corona virus btn
corona virus btn
Loading

আতঙ্কের নাম করোনা! পূর্ব বর্ধমানে মৃত বেড়ে দশ!আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে

আতঙ্কের নাম করোনা! পূর্ব বর্ধমানে মৃত বেড়ে দশ!আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে

করোনার সংক্রমণে রাশ টানতে বর্ধমান শহরজুড়ে বুধবার থেকে একটানা লকডাউন চলছে। দোকান পাট যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। সংক্রমণ বাড়তে থাকায় কালনা, কাটোয়া, মেমারি শহর ও শহর লাগোয়া দশটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় একটানা লকডাউন চালানো হচ্ছে।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: জেলায়-জেলায় আতঙ্কের নাম করোনা৷ পূর্ব বর্ধমান জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছশোর দোরগোড়ায় পৌঁছে গেল। গত চব্বিশ ঘন্টায় এই জেলায় নতুন করে উনচল্লিশ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এখন এই জেলার দুশো পঁচাশি জন বাসিন্দা  করোনা আক্রান্ত হয় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিন পর্যন্ত দুশো সাতাশি জন পুরুষ মহিলা চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এদিন পর্যন্ত এই জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে দশ জনেরমৃত্যু হয়েছে। তারমধ্যে গত চব্বিশ ঘন্টায় দু জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে।  তারা বর্ধমান শহর এলাকার বাসিন্দা।

গত চব্বিশ ঘন্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত ঊনচল্লিশ  জনের মধ্যে বর্ধমান শহরেই দশজন আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। এছাড়া কাটোয়া শহরে  এক জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। কালনা শহরে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন চারজন। এছাড়া বর্ধমান এক নম্বর  ব্লকে দুজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।  ভাতার ও গলসি  দু নম্বর ব্লকে দুজন করে বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। জামালপুর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তিন জন। কালনা এক নম্বর ব্লক, পূর্বস্থলী এক নম্বর ব্লকে চার জন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। পূর্বস্থলী দু নম্বর ব্লকে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন দুজন। এছাড়া কাটোয়ার দু'নম্বর ব্লক, কেতুগ্রাম এক নম্বর ব্লক, খণ্ডঘোষ, মঙ্গলকোট ব্লক ও রায়না  দু'নম্বর ব্লকে একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্তদের অনেকেই স্হানীয় বাসিন্দা। তাঁদের সাম্প্রতিক কালে বাইরে যাওয়ার কোনও তথ্য নেই। তারপরও তাঁরা কিভাবে আক্রান্ত হলেন খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই সব এলাকাকেই বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলে তা কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষনা করা হচ্ছে। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা পুরুষ মহিলাদের লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।

করোনার সংক্রমণে রাশ টানতে বর্ধমান শহরজুড়ে বুধবার থেকে একটানা লকডাউন চলছে। দোকান পাট যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। সংক্রমণ বাড়তে থাকায়  কালনা, কাটোয়া, মেমারি শহর ও শহর লাগোয়া দশটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় একটানা লকডাউন চালানো হচ্ছে। সেখানেও আপাতত বুধবার পর্যন্ত লকডাউন চলবে। পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে জেলা প্রশাসন। এভাবে সংক্রমণ বাড়তে থাকলে লকডাউনের মেয়াদ বাড়তে পারে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর মিলেছে। এই পরিস্থিতিতে চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছেন দিন আনি দিন খাই পরিবারের বাসিন্দারা। কাজ না থাকায় উপার্জন নেই তাদের। ফলে অর্ধাহারে অনাহারে এই করোনা পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করতে হচ্ছে তাঁদের।

Saradindu Ghosh

Published by: Debalina Datta
First published: July 26, 2020, 1:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर