• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • Budget 2021: কোন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে নির্মলার জন্য, অন্নপূর্ণা হয়ে উঠতে পারবেন?

Budget 2021: কোন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে নির্মলার জন্য, অন্নপূর্ণা হয়ে উঠতে পারবেন?

আজ বড় পরীক্ষা নির্মলা সীতারামনের।

আজ বড় পরীক্ষা নির্মলা সীতারামনের।

কী ভাবে ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতিকে পথ দেখাবেন নির্মলা, সেদিকেই তাকিয়ে আছে গোটা দেশ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনা অতিমারীর কারণে ধস্ত দেশের অর্থনীতি আর্থিক বৈষম্য বেড়েছে বই কমেনি। নিম্ন-মধ্যবিত্ত, নিম্নবিত্তের হাতে টাকার টান।চাকরি গিয়েছে বহু মানুষের। এদিকে অতিমারী আম আদমির খরচ বাড়িয়েছে প্রতিদিন। এক কথায় বললে মানুষেক হাতে টাকা নেই।  এই আবহেই  আজ বাজেট পেশ করতে চলেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সীতারামন। নির্মলা দাবি করছেন, বাজেটে আমূল সংস্কার করা হবে কিন্তু দেশের রাজকোষেও টান। এই অবস্থায় করে কী ভাবে ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতিকে পথ দেখাবেন নির্মলা, সেদিকেই তাকিয়ে আছে গোটা দেশ।

    নির্মলার প্রথম চ্যালেঞ্জ স্বাস্থ্যখাতে ব্যয় বরাদ্দ বাড়ানো। করোনা মহামারীর চোখে আঙুল দিয়ে বুঝিয়ে দিয়েছে গণস্বাস্থ্যের অবস্থাটা ঠিক কেমন। সাধারণ মানুষের হাতে বিরাট কোনও মারণ ব্যধির চিকিৎসার বিপুল ব্যয়ভাপর বহন করার অর্থ নেই। এই অবস্থায় সরকার যদি চিকিৎসা খাতে ব্যয় বরাদ্দ না বাড়ায় তাহলে আগামী দিনে এই ধরনের বিপদ মোকাবিলা মুশকিল হবে।  মনে রাখতে হবে, বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে ৬৪ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছিল, তার অনেকটাই খরচ হয়েছে করোনা টিকাকরণে। এবছরও করোনা টিকাকরণের জন্য একটা আলাদা বরাদ্দ ভাবতে হবে।  উদ্বৃত্ত অংশটার মধ্যে একটি বড় অংশই রেখে দিতে হবে আবার বড় কোনও বিপদ এলে যাতে ধার না করেই মোকাবিলা করা যায় তার জন্য।

    গত এক বছরে সবচেয়ে বেশি মার খেয়েছে শিক্ষা। কোভিড অতিমারীর কারণে স্কুল-কলেজ বন্ধ ছিল। সাধারণ ছাত্রছাত্রী বিরাট বেকায়দায় পড়েছে এই ধস্ত সময়ে। শিক্ষা ক্ষেত্রে সত্যিই কোনো বৈপ্লবিক সংস্কার না করলে ছাত্র-ছাত্রীদের মূলস্রোতে ধরে রাখা মুশকিল বিশেষত শিক্ষাকে করতে হবে কর্মমুখী, ফলে হাত ধরে আসছে কর্মসংস্থান বাবদ লগ্নির প্রশ্ন।

    প্রতিদিন বাড়ছে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। মধ্যবিত্তের হাতের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। লিটার প্রতি পেট্রোলের মূল্য  যদি ৮৭ টাকা  হয় তাহলে শুধু কর বাবদই যাচ্ছে ৫২ টাকা। অর্থাৎ সরকারকে রাজকোষের গতি বজায় রাখতে এই টাকা নিতে হচ্ছে জনতার কাছ থেকে। এক কথায় বললে রাজকোষের হাঁড়ির হাল, ফলে সরকারের উপায় থাকছে না।

    করোনা পরিস্থিতিতে সবথেকে বেশি মার খেয়েছেন মাঝারি ও ছোট শিল্পের সঙ্গে জড়িত মানুষজন। ছোট পুঁজির ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে অসংগঠিত শ্রমিকরা কাজ হারিয়ে অত্যন্তরে পড়েছেন। তাঁদের কাজের স্রোতে ফেরাতে প্রয়োজন বিশেষ তৎপরতা। এই বিষয়টিও নিশ্চয়ই মাথার রাখবেন নির্মলা।

    এছাড়াও স্বর্ণশিল্পে অক্সিজেন জোগাতে হবে। ট্যাক্স ব্যবস্থাকে নাগালের বাইরে নিয়ে গেলে কূপিত হবেন সাধারণ মানুষ।  রয়েছে আয় বৈষম্য কমানোর চ্যালেঞ্জও। কর্মসংস্থানের একটি দিশা দেখাতেই হবে।

    কাজেই নির্মলা এই সমস্যা সমাধানে নেমে নির্মলা কি সত্যিই অন্নপূর্ণা হয়ে উঠতে পারবেন, সেই প্রশ্নটা থাকছে। প্রশ্ন থাকছে, সরকারকে নতুন করে ঋণ করতে হয় কিনা তাই নিয়েও

    Published by:Arka Deb
    First published: