corona virus btn
corona virus btn
Loading

RIL Rights Issue| সাবস্ক্রিপশনে সব রেকর্ডকে ছাপিয়ে গেল রিলায়েন্সের রাইটস ইস্যু !

RIL Rights Issue| সাবস্ক্রিপশনে সব রেকর্ডকে ছাপিয়ে গেল রিলায়েন্সের রাইটস ইস্যু !

রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৫৩,১২৪ কোটি টাকার রাইটস ইস্যু ৷ সাবস্ক্রিপশনের নিরিখে যা সব হিসেবকেই ছাপিয়ে গিয়েছে ৷

  • Share this:

#মুম্বই: রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ৫৩,১২৪ কোটি টাকার রাইটস ইস্যু ৷ সাবস্ক্রিপশনের নিরিখে যা সব হিসেবকেই ছাপিয়ে গিয়েছে ৷ মঙ্গলবার ৮.৮ কোটির বিডে সাবস্ক্রিপশন পৌঁছে গিয়েছে ১২৯.৮ শতাংশে ৷ স্টক এক্সচেঞ্জের ডেটাতে দেখা যাচ্ছে সবমিলিয়ে ৫৪.৯ কোটির বিড এসেছে ৷ ৪২.২৬ কোটির শেয়ারকে ছাপিয়ে গিয়েছে ৷ BSE ৪৮.৫ কোটির রাইটস শেয়ার, NSE ৫.৬৪ কোটি এবং non-ASBA-র বিডের পরিমাণ ০.৭০ কোটি রাইটস শেয়ার ৷ Dealogic-এর মতে, এই রাইটস ইস্যু গত ১০ বছরে কোনও আর্থিক সংস্থা নয়, এমন সংস্থার জন্য সর্বাধিক ৷ যা অবশ্যই রেকর্ড ৷

রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর ৫৩ হাজার ১২৪ কোটি টাকার মেগা রাইটস ইস্যু গত ১০ বছরে বিশ্বের কোনও নন-ফাইনান্সিয়াল সংস্থার ইস্যু করা সবচেয়ে বেশি অর্থের রাইটস ইস্যু৷

সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে বাজার বিশ্লেষক সংস্থা Dealogic-এর ডেটা বলছে, এত বড় অঙ্কের রাইটস ইস্যু গত ১০ বছরে কোনও নন-ফাইনান্সিয়াল সংস্থা করেনি৷ শেয়ারহোল্ডারদের সাবস্ক্রিপশনের জন্য গত ২০মে রাইটস ইস্যু খুলেছে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ৷ বন্ধ হবে বুধবার৷

২০০৮-এর আর্থিক মন্দার পর থেকে সবচেয়ে বেশি অঙ্কের রাইটস ইস্যু ছিল HSBC-র৷ ২০০৯ সালের এপ্রিলের ১৯.৫৭ বিলিয়ন ডলারের রাইটস ইস্যু করেছিল HSBC ৷ ডয়েশ ব্যাঙ্ক ২০১০ সালের অক্টোবরে ১৩.৯৬ বিলিয়ন ডলারের রাইটস ইস্যু করেছিল৷ ওটাই ছিল দ্বিতীয় বৃহত্তম৷

এশিয়ায় ২০১০ সালে ব্যাঙ্ক অফ চায়না-র রাইটস ইস্যুর পরিমাণ ছিল ৮.৯৬ বিলিয়ন ডলারের৷ এশিয়া মহাদেশের বৃহত্তম৷ গত ৩ দশকে এই প্রথম রাইটস ইস্যু করল রিলায়েন্স৷

এর আগে ১৯৯১ সালে জনসাধারণের কাছে থেকে তহবিল সংগ্রহের জন্য কনভার্টেবল ডিবেঞ্চার ইস্যু করেছিল৷ গত বছরই রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি জানিয়েছিলেন, ২০২১ সালের মধ্যে সব ঋণ শোধ করবেন৷ সেই মতো স্ট্র্যাটেজিও তৈরি করা হয়৷

মার্চে শেষ হওয়া ত্রৈমাসিকে রিলায়েন্সের মোট ঋণের পরিমাণ ছিল ৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ২৯৪ কোটি টাকা৷ হাতে নগদের পরিমাণ ছিল ১ লক্ষ ৭৫ হাজার ২৫৯ কোটি টাকা৷ তার ফলে নিট ঋণের পরিমাণ দাঁড়ায় ১ লক্ষ ৬১ হাজার ৩৫ কোটি টাকা৷

ইতিমধ্যেই রিলায়েন্স তার ডিজিটাল ইউনিট জিও প্ল্যাটফর্মের কিছু অংশ ফেসবুক ও বেসরকারি ইক্যুইটি ফান্ডকে বিক্রি করেছে৷ এছাড়াও সোদি আরবের সংস্থার অ্যারেমকো-র সঙ্গেও কথা চলছে ১৫০০ কোটি মার্কিন ডলারে পঞ্চম অয়েল-টু-কেমিক্যাল ব্যবসা বিক্রির বিষয়ে৷

সোমবার রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর মেগা রাইটস ইস্যু ১.১ গুণ ওভারসাবস্ক্রাইবড হয়েছ৷ ৫৩ হাজার ১২৪ কোটি টাকার রাইটস ইস্যুতে অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছে মুকেশ আম্বানির সংস্থা৷ সোমবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত শেয়ার বাজারের ইস্যু সাবস্ক্রিপশন ডেটা বলছে, রিলায়েন্স রাইটস শেয়ারের জন্য মোট দর উঠেছে ৪৬.০৪ কোটি টাকা৷ এই ভাবে ওভার সাবস্ক্রিপশন স্পষ্ট ইঙ্গিত দিচ্ছে, শেয়ারহোল্ডাররা তাঁদের নির্দিষ্ট শেয়ার সংখ্যার চেয়ে বেশি শেয়ারের জন্য আবেদন করছেন৷ অর্থাত্‍ এই মন্দার বাজারেও রিলায়েন্সের উপর তাঁদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে৷

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 2, 2020, 11:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर