Home /News /business /
Investment Options: করোনা পরস্থিতিতে বিনিয়োগের সেরা বিকল্পগুলি কী কী? দেখে নিন এক নজরে!

Investment Options: করোনা পরস্থিতিতে বিনিয়োগের সেরা বিকল্পগুলি কী কী? দেখে নিন এক নজরে!

শেয়ার মার্কেট ও মিউচুয়াল ফান্ড হতে পারে বিনিয়োগের অন্যতম সেরা বিকল্প৷ প্রতীকী চিত্র৷

শেয়ার মার্কেট ও মিউচুয়াল ফান্ড হতে পারে বিনিয়োগের অন্যতম সেরা বিকল্প৷ প্রতীকী চিত্র৷

অতিমারি চলাকালীন বিনিয়োগকারীদের লগ্নির অন্যান্য বিকল্পগুলি বিচার করে দেখা উচিত (Investment options)।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ২০২১ সালের সবচেয়ে লাভজনক বিনিয়োগের মধ্যে অন্যতম ছিল শেয়ার মার্কেট (Share Market) এবং মিউচুয়াল ফান্ড (Mutual Fund)। করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আসার পরই স্টক মার্কেট উচ্চতার শিখরে পৌঁছয় কিন্তু ফের কোভিড ত্রাসের শিকার ভারত সহ গোটা বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে ২০২২ সালে ইক্যুইটি মার্কেটর গতি কিছুটা বেগ পাবে বলে অনুমান করে হচ্ছে। অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এই অতিমারী চলাকালীন বিনিয়োগকারীদের লগ্নির অন্যান্য বিকল্পগুলি বিচার করে দেখা উচিত।

বিনিয়োগের বিকল্প

স্টক বা মিউচুয়াল ফান্ড, এক জায়গায় অনেক টাকা লগ্নি করে বেশি ঝুঁকি না নিয়ে একাধিক জায়গায় বিনিয়োগ করা উচিত। উদাহরণস্বরূপ, আইপিও, গোল্ড ইটিএফ, ভিপিএফ, পিপিএফ, এনপিএস বা সম্পত্তিতে বিনিয়োগ করা যেতে পারে। এই প্রকল্পগুলিতে ঝুঁকির সম্ভাবনা কম থেকে মাঝারি হয় এবং কম মূলধন নিয়ে বিনিয়োগ শুরু করা যেতে পারে। যারা কম টাকা নিয়ে লগ্নি শুরু করতে চান তাদের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত বিকল্প হল মিউচুয়াল ফান্ড এসআইপি (SIP)। মাত্র ৫০০ টাকা দিয়েও SIP-তে লগ্নি শুরু করা যায়।

পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড (PPF)

পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড বা পিপিএফ হল একধরনের অবসরকালীন সঞ্চয় প্রকল্প। চাকরির পর অবসর জীবন সুরক্ষিত করতে ভারত সরকার এই স্কিমের সুবিধা প্রদান করে। পিপিএফ স্কিমে কর ছাড়ের সুবিধাও রয়েছে। এটি ১৫ বছরের লক-ইন পিরিয়ড সহ এক্সেম্পট-এক্সেম্পট-এক্সেম্পট (EEE) ক্যাটাগরির অধীনে পড়ে যার ফলে বার্ষিক ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে কোনও ট্যাক্স ধার্য করা হয় না।

আরও পড়ুন: রাজস্ব একীকরণের উদ্যোগ? আসন্ন বাজেট থেকে কী কী আশা? দেখুন এক নজরে!

ভলান্টারি প্রভিডেন্ট ফান্ড (VPF)

পিপিএফ-এর মতোই ভলান্টারি প্রভিডেন্ট ফান্ড বিনিয়োগের অন্যতম একটি নিরাপদ বিকল্প। মূল বেতনের বাধ্যতামূলক ১২ শতাংশের বেশি বিনিয়োগ করেও ৮.৫ শতাংশ ট্যাক্স মুক্ত রিটার্ন পাওয়া যায়। ভারতীয় আয়কর আইন অনুযায়ী, বার্ষিক ২.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে কোনও ট্যাক্স ধার্য করতে হবে না। ২.৫ লক্ষের বেশি বিনিয়োগে লগ্নিকারিকে কর গুনতে হবে।

আরও পড়ুন: আসন্ন বাজেট কেন্দ্রকে এক ডজন পরামর্শ FICCI-র, দেখুন এক নজরে

ন্যাশনাল পেনশন স্কিম (NPS)

ভারত সরকারের ন্যাশনাল পেনশন স্কিমে বিনিয়োগ করে গ্রাহকরা ট্যাক্স ছাড়ের সুবিধার পাশাপাশি ভালো রিটার্ন আয় করতে পারেন। ইনকাম ট্যাক্স অ্যাক্টের ধারা 80C-এর অধীনে এনপিএস প্রকল্পে বিনিয়োগে কোনও কর প্রদান করতে হয় না।

এছাড়া জমি এবং সম্পত্তিতে বিনিয়োগের বিকল্পও বিবেচনা করে দেখা যেতে পারে। এখানে বলে রাখা ভালো, গত ১০ বছরে জমি এবং সম্পত্তি সেক্টরের উল্লেখযোগ্য লাভ দেখা যায়নি কিন্তু নগরায়ণের ফলে আগামী বছরগুলিতে জমির চাহিদা বৃদ্ধি পাবে বলে।

First published:

Tags: Mutual Fund, Share Market

পরবর্তী খবর