স্থায়ী হতে প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ নিয়ে নির্দেশিকা AICTE-র

স্থায়ী হতে প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ নিয়ে নির্দেশিকা AICTE-র
  • Share this:

#কলকাতা: শেখার লোকের অভাব নেই, কিন্তু শেখাবে কে ? এটাই আপাতত অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন বা এআইসিটিই-র বড় চিন্তা। ইঞ্জিনিয়ারিং-এর পড়ুয়াদের মান নিয়ে প্রায়ই অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগ ভুল, এমনটাও নয়। কেন এই অবস্থা ? কারণ খুঁজতে গিয়ে ধরা পড়েছে গোড়ায় গলদ।

প্রথাগত পদ্ধতির বাইরে নতুন প্রযুক্তি ও শিক্ষা পদ্ধতি থেকে ঢের দূরে বেশ কিছু ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষকরা। দেশের ৬০ শতাংশের বেশি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজেই ধরা পড়েছে এই ছবি। তাই ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলির শিক্ষকদের জন্য প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করছে এআইসিটিই।

আটটি ধাপে এই প্রশিক্ষণ নিতে হবে শিক্ষকদের। প্রশিক্ষণ শেষ না করলে নিজেদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্থায়ী হতে পারবেন না ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষকরা। কলকাতায় ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্সের একটি অনুষ্ঠানে একথা জানান অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন বা এআইসিটিই-র চেয়ারম্যান অনিল সহস্রবুদ্ধে। কলকাতায় সল্টলেকের একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এই প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। প্রশিক্ষণে থ্রিডি,ক্লাউড কম্পিউটিং, বিগ ডেটার মতো বিষয় থাকছে।

দেশের ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলিতে শিক্ষার মানে পার্থক্য চোখে পড়ার মতো। এই অভিযোগ স্বীকার করেই এআইসিটিই চেয়ারম্যানের দাবি, সমস্যা মেটাতে সিলেবাসের আধুনিকীকরণ ও যোগ্য শিক্ষক নিয়োগে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। অবসরপ্রাপ্ত যোগ্য শিক্ষকদের নিয়োগে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলিকে সাহায্য করছে এআইসিটিই। চলতি বছর থেকে ২৩০ ক্রেডিট পয়েন্টের বদলে ১৬০ ক্রেডিট পয়েন্ট পেতে হবে পড়ুয়াদের। এতে শিক্ষার মান কমবে, তা মানতে নারাজ এআইসিটিই। ২০২১ সাল থেকে নতুন ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের অনুমোদন দেওয়া বন্ধ করছে অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন। এ নিয়ে প্রশ্নের মুখে এআইসিটিই- চেয়ারম্যানের দাবি, আপাতত দু-বছরের এই নিয়ম। পরে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

আরও দেখুন---

Loading...

First published: 05:25:36 PM Jul 20, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर