১ এপ্রিল থেকে বাড়তে পারে হেল্থ ইনসিওরেন্সের প্রিমিয়াম, জেনে নিন কেন!

১ এপ্রিল থেকে বাড়তে পারে হেল্থ ইনসিওরেন্সের প্রিমিয়াম, জেনে নিন কেন!

এই প্রিমিয়াম বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবেও সবার আগে উঠে আসছে করোনাভাইরাসের কথাই!

এই প্রিমিয়াম বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবেও সবার আগে উঠে আসছে করোনাভাইরাসের কথাই!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: যত দূর আভাস পাওয়া যাচ্ছে সূত্রে, চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে হেল্থ ইনসিওরেন্স সংস্থাগুলো তাদের বিমার প্রিমিয়াম খুব কম করে হলেও ১০ শতাংশ বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এত দিন পর্যন্ত পুরনো প্রিমিয়াম বজায় থাকলেও সেই অনুযায়ী চলা আর সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছে সংস্থাগুলো।

এই প্রিমিয়াম বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবেও সবার আগে উঠে আসছে করোনাভাইরাসের কথাই! এই মারণ ভাইরাস আমাদের এমন পরিস্থিতির সামনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে, যার জন্য আমরা কেউ প্রস্তুত ছিলাম না। তার মধ্যে একটা দিক হল স্বাস্থ্যখাতে খরচ। এখনও পর্যন্ত এই দেশের অধিকাংশ মানুষ স্বাস্থ্যবিমায় বিনিয়োগের প্রয়োজন বোধ করেন না। কিন্তু তা যে আদতে দরকার, সেটা না থাকলে যে চিকিৎসার খরচ সর্বস্বান্ত করে দেওয়ার মতো হতে পারে, সেই ভয়াবহ সত্যটি করোনাকালে উপলব্ধি করতে পেরেছে দেশ। ফলে, স্বাস্থ্যবিমায় বিনিয়োগের হার বেড়ে গিয়েছে।

আর ঠিক এই জায়গা থেকে হেল্থ ইনসিওরেন্স হাউজগুলো সমস্যায় পড়েছে বলে জানা গিয়েছে। কেন না, এত দিন পর্যন্ত নানা অসুখের তালিকা সম্বলিত যে কভারেজ তারা দিয়ে আসছিল, তার মধ্যে করেনাভাইরাসের কোনও জায়গা ছিল ন। কিন্তু এখন সেই জায়গা তৈরি করতে হচ্ছে নতুন করে। পাশাপাশি, হালে অনেক স্বাস্থ্যবিমায় যোগ হয়েছে মানসিক সমস্যা, জিনগত অসুখ, স্নায়ুর অসুখের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো। এই সব মিলিয়ে প্রিমিয়ামের অঙ্কটা বাড়ছে বই কমছে না।

হেল্থ ইনসিওরেন্স হাউজগুলোর বক্তব্য যে করোনাকালীন পরিস্থিতি তাদের রীতিমতো লোকসানের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। যাঁদের স্বাস্থ্যবিমা আছে এবং করোনার চিকিৎসা করাতে হয়েছে, তেমন বহু ক্লেইম স্বাভাবিক ভাবেই জমা পড়েছে সংস্থাগুলোর কাছে। দুর্ভাগ্যজনক ভাবে সেই সব ক্লেইমের অনেকটাই এখনও মেটানো সম্ভব হয়নি। পরিসংখ্যান বলছে যে করোনার জন্য ক্লেইম হয়েছে ১৪ হাজার কোটি টাকা, এর মধ্যে কোনও ক্রমে ৯ হাজার কোটি টাকা সেটল করা সম্ভব হয়েছে।

পাশাপাশি, হেল্থ ইনসিওরেন্স হাউজগুলোর দাবি- ইনসিওরেন্স রেগুলেটরি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার (Insurance Regulatory and Development Authority of India) কিছু পরিবর্তিত নিয়মকানুনও তাদের সমস্যায় ফেলেছে। সব মিলিয়ে, আগামী অর্থবর্ষ থেকে স্বাস্থ্যবিমার প্রিমিয়াম বাড়ানো নিয়ে পরিকল্পনা চলছে বলে খবর।

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর