Home /News /business /
Russia Ukraine War: রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলে সমস্যায় পড়তে পারে ভারতীয় সেনা ও কৃষক?

Russia Ukraine War: রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের ফলে সমস্যায় পড়তে পারে ভারতীয় সেনা ও কৃষক?

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব ভারতেও৷

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব ভারতেও৷

২০২০ সালে ভারত শুধুমাত্র রাশিয়ার থেকেই ৬১ কোটি ডলারের ফার্টিলাইজার আমদানি করেছে (Russia Ukraine War)।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের যুদ্ধের (Russia Ukraine War) প্রভাব পড়তে শুরু করেছে ভারতেও। বিশেষ করে ভারতের সেনা এবং কৃষকদের উপরে এর প্রভাব বেশি পড়ছে। কারণ রাশিয়া এবং ইউক্রেন (Ukraine) দুই দেশ থেকেই ভারতে প্রচুর জিনিস আমদানি করা হয়। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক আমদানির সঠিক পরিমাণ।

রাশিয়ার থেকে আমদানি করা হয় কৃষিজাত দ্রব্য -

ভারতের বিভিন্ন ধরনের ফার্টিলাইজার কোম্পানির তরফে রাশিয়া থেকে প্রতি বছর প্রায় ৪ লাখ টন ডাই অ্যামিনো ফসফেট আমদানি করা হয়। দুই দেশের সরকারের যৌথ উদ্যোগে এই ব্যবসা প্রতি বছর প্রায় ১০ লাখ টনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এছাড়াও ভারত ২০২০ সালে রাশিয়ার সঙ্গে একটি চুক্তি করেছে সেই দেশ থেকে পটাশ আমদানি করার জন্য। ভারত প্রতি বছর প্রায় ৪ লাখ টন নাইট্রজেন, ফসফরাস এবং পটাশ ক্রয় করার চেষ্টা করছে। ২০২০ সালে ভারত শুধুমাত্র রাশিয়ার থেকেই ৬১ কোটি ডলারের ফার্টিলাইজার আমদানি করেছে। এর ফলে ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার যুদ্ধ বাড়তে থাকলে সমস্যায় পড়বে ভারতের কৃষকরা।

আরও পড়ুন: কিভ দখলে এগোচ্ছে ৬৪ কিলোমিটার লম্বা রাশিয়ার সেনা কনভয়, ধরা পড়ল উপগ্রহ চিত্রে

রাশিয়ার থেকে অস্ত্র আমদানি -

ভারতের কাছে রাশিয়ার তৈরি বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র এবং হাতিয়ার রয়েছে। সম্প্রতি ঘোষণা করা হয়েছে রাশিয়ার থেকে এস-৪০০ ডিফেন্স মিসাইল সিস্টেম ক্রয় করার কথা। এর মধ্যে মাত্র এক চতুর্থাংশ সাপ্লাই করা হয়েছে রাশিয়া থেকে। ভারত সরকারের তথ্য অনুযায়ী ২০১২ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ভারত যত অস্ত্র ক্রয় করেছিল, তার মধ্যে প্রায় ৬৮ শতাংশই রাশিয়ার। এর ফলে রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের যুদ্ধ বাড়তে থাকলে ভারতের পক্ষে তা খারাপ হতে পারে। এর ফলে সমস্যায় পড়তে পারে ভারতীয় সৈন্য।

আরও পড়ুন: প্রাণ গিয়েছে সাড়ে চার হাজার রুশ সেনার, দাবি ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির

ইউক্রেন থেকে সূর্যমুখী তেল এবং ফার্টিলাইজার আমদানি -

ভারত ইউক্রেনের থেকেও ভাল পরিমাণে ফার্টিলাইজার আমদানি করে থাকে। ২০২০ সালের সরকারি তথ্য অনুযায়ী ভারত ইউক্রেন থেকে প্রায় ২৩.২৮ কোটি ডলারের ফার্টিলাইজার আমদানি করেছিল। এছাড়াও ভারতে সূর্যমুখী তেলের মোট পরিমাণের ৭০ শতাংশই আসে ইউক্রেন থেকে। এর ফলে রাশিয়া এবং ইউক্রেনের যুদ্ধ বাড়তে থাকলে এই সকল জিনিসের দাম বেড়ে যেতে পারে। কারণ আমদানি না হলে এমনিতেই সেই সকল জিনিসের দাম বেড়ে যাবে।

ভারতের সঙ্গে ইউক্রেন এবং রাশিয়ার ব্যবসার পরিমাণ -

২০২১-২২ সালে ভারতের সঙ্গে রাশিয়ার প্রায় ৯.৪ কোটি ডলারের ব্যবসা হয়েছে। অন্য দিকে এই বছর ভারতের সঙ্গে ইউক্রেনের মোট ২.৩ কোটি ডলারের ব্যবসা সম্পন্ন হয়েছে। সুতরাং এই দেখেই বোঝা যাচ্ছে যে ভারত বিভিন্ন জিনিসের জন্য এই দুই দেশের ওপরে নির্ভরশীল।

বিহারের ১০০ কোটি টাকার ক্ষতি -

বিহার থেকে দুই দেশেই সিল্ক, তসর, লিনেন ইত্যাদি কাপড় রফতানি করা হয়। বিহারের ভাগলপুরের সিল্ক পুরো বিশ্বেই খুব জনপ্রিয়। কিন্তু এই যুদ্ধের ফলে প্রায় ২০ শতাংশ অর্ডার বাতিল করা হয়েছে। শুধুমাত্র ইউক্রেনেই প্রতি বছর ২৫-৩০ কোটি টাকার মাল সরবরাহ করা হত। সব মিলিয়ে বিহারের প্রায় ১০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

First published:

Tags: Russia, Russia Ukraine War, Ukraine crisis

পরবর্তী খবর