Home /News /business /
Personal Finance: আর্থিক বিনিয়োগ করার আগে যে ৫ বিষয় স্পষ্ট না হলে করবেন না, জেনে নিন

Personal Finance: আর্থিক বিনিয়োগ করার আগে যে ৫ বিষয় স্পষ্ট না হলে করবেন না, জেনে নিন

Personal Finance

Personal Finance

বিনিয়োগ সম্পর্কে আরও ভালোভাবে বোঝার জন্য, দেখে নেওয়া যাক গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি প্রশ্ন। যা জিজ্ঞাসা করতে কখনও ভয় পাওয়া উচিত নয়। (Personal Finance)

  • Share this:

বর্তমানে সকলেই চান এমন জায়গায় বিনিয়োগ করতে যেখানে ভালো রিটার্ন পাওয়া যাবে। কিন্তু, বিনিয়োগ শুরু করার আগে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রাখা প্রয়োজন। কেউ যদি বিনিয়োগ শুরু করতে চান তাহলে বিনিয়োগ শুরু করার আগে অবশ্যই পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর জেনে নিতে হবে। কারণ এর মাধ্যমে অনেক উপকার হতে পারে। অনেক লোক মনে করেন যে একটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট তাঁদের আর্থিক লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য যথেষ্ট। কিন্তু এই ধারণা সংশোধনের প্রয়োজন রয়েছে।

২০১৮ সালের সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ১১টি দেশের ৭২% জনতা তাদের শীর্ষ ৩টি আর্থিক লক্ষ্য পূরণের জন্য সহজ সেভিংস অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে৷ প্রথমবার বিনিয়োগ করার জন্য এটি ঝুঁকিপূর্ণ। সঠিক তথ্য ছাড়াই কষ্টার্জিত অর্থ বিনিয়োগ করা একটি ভীতিজনক, ঝুঁকিপূর্ণ এবং জটিল প্রক্রিয়া। বিনিয়োগ সম্পর্কে আরও ভালোভাবে বোঝার জন্য, দেখে নেওয়া যাক গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি প্রশ্ন। যা জিজ্ঞাসা করতে কখনও ভয় পাওয়া উচিত নয়।

আরও পড়ুন: মেয়ের চাকরির পর এবার নিজে মন্ত্রিত্ব খোয়ালেন পরেশ অধিকারী, নতুন দায়িত্বে সত্যজিৎ বর্মণ

বিনিয়োগ শুরু করতে কত টাকা লাগবে? যতটা মনে হচ্ছে, ততটা নয়। বিনিয়োগ শুরু করার জন্য জরুরি তহবিল ঘাঁটতে হবে না অথবা পারিবারিক সম্পত্তি বিক্রি করতে হবে না। যদি মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ করা হয়, তাহলে ৫০০ টাকা দিয়েও তা শুরু করা যায়। এই ক্ষেত্রে কোন ফান্ডে বিনিয়োগ করা হচ্ছে এটি দেখে নিতে হবে এবং সেই অনুযায়ী বিনিয়োগ করতে হবে।

আরও পড়ুন: এ অর্পিতা সে অর্পিতা নয়, ক্যাশ কুইনের কান্না দেখে কষ্ট পাচ্ছেন ছেলেবেলার বন্ধু! অজানা তথ্যে চাঞ্চল্য

ঝুঁকি নিতে প্রস্তুত? বিনিয়োগের ভাষায় ঝুঁকি সহনশীলতা হল বিনিয়োগকারী কতটা ঝুঁকি নিতে ইচ্ছুক। বা, তিনি কত টাকা হারাতে প্রস্তুত! নিজের ঝুঁকি সহনশীলতা বোঝা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেউ যদি একজন রক্ষণশীল বিনিয়োগকারী হন, যিনি খুব বেশি ঝুঁকি নেন না, তাহলে তিনি আতঙ্কিত হতে পারেন এবং ভুল সময়ে তাঁর শেয়ার বিক্রি করতে পারেন। নিজের ঝুঁকি সহনশীলতা খুঁজে বের করতে, আর্থিক লক্ষ্য, সময়সীমা এবং চিন্তা-ভাবনা বিবেচনা করতে হবে। এক্ষেত্রে অর্থ কোথায় বিনিয়োগ করা যায়, তা নির্ধারণ করতে বিশেষজ্ঞরাও সাহায্য করতে পারেন।

বিনিয়োগ শুরু করা উচিত? বাজারে বিনিয়োগের বিস্তৃত পণ্য পাওয়া যায় এবং বিনিয়োগ পণ্যের আদর্শ মিশ্রণ ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে পরিবর্তিত হবে। ঝুঁকি সহনশীলতা এবং আর্থিক উদ্দেশ্যগুলির উপর তা নির্ভর করে। নিজের ক্ষেত্রে কোনটি সঠিক তা জানার জন্য, ইউনিট ট্রাস্ট বা মিউচুয়াল ফান্ড, ইক্যুইটি, এনডোমেন্ট প্ল্যান ইত্যাদির মতো মৌলিক পণ্যগুলি বুঝে নিতে হবে।

বিনিয়োগে বৈচিত্র্য কী? একটি বৈচিত্র্যময় পোর্টফোলিও, যেখানে নানা খাতে বিনিয়োগ করা হয়েছে, তা বিভিন্ন শিল্প সেক্টর এবং ভৌগোলিক অঞ্চলে বিনিয়োগ ছড়িয়ে দিয়ে ঝুঁকি কমাতে পারে। যদি বৈচিত্র্য আনার উপায় না জানা থাকে, তবে সহজ উপায় হল একটি বৈচিত্রপূর্ণ মিউচুয়াল ফান্ড বেছে নেওয়া।

কাকে বিশ্বাস করা উচিত? একটি সমীক্ষা অনুসারে, আর্থিক তথ্যের শীর্ষ তিনটি উৎসের মধ্যে রয়েছে বন্ধু/পরিবার, আর্থিক প্রতিষ্ঠান/ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইট এবং আর্থিক পরিকল্পনাকারী/উপদেষ্টা। যাঁকেই বেছে নেওয়া হোক না কেন, নিশ্চিত করতে হবে যে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের একটি ভালো ট্র্যাক রেকর্ড আছে। কারণ এর উপরেই নির্ভর করবে রিটার্ন।

Published by:Raima Chakraborty
First published:

Tags: Investment, Investment Tips

পরবর্তী খবর