• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • Bank Account Hacking: ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে গেলে কী করবেন? জানুন বিস্তারিত!

Bank Account Hacking: ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে গেলে কী করবেন? জানুন বিস্তারিত!

সাইবার হামলা গ্রাহকের কী ক্ষতি করতে পারে এবং নিজের তথ্য সুরক্ষিত কী ভাবে রাখা যায়?

সাইবার হামলা গ্রাহকের কী ক্ষতি করতে পারে এবং নিজের তথ্য সুরক্ষিত কী ভাবে রাখা যায়?

সাইবার হামলা গ্রাহকের কী ক্ষতি করতে পারে এবং নিজের তথ্য সুরক্ষিত কী ভাবে রাখা যায়?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সম্প্রতি পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক (PNB) সম্পর্কিত একটি খবর প্রতিটি সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে ছিল। কী এই খবর? সাইবার নিরাপত্তা উপদেষ্টা কোম্পানি CyberX9 দাবি করেছে এই পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কের সার্ভারগুলিতে হামলা করা হয়েছে যার ফলে গত ৭ মাস ধরে ১৮ কোটি গ্রাহকের ব্যক্তিগত ও আর্থিক তথ্য উন্মুক্ত ছিল। CyberX9 জানিয়েছে, পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের নিরাপত্তায় গাফিলতির জন্য প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণ থেকে শুরু করে সম্পূর্ণ ডিজিটাল ব্যাঙ্কিং সিস্টেমে হামলা হয়। যদিও ব্যাঙ্ক দাবি করেছে, যে সার্ভারটিতে হামলা হয়েছে ঠিকই কিন্তু সেখানে কোনও সংবেদনশীল বা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ছিল না।

এরকম ঘটনা প্রায় ঘটতে থাকে যেখানে গ্রাহকের ডেটা ফাঁস হয়ে যায়। এজাতীয় সাইবার হামলা গ্রাহকের কী ক্ষতি করতে পারে এবং নিজের তথ্য সুরক্ষিত কী ভাবে রাখা যায়?

আরও পড়ুন: শীঘ্রই UAN এর সঙ্গে লিঙ্ক করিয়ে নিন Aadhaar, না হলে হতে পারে বড় লোকসান

গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে সম্পূর্ণ টাকা উধাও হয়ে যেতে পারে

কোনও একটি ব্যাঙ্কের সার্ভার হামলায় গ্রাহকের কী ক্ষতি হতে পারে তা ফাঁস হওয়া তথ্যের ওপর নির্ভর করে। যদি গ্রাহকের ব্যক্তিগত সমস্ত তথ্য ফাঁস হয়ে যায় তবে অ্যাকাউন্ট থেকে সমস্ত টাকা চুরি হয়ে যেতে পারে। নাম, ই-মেইল আইডি, ফোন নম্বর এবং যোগাযোগের অন্যান্য তথ্য ফাঁস হলে গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যাদের হাতে এই তথ্য থাকবে তারা ভুয়ো ব্যাঙ্ক কর্মী হিসেবে গ্রাহকের সঙ্গে যোগাযোগ করে নতুন পরিষেবা চালু বা বন্ধ করার আড়ালে অ্যাকাউন্ট থেকে সমস্ত টাকা তুলে নিতে পারে।

আরও পড়ুন: অ্যাকাউন্টে আসতে চলেছে ২০০০ টাকা, ঠিক করে নিন এই ভুলগুলো, না হলে আটকে যাবে টাকা

ব্যক্তিগত তথ্যকে কী ভাবে সুরক্ষিত করা যায়?

প্রযুক্তির অগ্রগতির যেমন খারাপ দিকও রয়েছে ঠিক তেমনই ভালো দিকও আছে। নিজের অ্যাকাউন্টের টাকা তোলা বা অনালাইন ট্রানজাকশনের জন্য ব্যাঙ্কের তরফে ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড (OTP) ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। প্রতিটি লেনদেন সম্পূর্ণ করার জন্য অ্যাকাউন্টে যুক্ত ফোন নম্বরে একটি OTP আসবে। এই OTP ছাড়া কোনভাবেই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তোলা সম্ভব নয়। কোনও ব্যাঙ্কের সার্ভারে হামলা হওয়ার পরও গ্রাহকের টাকা চুরি করতে OTP-এর প্রয়োজন হবে। এই কারণে OTP কারও সঙ্গে শেয়ার করা উচিত নয়।

আরও পড়ুন: পঞ্জিকা ২৪ নভেম্বর: দেখে নিন নক্ষত্রযোগ, শুভ মুহূর্ত, রাহুকাল এবং দিনের অন্য লগ্ন!

এছাড়া ATM কার্ড ব্যবহারকারীদের ব্যাঙ্কের তরফে একটি পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (PIN) দেওয়া হয়। অ্যাকাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে এই পিন নম্বরকে ১-২ মাস পর পর পরিবর্তন করা উচিত।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: