corona virus btn
corona virus btn
Loading

থার্ড পার্টি মোবাইল অ্যাপে ক্রেডিট কার্ডের বিল মেটাচ্ছেন? সাবধান! পড়তে পারেন এই বিপদে

থার্ড পার্টি মোবাইল অ্যাপে ক্রেডিট কার্ডের বিল মেটাচ্ছেন? সাবধান! পড়তে পারেন এই বিপদে

বার বার নানা রিওয়ার্ড পয়েন্ট, ক্যাশব্যাক অফার দেখে তাতে গা ভাসিয়ে দিই। আপনার কী মনে হয়, আপনার ক্রেডিট কার্ডের সমস্ত তথ্য স্টোর করে রাখা এই অ্যাপগুলি খুব বিশ্বাসযোগ্য?

  • Share this:

আজকাল প্রায়শই আমরা নানা অ্যাপের সাহায্যে ক্রেডিট কার্ডের বিল পেমেন্ট করি। বার বার নানা রিওয়ার্ড পয়েন্ট, ক্যাশব্যাক অফার দেখে তাতে গা ভাসিয়ে দিই। আপনার কী মনে হয়, আপনার ক্রেডিট কার্ডের সমস্ত তথ্য স্টোর করে রাখা এই অ্যাপগুলি খুব বিশ্বাসযোগ্য? এগুলির সঙ্গে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টও সংযুক্ত রয়েছে। আপনার কি মনে হয় যে আপনি নিরাপদে রয়েছেন? মোটেই নয়! তাই সাবধান হন। অজান্তেই আপনার তথ্যগুলি চলে যেতে পারে অন্য কারও হাতে।

ক্রেডিট কার্ড পেমেন্ট অ্যাপে কী ধরনের অফার থাকে?

ক্রেড। এই অ্যাপটি আপনার ক্রেডিট কার্ডের সমস্ত তথ্য সেভ করে রাখে। তাই এই অ্যাপে আপনি ইউপিআই, নেট ব্যাঙ্কিং বা অটো ফিচারের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারেন। তবে এই ক্রেড কমিউনিটিতে থাকার জন্য একজন গ্রাহকের প্রায় ৭৫০-র বেশি ক্রেডিট স্কোর থাকতে হবে। এরপর আপনি যখন পেমেন্ট করেন, তখন ক্রেড কয়েন দেওয়া হয় রিওয়ার্ড হিসেবে। এই কয়েন থেকে আপনি অনেক ধরনের শপিংয়ে ডিসকাউন্ট পেতে পারেন বা আরও নানা অফার থাকে। এ ক্ষেত্রে ১০০০ ক্রেড কয়েন থাকলে একটা ন্যূনতম পরিমাণ টাকা ক্যাশব্যাক হিসেবেও আপনার ক্রেডিট কার্ডে যুক্ত হয়।

অন্যদিকে ২,৫০০ টাকা বা তার বেশি টাকার ক্রেডিট কার্ড বিল পেমেন্ট করার জন্য পেটিএম অ্যাপের তরফে ১০০০ পেটিএম পয়েন্ট দেওয়া হয়। তবে এই অ্যাপে আপনি চাইলে ক্রেডিট কার্ড সেভ করে রাখতে পারেন। তার পর পেমেন্ট করতে পারেন।

তবে, ফোন পে-তে আপনাকে কার্ড সেভ করতে হয় না। এ ক্ষেত্রে আপনাকে প্রোভাইডার নেটওয়ার্ক নির্বাচন করতে হয়। তার পর ব্যাঙ্ক বেছে নিয়ে কার্ডের সমস্ত তথ্য দিয়ে ইউপিআই-র মাধ্যমে পেমেন্ট করা যায়। এই অ্যাপ আপনার ব্যবহারের উপর ভিত্তি করেই নানা রিওয়ার্ডস ও ক্যাশব্যাক দেয়।

কী ভাবে তথ্যের হস্তান্তর হতে পারে?

অধিকাংশ অ্যাপে যেহেতু ক্রেডিট কার্ডের সব তথ্য দেওয়া থাকে, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টগুলি লিঙ্ক করা থাকে, তাই আপনার তথ্য চুরি হওয়ার সম্ভাবনাও প্রবল। অনেক সময়ে দেখা যায়, কিছু অ্যাপ মেল বা মেসেজে অ্যাকসেস চায়। এ ক্ষেত্রে কিন্তু গ্রাহকের খরচ, ক্রেডিট কার্ডের স্টেটমেন্টসহ একাধিক বিষয়ের উপর নজর রাখতে শুরু করে এই অ্যাপগুলি। এ বিষয়ে রুপি টিপের ফাউন্ডার আদর্শ থাম্পি জানাচ্ছেন, এই সমস্ত অ্যাপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে ডেটা হ্যাক হওয়ার প্রবল সম্ভবনা রয়েছে। কারণ ইমেল বা মেসেজের সূত্র ধরে হ্যাকার খুব সহজে তথ্য চুরি করতে পারে। অ্যাকাউন্টসংক্রান্ত নানা বিষয়, এমনকি মেলের মাধ্যমে পাসওয়ার্ড রিসেট বা ফোন নম্বর চেঞ্জের আবেদন জানিয়ে অ্যাকাউন্টের যাবতীয় তথ্য হাতিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

যেমন ক্রেড কিন্তু আপনার খরচের ধরন খতিয়ে দেখে। তা ছাড়া ক্রেডিট কার্ডে কোনও সমস্যা হলে অ্যালার্ট এসএমএস পাঠায়। ক্রেডিট কার্ডে কখনও কোনও অপ্রত্যাশিত বিল এলে সেই সম্পর্কে জানান দেয়। মনে রাখবেন, এই অ্যাপটি আপনার লিঙ্ক করা ব্যাাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ই-মেল আইডি থেকেই এই তথ্যগুলি পায়। এবং এর জন্য আপনি নিজেই দায়ী। কারণ রেজিস্টার করার সময়ে সংশ্লিষ্ট অ্যাপকে সমস্ত তথ্য দিয়েছেন আপনিই।

কী করণীয়

যদি আপনি ক্রেডিট কার্ডের বিল দেওয়ার জন্য পেমেন্ট অ্যাপ ব্যবহার করতে চান, সমস্ত বিষয় জানার পর সাইন আপ করতে যান, তা হলে মাথায় রাখবেন আপনি থার্ড পার্টির হাতে আপনার যাবতীয় টাকা লেনদেনের তথ্য তুলে দিলেন। তাই এই সমস্ত নতুন অ্যাপ যদি আপনার কাছে বিশ্বাসোগ্য না হয়, তা হলে পুরনা পদ্ধতিতেই ফিরে যান। নেট ব্যাঙ্কিং, এনইএফটি, অটো পে কিংবা সেভিং অ্যাকাউন্ট থেকে অটো পে-র বিকল্প বেছে নিন।

Published by: Elina Datta
First published: September 29, 2020, 6:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर