• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • ঋণের কিস্তি স্থগিতের সময়সীমা ২ বছর পর্যন্ত হতে পারে, ব্যাঙ্ক ও RBI নেবে সিদ্ধান্ত: কেন্দ্র

ঋণের কিস্তি স্থগিতের সময়সীমা ২ বছর পর্যন্ত হতে পারে, ব্যাঙ্ক ও RBI নেবে সিদ্ধান্ত: কেন্দ্র

সুপ্রিম কোর্টে ইএমআই মুকুবের সময় ডিসেম্বর অবধি বাড়ানোর মামলার শুনানিতে জানালেন কেন্দ্রের আইনজীবী৷

সুপ্রিম কোর্টে ইএমআই মুকুবের সময় ডিসেম্বর অবধি বাড়ানোর মামলার শুনানিতে জানালেন কেন্দ্রের আইনজীবী৷

সুপ্রিম কোর্টে ইএমআই মুকুবের সময় ডিসেম্বর অবধি বাড়ানোর মামলার শুনানিতে জানালেন কেন্দ্রের আইনজীবী৷

  • Share this:

    #নয়াাদিল্লি: কেন্দ্রীয় সরকার মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছে, ভারতের রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে ঋণের কিস্তি মকুবের সময়সীমা ২ বছর পর্যন্ত বাড়ানো যেতে পারে। তবে স্থগিতের সময়ে সুদের উপর সুদ মকুব করা নিয়ে কেন্দ্র, আরবিআই এবং ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিক বলে প্রস্তাব দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার৷

    কেন্দ্রীয় সরকারের সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা সুপ্রিম কোর্টে স্থগিতকালীন সময়ে সুদের সুদ মকুব করার বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের প্রস্তাব দেন। তিনি আরও যোগ করেছেন, "এর সঙ্গে অনেকগুলি বিষয় জড়িত রয়েছে, জিডিপি ২৩ শতাংশ কমেছে এবং অর্থনীতিতে চাপ পড়েছে।"

    কেন্দ্রের পক্ষে হলফনামা না পাওয়ায় শীর্ষ আদালত বুধবারের জন্য বিষয়টি স্থগিত করেছে৷ এই বিষয়ে কেন্দ্রের কী দৃষ্টিভঙ্গী সেই বিষয়ে তাদের হলফনামা পাঠানোর থাকলেও তা এখনও বিচারপতিদের কাছে পৌঁছয়নি৷

    সুপ্রিম কোর্ট গত সপ্তাহে স্থগিতের সময় লোন পরিশোধের সুদ মকুবের বিষয়ে কেন্দ্রের দৃষ্টিভঙ্গী জানতে চেয়েছিল৷ সর্বোচ্চ আদালত এও বলেছিল, সরকারকে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করতে হবে, তারা ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের (আরবিআই) পিছনে নিজেদের লুকোতে পারেন না৷

    আরবিআই কর্তৃক অনুমোদিত লোনের ওপর সুদ মকুবের সময়কাল সোমবার শেষ হয়েছে। আরবিআই এর আগে আদালতকে জানিয়েছিল যে, মেয়াদি ঋণ পরিশোধে স্থগিতের সময়ে সুদ মকুব করা সম্ভব নয় কারণ এ ধরনের পদক্ষেপ ব্যাঙ্কগুলির আর্থিক স্বাস্থ্য এবং স্থিতিশীলতা ঝুঁকির মধ্যে চলে যাবে৷

    স্থগিতকালীন সময়ে লোনের কিস্তির সুদ মকুবের জন্য সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা (পিআইএল) শুনানি চলছে৷ সেখানে ঋণের কিস্তি স্থগিত রাখার সময়সীমা ডিসেম্বর অবধি বাড়ানোর আর্জি জানানো হয়৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: