ঘন কুয়াশা বা প্রচণ্ড বৃষ্টিতেও এবার কলকাতা বিমানবন্দরে বিমান ওঠানামায় আর কোনও সমস্যা নেই

ঘন কুয়াশা বা প্রচন্ড বৃষ্টিতেও এবার কলকাতা বিমানবন্দরে নিরাপদেই নামতে পারবে বিমান।

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 30, 2017 03:45 PM IST
ঘন কুয়াশা বা প্রচণ্ড বৃষ্টিতেও এবার কলকাতা বিমানবন্দরে বিমান ওঠানামায় আর কোনও সমস্যা নেই
File Photo
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Nov 30, 2017 03:45 PM IST

#কলকাতা:  ঘন কুয়াশা বা প্রচন্ড বৃষ্টিতেও এবার কলকাতা বিমানবন্দরে নিরাপদেই নামতে পারবে বিমান। দৃশ্যমান্যতা ৫০ মিটারে নেমে গেলেও কোনও অসুবিধা হবে না। রানওয়ের দক্ষিণ প্রান্তে রাজারহাটের দিকে বসানো হল অত্যাধুনিক CAT III ILS যন্ত্র। যার ফলে কলকাতা বিমানবন্দরের দৃশ্যমানতা সংক্রান্ত সমস্যা অনেকটাই কমবে বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

শীতকালে কুয়াশা বা প্রবল বৃষ্টির সময় দমদম বিমানবন্দরের রানওয়েতে বিমান নামার সমস্যা দীর্ঘদিনের। এবার শীতের আগেই রানওয়েতে কুয়াশা সমস্যা মেটাতে উদ্যোগী বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

- কলকাতা বিমানবন্দরে ২টি রানওয়ে

- বিরাটি এবং রাজারহাট দুই দিক দিয়েই বিমান ওঠানামা করে

- প্রধান রানওয়ের দক্ষিণপ্রান্তে ILS ক্যাট ওয়ান যন্ত্র রয়েছে

Loading...

- এই যন্ত্রে বিমান নামার জন্য দৃশ্যমান্যতা ৫৫০ মিটার প্রয়োজন

- রানওয়ের উত্তর দিক অর্থা‍ৎ বিরাটির দিকে বিমান নামানোর জন্য দৃশ্যমানতা ৩৫০ মিটার প্রয়োজন

- এখানে ILS ক্যাট টু বসানো আছে

প্রচন্ড বৃষ্টি, কুয়াশা বা ধোঁয়াশার সময় কলকাতা বিমানবন্দরের দৃশ্যমান্যতা ১০০ মিটার বা কখনও তার কম হয়ে যায়। দক্ষ বিমানচালকরা এই অবস্থায় বিমান নামাতে পারলেও, বহু ক্ষেত্রে অনেক বিমানই অন্যত্র চলে যায়। এর ফলে,

- কলকাতা বিমানবন্দর পার্কিং ফি পায় না

- সঙ্গে যাত্রীদেরও সমস্যায় পড়তে হয়

এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় কলকাতা বিমানবন্দরে বিশ্বের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ILS ক্যাট থ্রি’বি বসান হল। ফলে দৃশ্যমান্যতা পঞ্চাশ মিটারে নেমে গেলেও বিমান নামার ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধা হবে না। এই প্রযুক্তির জন্য বিমানে বিশেষ যন্ত্র বসাতে হয়।

ইতিমধ্যেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে বিমান সংস্থাগুলিকে বলা হয়েছে

ডিসেম্বর থেকেই কলকাতা বিমাবন্দরে বিমান ওঠা-নামার সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। ফলে ILS ক্যাট থ্রি’বি চলে আসার ফলে বানিজ্যিক ভাবে কলকাতা বিমানবন্দর যেমন উপকৃত হবে, তেমনি সুবিধা হবে যাত্রীদেরও।

First published: 03:25:28 PM Nov 30, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर