Home /News /business /
Good Savings Tricks and Tips: বেশি ঝুঁকি মানেই মোটা অঙ্কের মুনাফা? দেখে নিন এই তত্ত্বের যৌক্তিকতা নিয়ে কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা!

Good Savings Tricks and Tips: বেশি ঝুঁকি মানেই মোটা অঙ্কের মুনাফা? দেখে নিন এই তত্ত্বের যৌক্তিকতা নিয়ে কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা!

প্রতীকী ছবি ৷

প্রতীকী ছবি ৷

Good Savings Tricks and Tips: আদৌ কি এই তত্ত্বের কোনও যৌক্তিকতা আছে?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: বেশি ঝুঁকি মানেই বেশি মুনাফা। বিনিয়োগের সবচেয়ে জনপ্রিয় তত্ত্বগুলির মধ্যে এটা একটা। অর্থনীতির ক্লাসে কিংবা বিজনেস স্কুলগুলিতে এটা ব্যাপক ভাবে পড়ানো হয়। কিন্তু আদৌ কি এই তত্ত্বের কোনও যৌক্তিকতা আছে?

এর থিওরিটা হল, ঝুঁকি ও আয়ের মাঝে ধনাত্মক সম্পর্ক বিদ্যমান। যে প্রকল্পের ঝুঁকি বেশি, সেই প্রকল্পের আয়ও বেশি হয়। আবার ঝুঁকি কম হলে আয়ও কম হয়। তাই ঝুঁকি ও আয়ের মধ্যে একটা সমমুখী সম্পর্ক রয়েছে।

আরও পড়ুন:  Business News: নিরাপদ ভবিষ্যতের জন্য রইল ১০ সেভিংস কাম ইনভেস্টমেন্ট প্ল্যানের হদিশ!

সোনা, ঋণ বা ইক্যুইটির মতো বিভিন্ন সম্পদ শ্রেণী এই তত্ত্ব অনুসরণ করে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় যে, ঋণের চেয়ে ইক্যুইটিতে ঝুঁকি অনেক বেশি। বাস্তবে ঋণ-সম্পর্কিত সিকিওরিটিগুলির তুলনায় ইক্যুইটিতে দীর্ঘমেয়াদি রিটার্নের হার বেশি পাওয়া যায়।

অথচ অস্থিরতা বা ঝুঁকির ক্ষেত্রে স্টকে এই আচরণ দেখা যায় না। অধিকাংশ গবেষণায় প্রমাণিত, যে সব স্টকে ওঠানামা বেশি, তার তুলনায় কম ঝুঁকিপূর্ণ স্টকগুলি বেশি রিটার্ন দিয়েছে। তাহলে এ ক্ষেত্রে বেশি ঝুঁকি মানেই বেশি রিটার্ন, সেই তত্ত্ব খাটল না। এটা সম্ভবত আধুনিক অর্থনীতিতে সবচেয়ে বড় অসঙ্গতিগুলির মধ্যে একটা।

স্টক মার্কেট উৎসাহীরা বেশি লাভের আশায় যে সব শেয়ারের ওঠানামা বেশি, তাতে বিনিয়োগ করতে চান। এটাই বাজারের স্বাভাবিক প্রবণতা। কিন্তু বেশির ভাগ সময়ে বাস্তবে তা মেলে না। দীর্ঘমেয়াদি রিটার্নের ক্ষেত্রেও একই কথা খাটে।

আরও পড়ুন: Petrol Diesel Price Hike: জোড়া চাপে মধ্যবিত্তের বিরাট ধাক্কা! ১৪ দিনে ১২'বার পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধি, সপ্তাহে তৃতীয়বার CNG মহার্ঘ

ভারত এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো উন্নত বাজারে দেখা গিয়েছে, যে সব স্টকে ওঠানামা কম, তাতে বিনিয়োগ করলে বিনিয়োগকারীর পোর্টফোলিওতে ঝুঁকি কমে। শুধু তা-ই নয়, বিনিয়োগকারীর আয় বাড়াতেও সাহায্য করে।

এটা কীভাবে সম্ভব? একটা উদাহরণ দিলে ব্যাপারটা জলের মতো পরিষ্কার হয়ে যাবে। যখন কোনও ফান্ডের মূল্য ১০ শতাংশ পড়ে যায়, তখন সেই ক্ষতি পুনরুদ্ধার করতে ১১ শতাংশ লাভ প্রয়োজন। কিন্তু যখন কোনও ফান্ড ৫০ শতাংশ পড়ে যায়, তখন তার আসল মূল্য ফেরত পাওয়ার জন্য ১০০ লাভ দরকার হয়।

আরও পড়ুন: 7th Pay Commission: Modi সরকারের কর্মীদের জন্য অত্যন্ত বিরাট খবর, DA-এর পরে বাড়ছে HRA! ২০,৪৮৪ টাকার বিরাট সুবিধা

তাই বিনিয়োগকারীরা পোর্টফোলিওতে ঝুঁকিপূর্ণ এবং কম ঝুঁকিপূর্ণ, দু’ধরনের শেয়ার রাখারই পরামর্শ দেন। যাতে উচ্চ রিটার্ন মেলে। আবার ক্ষতি হলে অন্য বিনিয়োগ থেকে তা পুষিয়ে নেওয়াও যায়। সামগ্রিক ভাবে সাজানো পোর্টফোলিওর কিন্তু ঝুঁকিকে দূরে সরিয়ে দেয় না। বরং ঝুঁকির পরিমাণকে হ্রাস করে। আরও সহজ করে বললে বাজারের ঝুঁকির বিশ্লেষণ করে, সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারীর বিনিয়োগকৃত অর্থকে সমান ভাবে ভাগ করে তাঁর রিটার্নকে সামঞ্জস্য পর্যায়ে আনা হয়।

First published:

Tags: Business

পরবর্তী খবর