corona virus btn
corona virus btn
Loading

জনধন যোজনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ছাড়াল ৪০ কোটি, জমা পড়েছে ৩০,৫৪৭ কোটি টাকা !

জনধন যোজনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ছাড়াল ৪০ কোটি, জমা পড়েছে ৩০,৫৪৭ কোটি টাকা !

এই যোজনায় যে অ্যাকাউন্ট খোলা হয় সেটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট ৷ এখানে ন্যূনতম টাকা রাখা বাধ্যতামূলক নয় ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: মোদি সরকারের জনপ্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ জনধন যোজনায় সরকারি ব্যাঙ্কগুলি ৪০ কোটির বেশি অ্যাকাউন্ট খুলে দিয়েছে ৷ কেন্দ্র সরকারের তরফে জারি তথ্য অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত ৪০ কোটি ৫ লক্ষ নাগরিক জনধন অ্যাকাউন্ট খুলেছে ৷ এই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে প্রায় ৩০,৫৪৭ কোটি টাকার বেশি জমা করেছে অ্যাকাউন্ট হোল্ডাররা ৷ Department of Financial Services একটি ট্যুইট করে এই বিষয়ে জানিয়েছে ৷

কোভিড-১৯ মহামারী ও তার জেরে চলা লকডাউনে সবচেয়ে বেশি আর্থিক সমস্যায় পড়তে হয়েছে শ্রমিক ও গরিব মানুষদের ৷ এই অস্বাভাবিক পরিস্থিতি থেকে দেশের অর্থনীতি ও মানুষকে বাঁচাতে প্রায় ২১ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজের (Fiscal Stimulus Package) ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৷ এর মধ্যে ১.৭ লক্ষ কোটি টাকা গরিবদের, মহিলাদের জন্য ঘোষণা করেছিলেন ৷ মহিলা জনধন অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের প্রতি মাসে ৫০০ টাকা আর্থিক সাহায্য করেছে সরকার ৷ উজ্জ্বলা যোজনায় নথিভুক্তদের টাকা ট্রান্সফার করা হয়েছে ৷ লকডাউনের সময় উজ্জ্বলা যোজনায় ৩টি সিলিন্ডার বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে ৷

কী কী সুবিধা পাওয়া যায় জনধন অ্যাকাউন্টে ?

এই যোজনায় যে অ্যাকাউন্ট খোলা হয় সেটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট ৷ এখানে ন্যূনতম টাকা রাখা বাধ্যতামূলক নয় ৷ অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের রুপে কার্ড (RuPay Card) ও ওভারড্রাফ্ট ফেসিলিটির (Overdraft Facility) সুবিধা মিলবে ৷ এই যোজনায় অ্যাকাউন্ট হোল্ডাররা ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ওভারড্রাফ্টের সুবিধা পাবেন ৷ কেন্দ্র সরকার অগাস্ট ২০১৮-র পর খোলা জনধন অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের দুর্ঘটনা বিমার টাকা ১ লক্ষ থেকে বাড়িয়ে ২ লক্ষ টাকা করে দিয়েছে ৷ বিভিন্ন সরকারি যোজনার সুবিধাভোগীদের ডিবিটি-র মাধ্যমে তাঁদের ব্যাঙ্কে টাকা ট্রান্সফার করা হয় সরাসরি ৷

২০১৪ সালে কেন্দ্র ক্ষমতায় আসার পর মোদি সরকার শহর ও গ্রামের সমস্ত মানুষকে ব্যাঙ্কিং পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত করার স্বপ্ন নিয়ে এই যোজনা চালু করেছিলেন ৷ ২৮ অগাস্ট ২০১৪ সালে জনধন যোজনা লঞ্চ করেছিলেন মোদি ৷

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: August 4, 2020, 8:58 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर