• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • বেড়েই চলেছে JIO, সবাইকে পিছনে ফেলে কলকাতায় ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক পেল সংস্থা

বেড়েই চলেছে JIO, সবাইকে পিছনে ফেলে কলকাতায় ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক পেল সংস্থা

যেখানে ভোডাফোন-আইডিয়া এবং এয়ারটেল নিজেদের ৩.২ লাখ গ্রাহক খুইয়েছে, সেখানে এই পরিস্থিতিতে জিও নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়েছেন ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক ৷

যেখানে ভোডাফোন-আইডিয়া এবং এয়ারটেল নিজেদের ৩.২ লাখ গ্রাহক খুইয়েছে, সেখানে এই পরিস্থিতিতে জিও নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়েছেন ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক ৷

যেখানে ভোডাফোন-আইডিয়া এবং এয়ারটেল নিজেদের ৩.২ লাখ গ্রাহক খুইয়েছে, সেখানে এই পরিস্থিতিতে জিও নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়েছেন ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনাকালেও একের পর এক রেকর্ড গড়েছে জিও ৷ এবার কলকাতা টেলিকম সার্কেলেও শীর্ষে রিলায়েন্স জিও ৷ সবথেকে বেশি গ্রাহক সংখ্যা ও রেভিনিই উপার্জনের নিরিখে কলকাতা সার্কেলে মার্কেট লিডারের তকমা পেল জিও ৷

    টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বা ট্রাই-য়ের দেওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী চলতি বছরের মে মাসে ৪০ শতাংশ কাস্টমার শেয়ার নিয়ে এক মাইলস্টোন তৈরি করেছে জিও ৷ অর্থাৎ এই অঞ্চলের মোট ফোন ব্যবহারকারী ৪০ শতাংশ গ্রাহকই জিও পরিষেবা উপভোক্তা ৷ কলকাতা সার্কেলের ২.৫৪ কোটি টেলিফোন ব্যবহারকারীর মধ্যে ১.০২ কোটিই রিলায়েন্স জিও গ্রাহক ৷

    TRAI -এর প্রকাশ করা রিপোর্টেই এটা স্পষ্ট যে করোনা এবং করোনার কারণে হওয়া লকডাউন কোনওভাবেই জিও-এর ব্যবসায় দাঁত ফোটাতে পারেনি ৷ বরং বাংলায় আমফান ঝড়ের তান্ডবের পর দেখা গিয়েছে বহু গ্রাহক ইন্টারনেট নির্ভর ফোন পরিষেবা মাথায় রেখে জিও কানেকশন নিয়েছে ৷ আমফান পরবর্তী পরিস্থিতিতে সবথেকে ভাল নেটওয়ার্ক পরিষেবা দিতে সমর্থ হয়েছিল রিলায়েন্স জিও ৷ যেখানে ভোডাফোন-আইডিয়া এবং এয়ারটেল নিজেদের ৩.২ লাখ গ্রাহক খুইয়েছে, সেখানে এই পরিস্থিতিতে জিও নেটওয়ার্কে যুক্ত হয়েছেন ১.১৪ লাখ নতুন গ্রাহক ৷

    এতো গেল কলকাতা মার্কেটের কথা, সর্বভারতীয় ক্ষেত্রেও লাভবান রিলায়েন্স জিও ৷ করোনা পরিস্থিতিতে নতুন করে আরও ৩৬ লাখ গ্রাহক জিও-এর কানেকশন নিয়েছেন ৷ ট্রাইয়ের রিপোর্টের পরিসংখ্যান অনুযায়ী এই লকডাউন পিরিয়ডে রিলায়েন্স জিও নিজের গ্রস রেভিনিউ শেয়ারের সঙ্গে সঙ্গে লাভের অঙ্কও ৪০ শতাংশের কাছাকাছি নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: