• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • OPPORTUNITY START BISCUIT MAKING BUSINESS IN 1 LAKH RUPEES AND EARN 40K PER MONTH SS

১ লক্ষ টাকা দিয়ে এই ব্যবসা শুরু করলে প্রতি মাসে আসবে ৪০ হাজার টাকা! সরকারি সাহায্য মিলবে ৮০ শতাংশ

Representational Image

কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের সাহায্য পাওয়া যেতে পারে বেকারি শিল্প শুরু করার জন্য।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অনেকেই ব্যবসার স্বপ্ন দেখেন। তাঁদের জন্য সুখবর! এমনও কিছু ব্যবসা রয়েছে, যা শুরু করতে অল্প টাকা খরচ করতে হয় এবং লাভ বেশি হয়। বিস্কুটের ব্যবসা খুব সহজেই করা যায়। বিস্কুটের চাহিদাও সব সময়ে বেশি থাকে। দেশে লকডাউন চলাকালীন সময়ে, অন্য সব শিল্পগুলি খারাপ অবস্থায় থাকলেও, পার্লে-জি (Parle-G) বিস্কুটের ব্যবসা বেশ ভালো চলেছে। এমনকী, গত ৮২ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে বলে জানা গিয়েছে। তাই বেকারির ব্যবসা বর্তমানে লাভদায়ক ব্যবসার বিকল্প হিসেবে মনে করা হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের সাহায্য পাওয়া যেতে পারে বেকারি শিল্প শুরু করার জন্য। মুদ্রা প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য ১ লক্ষ টাকার বিনিয়োগ করতে হবে। এই ব্যবসা শুরু করার জন্য সরকার বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ৮০ শতাংশ সাহায্য করবে বলে জানা গিয়েছে। এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সরকারি ওই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ব্যবসায় সমস্ত খরচ বাদ দিলে প্রতি মাসে প্রায় ৪০ হাজার টাকার বেশি লাভ করা যাবে।

ব্যবসা শুরু করতে মোট কত খরচ পড়বে?

বেকারি শিল্প স্থাপনের জন্য মোট খরচ হবে ৫.৩৬ লক্ষ টাকা। এ ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীকে দিতে হবে মাত্র ১ লক্ষ টাকা। কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের জন্য নির্বাচিত হওয়ার পর ব্যাঙ্ক থেকে ২.৮৭ লক্ষ টাকার একটি মেয়াদি লোন ও ১.৪৯ লক্ষ টাকার ক্যাপিটাল লোন পাওয়া যাবে। ৫০০ বর্গমিটারের জায়গার প্রয়োজন রয়েছে। আর যদি নিজস্ব জায়গা না থাকে তাহলে ভাড়ার জায়গা হলেও চলবে।

লাভ কত হতে পারে?

সরকারি বিজ্ঞপ্তি অনুসারে বলা হয়েছে, সব খরচ বাদ দিয়ে বার্ষিক লাভ হতে পারে ৪.২ লক্ষ টাকা।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্পে আবেদন করার জন্য, মুদ্রা প্রকল্পের অধীনে যে কোনও ব্যাঙ্কে আবেদন করা যেতে পারে। একটি ফর্ম দেওয়া হবে, যেখানে নিজের সম্বন্ধে বিশদ নথি পূরণ করতে হবে। নাম, ঠিকানা, শিক্ষা, বর্তমান আয় ও লোনের পরিমাণ লিখে দিতে হবে। লোনের জন্য কোনও প্রসেসিং ফি বা গ্যারান্টি ফি দিতে হবে না। ৫ বছর সময়ের মধ্যে লোন শোধ করা যাবে।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: