল হাসপাতালের  প্যাথোলজি বিভাগ । আক্রান্ত হয়েছেন হাসপাতালের দুই প্যাথোলজিস্ট, এক জন ডেটা এন্ট্রি অপারেটর এবং তিন সাফাইকর্মী । এছাড়া চিকিৎসাধীন এক রোগী এবং তার পরিবারের ২ জন সদস্য মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন । সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত ন’জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে বন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন । তবে এরই সঙ্গে চিকিৎসাধীন এক রোগী মারা যাওযার পর তাঁর লালারসের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে ।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে জানা গিয়েছে, হাসপাতালের যে কর্মীরা আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁরা চুক্তিভিত্তিতে ওই হাসপাতালে কাজ করেন । তাঁদের প্রত্যেকেরই চিকিৎসা চলছে । আক্রান্তেরা প্রত্যেকেই সুস্থ রয়েছেন । আক্রান্তেরা শেষ কয়েকদিনে কোথায় কোথায় গিয়েছিলেন, তাদের সংস্পর্শে কারা এসেছেন, তাঁদের একটি তালিকা তৈরি করা হচ্ছে ।

একসঙ্গে এতজন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় স্বভাবতই বন্দর হাসপাতাল জুড়ে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে । সোমবারই কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট কর্তৃপক্ষের পদস্থ কর্তারা তারাতলার ওই হাসপাতাল পরিদর্শন করেন । কী কী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা উচিত, তারও পরামর্শ দেন । কলকাতা বন্দরের চেয়ারম্যান বিনিত কুমার জানিয়েছেন, 'লকডাউন ঘোষণা হলেও বন্দরের কাজকর্মে বন্ধ হয়নি। জাহাজের মাধ্যমে পণ্য ওঠানামা করছেন কর্মীরা ।' কলকাতা বন্দরের জনসংযোগ আধিকারিক সুজয়কুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। আরও কয়েকজনের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করতে দেওয়া হয়েছে । আপাতত প্যাথোলজি বিভাগ বন্ধ রেখে জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে ।”

এদিন থেকেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে এই হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে । ফলে রক্ত পরীক্ষা-সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় পরীক্ষা অন্য জায়গা থেকে করানো হবে আগামী কয়েকদিন । তবে রোগী পরিষেবায় কোনও সমস্যা হবে না বলেই জানিয়েছে কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষ ।

ABHIJIT CHANDA

Published by: Shubhagata Dey
First published: May 18, 2020, 10:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर