Home /News /business /
Budget 2022: আসন্ন বাজেটে ক্রিপ্টো বিনিয়োগকারীদের জন্য ঝটকা! জানুন কেন!

Budget 2022: আসন্ন বাজেটে ক্রিপ্টো বিনিয়োগকারীদের জন্য ঝটকা! জানুন কেন!

Union Budget 2022, ইউনিয়ন বাজেট: প্রতীকী ছবি

Union Budget 2022, ইউনিয়ন বাজেট: প্রতীকী ছবি

Budget 2022: একটি নির্দিষ্ট সীমার অধিক ক্রিপ্টোকারেন্সির ক্রয় এবং বিক্রয়ের ক্ষেত্রে TDS/TCS ধার্য করা হতে পারে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আগামী ১ ফেব্রুয়ারি তারিখে সংসদে ২০২২-২৩ বর্ষের আয় ব্যয়ের কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)। নাঙ্গিয়া অ্যান্ডারসেন এলএলপি সংস্থার ট্যাক্স লিডার অরবিন্দ শ্রীবৎসন এই আসন্ন বাজেট নিয়ে অনুমান করে বলেছেন, একটি নির্দিষ্ট সীমার অধিক ক্রিপ্টোকারেন্সির ক্রয় এবং বিক্রয়ের ক্ষেত্রে TDS/TCS ধার্য করা হতে পারে। এই সমস্ত ভার্চুয়াল লেনদেনের হিসেব এবং রিপোর্ট রাখার জন্য এগুলিকে একটি নতুন সিস্টেমের মধ্যে রাখা উচিত। তিনি আরও বলেন, লটারি বা গেম শো থেকে আয়ের ক্ষেত্রে যেভাবে ৩০% হারে কর ধার্য করা হয়, ক্রিপ্টোকারেন্সির আয়ের ক্ষেত্রে ঠিক একই দরে ট্যাক্স বসানো উচিত। আসন্ন এই বাজেটে ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য কী কী সংযোজন থাকা উচিত এই বিষয়ে সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে শ্রীবৎসন বলেন, বর্তমানে ভারতে ক্রিপ্টো বিনিয়োগকারীর সংখ্যা ১০.৭ কোটি যা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০৩০ সালের মধ্যে ক্রিপ্টো মার্কেটে ভারতীয়দের বিনিয়োগ ২৪১ মিলিয়ন ডলার পর্যন্ত পৌঁছতে পারে।

তার বক্তব্য, “শীতকালীন সংসদীয় অধিবেশন চলাকালীন ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি বিল আনা হবে বলে অনুমান করা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। তবে আসন্ন এই বাজেটে ক্রিপ্টো মার্কেট নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। যদি সরকার ভারতীয়দের ক্রিপ্টোতে বিনিয়োগে কোনও নিষেধাজ্ঞা জারি না করে তবে এই ভার্চুয়াল মুদ্রার জন্য নতুন ইনকাম ট্যাক্স ব্যবস্থা শুরু করা হবে।”

আরও পড়ুন - সবুজ নয়, কৃষির জন্য প্রয়োজন চিরসবুজ বিপ্লব, আসন্ন বাজেটে চোখ কোন দিকে

শ্রীবৎসন বলেছেন, ক্রিপ্টো বাজারের পরিসর, বিনিয়োগের পরিমাণ এবং ক্রিপ্টোর সঙ্গে যুক্ত ঝুঁকির উপর নির্ভর করে ক্রিপ্টোকারেন্সির ট্যাক্সে কিছু পরিবর্তন আনা হতে পারে। একটি নির্ধারিত সীমার ওপর লেনদেনে টিডিএস এবং টিসিএস-এর নিয়ম চালু করা হতে পারে। এর ফলে আয় বৃদ্ধির পাশাপাশি ক্রিপ্টোর ফুটপ্রিন্ট সরকারের কাছে থাকবে।

ক্রিপ্টো রেগুলেশন নিয়ে তিনি আরও বলেন, ক্রিপ্টোকারেন্সির বিক্রয় এবং ক্রয়, উভয়কেই আর্থিক লেনদেন বিবৃতি (SFT) রিপোর্টিং-এর অধীনে আনা উচিত। বিভিন্ন ট্রেডিং কোম্পানি শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের ক্রয় ব্যয়ের বিস্তারিত বিবরণ সরকারকে প্রদান করে। ঠিক একইভাবে ক্রিপ্টোর ক্ষেত্রেও এই নিয়ম চালু করা দরকার।

আরও পড়ুন - প্রথম বাজেট কবে পেশ করা হয়েছিল এবং ঠিক ১১টায় কেন শুরু হয় অধিবেশন? জানুন বাজেটের অজানা ইতিহাস!

আপাতত ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে দেশে কোনও বিশেষ আইন চালু করা হয়নি। তবে এই ভার্চুয়াল কারেন্সির মার্কেট বৃদ্ধির গতি দেখে অনুমান করা হচ্ছে আগামী বাজেটে ‘ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যান্ড রেগুলেশন অফ অফিসিয়াল ডিজিটাল কারেন্সি বিল’ আনা হবে।

First published:

Tags: Cryptocurrency, Union Budget 2022

পরবর্তী খবর