Home /News /cooch-behar /
Cooch Behar News: দুর্গা পুজো প্রস্তুতি শুরু কোচবিহার কুমোরটুলিতে, রথের আগেই মাটি পড়েছে কাঠামোয়

Cooch Behar News: দুর্গা পুজো প্রস্তুতি শুরু কোচবিহার কুমোরটুলিতে, রথের আগেই মাটি পড়েছে কাঠামোয়

দুর্গা

দুর্গা পুজোর প্রস্তুতি শুরু কোচবিহার কুমোরটুলিতে

এবছরের আসন্ন দুর্গা পুজোর আর মাত্র ৯৪ দিন বাকি। আর ঠিক সে কারণেই রীতিমতো কর্মব্যস্ততা চোখে পড়ছে কোচবিহার কুমোরটুলিতে।

  • Share this:

    #কোচবিহার: এবছরের আসন্ন দুর্গা পুজোর আর মাত্র ৯৪ দিন বাকি। আর ঠিক সে কারণেই রীতিমতো কর্মব্যস্ততা চোখে পড়ছে কোচবিহার কুমোরটুলিতে। বিগত দুবছর ধরে করোনা অতিমারির কারণে দুর্গা পুজো ঠিক করে উঠতে পারেনি অনেকেই। আর সে কারণের জন্যই ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন এই মৃৎশিল্পীরা। তবে এবছর আর করোনা অতিমারীর আর সেরকম চাপ নেই। তাই এই বছর পূজো হবে জমজমাট। সেই আশাতেই দিন গুনছেন কোচবিহার কুমোরটুলির মৃৎশিল্পীরা।

    এই বিষয়ে সুজিত পাল নামে এক মৃৎ শিল্পী বলেন, "বিগত দু বছরে করোনার কারণে কোচবিহারে ভালো করে পূজা করা সম্ভব হয়নি। এবছর করোনার চাপ অনেকটাই কম থাকায়। সমস্ত পুজো কমিটি গুলো ইতিমধ্যেই নিজেদের পুজোর মিটিং শেষ করে ফেলেছে। এবং তারা মূর্তির জন্য অগ্রিম বায়নাও করতে শুরু করে দিয়েছি"।

    কোচবিহার কুমোরটুলি

    বিগত দু'বছরে সঠিক মুনাফার মুখ দেখতে পারেননি এই কুমোরটুলির মৃৎশিল্পীরা। তবে এ বছর তারা মুনাফার মুখ দেখবেন বলে আশাবাদী। মূর্তি গড়ার কাজ চলছে, জোর কদমে। তবে বিগত কিছুদিনের গোটা উত্তরবঙ্গ জুড়ে লাগাতার বৃষ্টির কারণে কিছুটা হলেও চিন্তার ভাঁজ দেখা গিয়েছে এই সমস্ত মৃৎশিল্পীদের কপালে। প্রবল বর্ষণের জেরে রীতিমতো অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাদের। মূর্তির মাটি শুকাতে চাইছে না, এছাড়াও মূর্তি রং করা অসুবিধা হয়ে যাচ্ছে তাদের জন্য।

    তারা জানিয়েছেন পূজোর এক মাস আগে পর্যন্ত ঠাকুরের মূর্তির বায়না করা সম্ভব। তবে তার পরেও করা যেতে পারে তবে সেটা একচালা কিংবা ছোট প্রতিমার হলে তবেই। কারণ, বড় ঠাকুর বানাতে প্রচুর সময় লাগে পূজোর এক মাসের আগে থেকে সেটা বানানো সম্ভব হয়না। এখানে বানানো সবচেয়ে দামী মূর্তির দাম প্রায় ১ লক্ষ টাকা। এবং সর্বনিম্ন মূর্তির দাম ২০ হাজার টাকা।

    আরও পড়ুন - হকির প্রশিক্ষণ কোচবিহারে, মান বাড়ছে খেলার

    বাদল পাল নামে এক মৃৎশিল্পী জানান, "দীর্ঘ দু'বছরের পরে বছর আমরা কিছুটা হলেও আশার আলো দেখতে পেয়েছিলাম। তবে জমে লাগাতার বৃষ্টি হয়েই যাচ্ছে কোচবিহার জেলায়। সেটা আমাদের চিন্তিত করে তুলেছে। আমাদের কাজের গতি অনেকটাই ধীরে করে দিয়েছে এই বৃষ্টি। যদি এভাবে একটানা বৃষ্টি চলতেই থাকে। তবে আমরা কতটা মূর্তি বানানোর কাজ সম্পন্ন করতে পারব। এবং স্থানীয় পুজো কমিটিগুলোকে তাদের চাহিদা মতন মূর্তি দিতে পারব সেটাই চিন্তার।

    তবে শুধু কোচবিহার নয় পাশাপাশি গোটা উত্তরবঙ্গের প্রায় সমস্ত জেলাতেই একই রকম অবস্থা চোখে পড়ছে। তবে যদি সঠিক সময় বৃষ্টি কমে আসে। তবে এ বছর দুর্গা পুজোহতে চলছে জমজমাট।

    সার্থক পন্ডিত

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Cooch behar, Durga Puja 2022

    পরবর্তী খবর