• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • সুদের হার কম? কীভাবে করা যাবে শর্ট টার্ম ইনভেস্টমেন্টের প্ল্যানিং! রইল উপায়...

সুদের হার কম? কীভাবে করা যাবে শর্ট টার্ম ইনভেস্টমেন্টের প্ল্যানিং! রইল উপায়...

আজকাল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সুদের হার কমছে। শুধু শর্ট টার্মে সেভিং (Short Term Saving) নয়, ফিক্সড ডিপোজিটেও সুদের হার বেশ কম। গত বছরের তুলনায় এ বছরের পরিস্থিতি আরও খারাপ। ২০১৯ সালে রেপো রেট ছিল ৬ শতাংশ, সেই জায়গায় আজ ৪ শতাংশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

আজকাল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সুদের হার কমছে। শুধু শর্ট টার্মে সেভিং (Short Term Saving) নয়, ফিক্সড ডিপোজিটেও সুদের হার বেশ কম। গত বছরের তুলনায় এ বছরের পরিস্থিতি আরও খারাপ। ২০১৯ সালে রেপো রেট ছিল ৬ শতাংশ, সেই জায়গায় আজ ৪ শতাংশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

আজকাল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সুদের হার কমছে। শুধু শর্ট টার্মে সেভিং (Short Term Saving) নয়, ফিক্সড ডিপোজিটেও সুদের হার বেশ কম। গত বছরের তুলনায় এ বছরের পরিস্থিতি আরও খারাপ। ২০১৯ সালে রেপো রেট ছিল ৬ শতাংশ, সেই জায়গায় আজ ৪ শতাংশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: স্বল্পমেয়াদী বিনিয়োগ (Short Term Invest) করার সময়ে সবারই একটি নির্দিষ্ট পরিকল্পনা থাকে। একটি ফিনান্সিয়াল গোল নিয়ে এগিয়ে চলেন সকলে। তা সে কোনও গাড়ি কেনা হোক বা বাড়ি কেনার জন্য ডাউন পেমেন্টের জোগাড়! তবে যদি সুদের হার কম হয়, তা হলে কী করা যাবে? কী ভাবে করা যাবে শর্ট টার্ম ইনভেস্টমেন্টের প্ল্যানিং? এ ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। দেখে নেওয়া যাক সেগুলি কী কী!

জেনে রাখা ভাল আজকাল অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সুদের হার কমছে। শুধু শর্ট টার্মে সেভিং (Short Term Saving) নয়, ফিক্সড ডিপোজিটেও সুদের হার বেশ কম। গত বছরের তুলনায় এ বছরের পরিস্থিতি আরও খারাপ। ২০১৯ সালে রেপো রেট ছিল ৬ শতাংশ, সেই জায়গায় আজ ৪ শতাংশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০১৯ সালের মার্চে এক বছরের ফিক্সড ডিপোজিটে ৬.৮ শতাংশ সুদ দিত SBI। এখন সেই জায়গায় সুদের হার ৪.৪ শতাংশ। অনেকাংশে সেভিংস অ্যাকাউন্টে ২.৭৫ শতাংশ সুদ দিচ্ছে স্টেট ব্যাঙ্ক (State Bank of India)। একই কথা বলছেন HDFC Ltd-এর CEO কেকি মিস্ত্রি।

এই পরিস্থিতিতে লিকুইড ফান্ডের (Liquid Fund) কথা বিবেচনা করা যেতে পারে। তুলনামূলক ভাবে বেশি ভালো রিটার্ন পাওয়া যায় এতে। আসুন দেখে নেওয়া যাক, কোন লিকুইড ফান্ডে কতটা রিটার্ন মিলছে! এ ক্ষেত্রে Aditya Birla SL Liquid-এ তিন মাসে রিটার্ন ০.৮২ শতাংশ, ছয় মাসে রিটার্ন ১.৭৯ শতাংশ ও এক্সপেন্স রেশিও (Expense Ratio) ০.২১ শতাংশ। BNP Paribas Liquid-এ তিন মাসে রিটার্ন ০.৮৩, ছয় মাসে রিটার্ন ১.৭০ ও এক্সপেন্স রেশিও (Expense Ratio) ০.০৮। এ ছাড়াও Edelweiss Liquid-এ তিন মাসে রিটার্ন ০.৮৪, ছয় মাসে রিটার্ন ১.৭০ ও এক্সপেন্স রেশিও ০.১১। তবে এখানেও একাধিক সমস্যা রয়েছে। সুদের হার কমলে শুধুমাত্র লিকুইড ফান্ডের উপর নির্ভর করলে চলবে না।

বাজারের গতিবিধি সম্পর্কে সচেতন থাকলে বন্ড ফান্ডে বিনিয়োগের কথা বিবেচনা করা যেতে পারে। সুদের হার কম হলেও খুব একটা অসুবিধা হবে না। ২-৩ বছরের জন্য শর্ট টার্ম বন্ড ফান্ড বা এক বছরের কম সময়ের মধ্যেও আল্ট্রা শর্ট টার্ম বন্ড ফান্ডে বিনিয়োগ করা যেতে পারে। প্রয়োজনে আরবিটরেজ ফান্ডেও টাকা রাখা যেতে পারে। একই বক্তব্য স্পষ্ট হয়ে উঠেছে Plan Ahead Wealth Advisors Ltd-এর CEO বিশাল ধাওয়ানের বক্তব্যে। তবে প্রতিটি ক্ষেত্রেই কিন্তু সংশ্লিষ্ট ফান্ডের স্কিম পোর্টফোলিও, ক্রেডিট প্রোফাইলগুলির উপরে নিয়মিত নজর রাখতে হবে। এর পাশাপাশি প্রি-ট্যাক্স রিটার্নের জন্যও তৈরি থাকতে হবে।

এই সব কিছুর পাশাপাশি Direct plans-এর প্রতি নজর দেওয়া যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে অবশ্য বিনিয়োগের পরিমাণ বেশি হলে ভালো। এখানে ১০-১৫ bps পর্যন্ত বেশি রিটার্ন পাওয়া যাবে। তবে মাথায় রাখতে হবে, যে কোনও শর্ট টার্ম ইনভেস্টমেন্টেই বেশি ঝুঁকি নিলে চলবে না।

Published by:Shubhagata Dey
First published: