• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • RBI over Unauthorised Loan App: ডিজিটাল লোন প্রদানকারী অবৈধ অ্যাপের বাড় বাড়ন্ত রুখতে কড়া আইনের পথে আরবিআই

RBI over Unauthorised Loan App: ডিজিটাল লোন প্রদানকারী অবৈধ অ্যাপের বাড় বাড়ন্ত রুখতে কড়া আইনের পথে আরবিআই

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ৷ ফাইল ছবি ৷

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ৷ ফাইল ছবি ৷

Reserve Bank's Plan of Action|RBI|RBI's legal action|Loan Provider Illegal app: ভুয়ো ও প্রতারণাকারী ডিজিটাল সংস্থার বিরুদ্ধে পদক্ষেপের পথে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: বর্তমানে ডিজিটাল লোন দেওয়ার জন্য লঞ্চ করা হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের মোবাইল অ্যাপ। ডিজিটাল লেনদেন বেড়ে যাওয়ার জেরে এই সকল অ্যাপ নিজেদের মতো করে দিয়ে চলেছে বিভিন্ন ধরনের লোন। কিন্তু এই সব মোবাইল অ্যাপের আর্থিক কারবার পুরোপুরি ভাবে অবৈধ। অর্থাৎ এই ধরনের লোন দেওয়ার মতো ফিনান্সিয়াল কাজকর্ম চালানোর কোনও আইনি অধিকার তাদের নেই। দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্ক, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এদের আইনের অধীনে নিয়ে আসার জন্য কাজ করে চলেছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার একটি ব্যাঙ্কিং গ্রুপ এই ধরনের লোন দেওয়া মোবাইল অ্যাপের বিরুদ্ধে কড়া আইন আনার প্রস্তাব দিয়েছে। তাদের সেই প্রস্তাবে বলা হয়েছে যে, এই ইন্ডাস্ট্রির সকল স্টকহোল্ডারদের নিয়ে একটি নোডাল এজেন্সি তৈরি করা হোক। সেই নোডাল এজেন্সি এদের ভেরিফিকেশন করবে। এর সঙ্গেই একটি সেলফ রেগুলেটরি অর্গানাইজেশন তৈরি করারও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া জানুয়ারি মাসেই তাদের কার্যকরী নির্দেশক জয়ন্ত কুমার দাসের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করে। এই কমিটির কাজ হল, অনলাইন প্ল্যাটফর্ম এবং মোবাইল অ্যাপের উপর নজরদারি চালানো। জোর করে ঋণের টাকা আদায় করার ঘটনা বেড়ে যাওয়ার ফলে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার তরফে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। এই কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী, ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভারতের অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য লোন দেওয়ার জন্য প্রায় ১১০০ টি অ্যাপ উপলব্ধ ছিল। এর মধ্যে ৬০০টিই অবৈধ। সেই কমিটি ডিজিটাল লোনের সঙ্গে জড়িত অবৈধ গতিবিধি আটকানোর জন্য নতুন একটি আইন বানানোর পরামর্শ দিয়েছে। এর সঙ্গে তারা জানিয়েছে, যে কোনও প্রকারের লোনের টাকা সরাসরি গ্রাহকের ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে জমা করা হোক। এ ক্ষেত্রে কোনও মোবাইল অ্যাপের ওয়ালেটে সেই টাকা জমা রাখা যাবে না। সেই সঙ্গে গ্রাহকের ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট থেকেই সরাসরি ইএমআই-এর টাকা কাটা হোক।

এই ধরনের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের লোনের অফার দেওয়া হচ্ছে। এক বার কেউ সেই অফার গ্রহণ করলে, তার পর তাঁর থেকে বেশি হারে সুদ নেওয়া হচ্ছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার নিয়ম অমান্য করেই চলছে এই সকল লেনদেন। এই সব মোবাইল অ্যাপ নিয়ে জমা পড়েছে বিভিন্ন ধরনের অভিযোগও। এর জন্য এই ধরনের লোন দেয়, এমন সব অবৈধ মোবাইল অ্যাপ বন্ধ করার জন্য রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার তরফে নিয়ে আসা হতে পারে কড়া আইন।

Published by:Arjun Neogi
First published: