Home /News /business /
Gold Investment: যুদ্ধের জেরে এক মাসে সোনা সর্বোচ্চ, বাজারে ঝুঁকি দেখে হলুদ ধাতুই ভরসা বিনিয়োগকারীদের!

Gold Investment: যুদ্ধের জেরে এক মাসে সোনা সর্বোচ্চ, বাজারে ঝুঁকি দেখে হলুদ ধাতুই ভরসা বিনিয়োগকারীদের!

সোনায় ভরসা বিনিয়োগকারীদের৷

সোনায় ভরসা বিনিয়োগকারীদের৷

বিশ্বের সর্বত্রই পুঁজি ঢালার জন্য সোনাকে আঁকড়ে ধরেন বিনিয়োগকারীরা। ভারতেও সেই প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধের আঁচ একনাগাড়ে পড়ছে শেয়ার বাজারে। আর তার পাশাপাশি বেড়ে চলেছে সোনার দাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কোনও অশান্তির পরিবেশ তৈরি হলেই শেয়ারের মতো ঝুঁকিপূর্ণ লগ্নি থেকে সরে আসেন বিনিয়োগকারীদের বড় অংশ। ফলে বাজারে পতন হয়। আর সেই সময়ে তুলনায় অনেক বেশি সুরক্ষিত লগ্নি সোনায় বিনিয়োগ প্রবণতা বাড়তে থাকে। বিশ্বের সর্বত্রই পুঁজি ঢালার জন্য সোনাকে আঁকড়ে ধরেন বিনিয়োগকারীরা। ভারতেও সেই প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

ইউক্রেনে যুদ্ধের আবহে ভারতে শেয়ার বাজারে ক্ষুদ্র এবং সাধারণ লগ্নিকারীদের বড় মাপের লোকসান গুনতে হচ্ছে। একই ভাবে সোনার দাম বাড়ায় ভুগতে শুরু করেছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। তবে বিনিয়োগকারীরা তুলনায় লাভ বেশি পাচ্ছেন। বুধবার বিশ্ব বাজারে সোনার দাম এক মাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। ০.৫ শতাংশ বেড়ে প্রতি আউন্সে সোনার দাম দাঁড়িয়েছে ১,৯৭৭.২৪ ডলার। ১৪ মার্চের পর থেকে সর্বোচ্চ দাম ১৯৭৯.৯৫ ডলার প্রতি আউন্স।

আরও পড়ুন: মোদি সরকারের কর্মীদের জন্য বড় খবর! DA সংক্রান্ত বিষয়ে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের বিশাল ঘোষণা!

ব্রিটেনের বাজার বিশেষজ্ঞ মাইকেল হিউসন বলছেন, ‘ইউক্রেন সংকট এবং মূল্যস্ফীতির চাপে ক্রমাগত বাড়ছে সোনার দাম। বিনিয়োগকারীরা স্টক মার্কেট বা অন্যান্য ঝুঁকিপূর্ণ লগ্নি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। বদলে আঁকড়ে ধরছেন সোনাকে। ফলে হলুদ ধাতুর চাহিদা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। ফলস্বরূপ বাড়ছে দামও। এভাবে চলতে থাকলে এভাবে চলতে থাকলে সোনার দাম প্রতি আউন্সে ২০০০ ডলার ছাড়িয়ে যাবে’।

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের জেরে মুদ্রাস্ফীতি দেখা দিয়েছে আমেরিকাতেও। সে দেশে খুচরো মূল্যস্ফীতি ৪ শতাংশ ছাড়িয়ে গিয়েছে। যার চাপ সামলাতে ইউএস ফেডারাল রিজার্ভ সুদের হার ৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ানোর ঘোষণা করেছে। যার সরাসরি প্রভাব পড়েছে সোনার দামে। গত কয়েকদিনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হলুদ ধাতুর দাম ১ শতাংশের বেশি বেড়েছে।

আরও পড়ুন: সীমান্তে বিরোধ থাকলেও বাণিজ্যে ভাই-ভাই! ভারতের থেকে ৫ গুণ বাড়ল চিনের রফতানি!

শুধু সোনা নয়, অন্যান্য মূল্যবান ধাতুর দামও হু-হু করে বাড়ছে। রুপোর স্পট মূল্য ১.২ শতাংশ বেড়ে প্রতি আউন্সে ২৫.৬৬ ডলার হয়েছে। প্ল্যাটিনামের দাম বেড়েছে ২ শতাংশ। বর্তমানে প্রতি আউন্স এর দাম দাঁড়িয়েছে ৯৮৪ ডলার। প্যালাডিয়াম ২.৯ শতাংশ বেড়ে ২৩৯৩.৪৬ ডলারে বিক্রি হচ্ছে।

বিশ্ববাজারে সোনার দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়েছে ভারতের বাজারেও। বুধবার দেশে ১০ গ্রাম সোনার দাম ৫৩,০০০ টাকার গণ্ডি ছাড়িয়ে গিয়েছে। এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম হলুদ ধাতুর দাম ০.৩৩ শতাংশ বা ১৭২ টাকা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৩,০৫০ টাকা। দাম বেড়েছে রুপোরও। এক কিলোগ্রাম রুপোর দাম ৪৮০ টাকা বা ০.৭ শতাংশ বেড়ে ঠেকেছে ৬৯,২৭০ টাকায়। বৈশাখ মাস থেকে শুরু হচ্ছে বিয়ের মরসুম। তার আগে সোনা-রুপোর এই দাম বৃদ্ধিতে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের কপালেই চিন্তার ভাঁজ!

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Gold, Russia Ukraine War

পরবর্তী খবর