Home /News /cooch-behar /
Cooch Behar: আটকে দেওয়া হয়েছে সাগরদীঘির সমস্ত ঘাট! ভীড় কমছে সাগরদীঘি চত্বরে!

Cooch Behar: আটকে দেওয়া হয়েছে সাগরদীঘির সমস্ত ঘাট! ভীড় কমছে সাগরদীঘি চত্বরে!

আটকে [object Object]

শহর কোচবিহারের অন্যতম প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী হেরিটেজ দিঘী হল সাগরদিঘী।

  • Share this:

    #কোচবিহার: শহর কোচবিহারের অন্যতম প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী হেরিটেজ দিঘী হল সাগরদিঘী। কোচবিহারের ঐতিহ্য গুলির মধ্যে অন্যতম একটি দিঘী হল হলো রাজ আমলে খনন করা এই সাগরদিঘী। এই সাগরদিঘী চত্বরে প্রচুর পর্যটকদের ভিড় লক্ষ্য করা যেত। এছাড়াও এই সাগর দিঘীতে পরিযায়ী পাখিদের ভিড়ও লক্ষ্য করা যায়। সন্ধ্যে নামলেই এই সাগরদিঘী চত্বর হয়ে উঠতো জমজমাট। অসংখ্য খাবারের দোকানের পাশাপাশি বসতো অন্যান্য দোকান। তবে এই সাগরদিঘীতে কোচবিহারে স্থানীয় মানুষেরা বিভিন্ন সময় স্নান করা থেকে শুরু করে কাপড় জামা পর্যন্ত কাঁচতেন। এই সমস্ত কারণে, ধীরে ধীরে নষ্ট হতে বসেছিল সাগরদিঘির ইকো-সিস্টেম। এছাড়া সাগরদিঘীর জলে মাঝে মাঝেই ভাসতে দেখা যাচ্ছিল প্লাস্টিক আবর্জনা। বারংবার কোচবিহার প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই সম্পর্কে সচেতন করা হয়েছিল কোচবিহারবাসিকে। তবে এই অবস্থার কোন পরিবর্তন না হওয়ার কারণে। কোচবিহার প্রশাসনের পক্ষ থেকে গার্ড দিয়ে আটকে দেওয়া হয়েছে সাগরদিঘীর ঘাট গুলি। বর্তমানে কিছুটা হলেও এই সমস্যাটির সমাধান হয়েছে। তবে অপরদিকে পর্যটকদের আনাগোনা কমে গিয়েছে এই সাগরদিঘী চত্বরে। এই ঘাটের সৌন্দর্য ও সন্ধের সাগরদিঘীর ঠান্ডা বাতাস মন ছুঁয়ে যেত বহু পর্যটকদের।

    তবে এই ঘাট গুলি বন্ধ করে দেওয়ার কারণে এই ঘাটে বসতে সমস্যা হচ্ছে। আর ঠিক সেই কারণেই সাগর দিঘী চত্বরে আনাগোনা কমেছে পর্যটক এবং কোচবিহারবাসীর। এই ঘাট গুলি আটকে দেওয়ার কারণে ব্যবসায় ভাটা পড়েছে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের। সাগরদিঘী চত্তরের একজন ফুচকা বিক্রেতা নেপাল দাস জানান, "একটা সময় সারাদিন এই সাগরদিঘী চত্বর জমজমাট থাকলেও। বর্তমানে এখানে ভিড় কমেছে মানুষজনের। আর তার ফলেই বিক্রি কমেছে আমাদের দোকানের।"

    আরও পড়ুনঃ কাটুম কুটুম শিল্পী উৎপল চক্রবর্তীর নিরলস প্রচেষ্টায় উজ্জ্বল হচ্ছে কোচবিহারের নাম!

    কোচবিহারের একজন বাসিন্দা ব্রজেশ্বর মুখার্জি বলেন, "কিছু মানুষের ভুলের কারণে সাগরদিঘীর ঘাট গুলিকে যেভাবে আটকে দেওয়া হয়েছে। তার ফলে এখানে মানুষের আনাগোনা কমেছে। শুধুমাত্র কোচবিহারবাসী নয়, পাশাপাশি পর্যটকদের আনাগোনা অনেকটাই কমে গেছে। ঘাট গুলিকে আটকে দেওয়া ছাড়া যদি অন্য কোন পদ্ধতি থাকে। তবে সেটা গ্রহণ করতে পারত কোচবিহার জেলা প্রশাসন।"

    আরও পড়ুনঃ লিঙ্ক নেই পোস্ট অফিসের! নিত্য ভোগান্তিতে গ্রাহকেরা

    এ বিষয়ে কোচবিহার জেলা সদর মহকুমা শাসক রাকিবুর রহমান জানান, "আপাতত অস্থায়ীভাবে এই ঘাট গুলিকে বন্ধ করে রাখা হয়েছে। তার কারণ হলো সাধারণ মানুষকে বহুবার সচেতন করা সত্ত্বেও তারা সাগর দিঘীতে স্নান করা এবং কাপড় জমা তারা বন্ধ করেনি। তাই সরকারিভাবে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে এটি স্থায়ী কোন ব্যবস্থা নয়। ভবিষ্যতে সাধারণ মানুষের পরামর্শ নিয়ে একটি স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।"

    Sarthak Pandit
    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Cooch behar

    পরবর্তী খবর