Football World Cup 2018

‘ইচ্ছে করে অসমে বাঙালি হঠানো শুরু হয়েছে’, বিস্ফোরক অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 03, 2018 06:57 PM IST
‘ইচ্ছে করে অসমে বাঙালি হঠানো শুরু হয়েছে’, বিস্ফোরক অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের
File Photo
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 03, 2018 06:57 PM IST

 #আমোদপুর: অসমে নাগরিকপঞ্জী তৈরি নিয়ে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, তালিকায় ইচ্ছে করে বাঙালিদের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। ভিটেমাটি থেকে বাঙালিদের উচ্ছেদ করতেই এই পরিকল্পনা বলে অভিযোগ তাঁর। নাগরিকপঞ্জীতে নাম না থাকলেও ভারতীয় নাগরিকদের চিন্তার কারণ নেই। আশ্বাস অসম প্রশাসনের।

ন্যাশনাল রেজিষ্ট্রার অফ সিটিজেন বা জাতীয় নাগরিকপঞ্জী। এনআরসিকে ব্যবহার করে অসমে বাঙালি হঠাও-র অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বীরভূমের সভায় এনিয়ে রীতিমতো বিস্ফোরক অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর।

তিনি বলেন, ‘অসমে বাঙালি হঠানো শুরু হয়েছে ৷ ইচ্ছে করে মানুষের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে ৷ অসমে গন্ডগোল হলে বাংলাতেও প্রভাব পড়বে ৷ অসমে কোনও বাঙালির বঞ্চনা মানব না ৷ আমাদের কারও সঙ্গে এরকম করবেন না ৷ আগুন নিয়ে খেলবেন না ৷ মানুষের গায়ে হাত পড়লে ছেড়ে দেব না ৷ কাজের চেয়ে রাজনীতিই বেশি হচ্ছে ৷’

নাগরিকপঞ্জী নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে অসমবাসীর। আশ্বস্ত করতে উদ্যোগী হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনেওয়াল। একই পরামর্শ দিচ্ছে অগপ কিংবা আসুর মতো সংগঠনও। আসু-এর মুখ্য পরামর্শদাতার সমুজ্বল ভট্টাচার্য জানান, প্রথম দফায় নাম না থাকলেও চিন্তার কোনো কারণ নেই। প্রথম দফায় পর আরও দুই দফায় তালিকা প্রকাশ হবে। তখন নিশ্চয় নাম থাকবে। ভারতীয় হলে তাঁর নাম বাদ পড়বে না। সেইভাবেই কাজ হবে বলে আমরা আশাবাদী ৷

তবে তালিকায় নাম না উঠলেও বাকি দুটি তালিকার জন্য অপেক্ষায় রাজি অসমবাসী।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের আগে যে কোনও প্রামাণ্য নথি দেখাতে পারলেই ভারতীয় হিসাবে প্রমাণ করা যাবে। এই নির্দেশিকা মেনেই কাজ চালাচ্ছে সমীক্ষক সংস্থা। প্রথম দফায় তালিকায় ১ কোটি ৯০ লক্ষ মানুষের পর আরও দুটি দফায় দেড় কোটি মানুষের নাম নথিভুক্ত হতে চলেছে।

First published: 06:57:13 PM Jan 03, 2018
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर