• Home
  • »
  • News
  • »
  • business
  • »
  • GST: আপাতত বস্ত্র ও জুতোর ওপর জিএসটি বাড়ছে না, জানিয়ে দিল কেন্দ্র

GST: আপাতত বস্ত্র ও জুতোর ওপর জিএসটি বাড়ছে না, জানিয়ে দিল কেন্দ্র

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

GST: শুক্রবার জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে বলা হয়েছে, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, রাজস্থান এবং তামিলনাডু -তে ১ জানুয়ারি থেকে টেক্সটাইল প্রোডাক্টের ওপর জিএসটি ৫ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত মুলতুবি রাখা হয়েছে। 

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: বছরের শেষ দিনে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়ে দিল আপাতত বস্ত্র ও জুতোর ওপর জিএসটি ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২ শতাংশ করা হচ্ছে না। জামা কাপড়ের ওপর আপাতত ১২ শতাংশ জিএসটি বৃদ্ধি পাচ্ছে না । এই বিষয়ের ওপর পরবর্তী যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে জিএসটি কাউন্সিলের আগামী বৈঠকে।

৩১ ডিসেম্বরের আগে ১৭ সেপ্টেম্বরে জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই বৈঠকে জুতো ও জামাকাপড়ের ওপর ইনভার্টেড ডিউটি স্ট্রাকচার ঠিক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।  আর সেই বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই আগামী ১ জানুয়ারি ২০২২ সালে জুতোর দামের ওপরও ১২ শতাংশ জিএসটি চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এছাড়াও বলা হয়েছিল ১২ শতাংশ ইউনিফর্ম জিএসটি ধার্য করা হবে রেডিমেড পোষাক ও টেক্সটাইল প্রোডাক্টের ওপর। তবে সেক্ষেত্রে কর বৃদ্ধির হাত থেকে ছাড় পেয়েছিল সুতির বস্ত্র। উল্লেখ্য,শুক্রবারের বৈঠকে বলা হয়েছে, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, রাজস্থান এবং তামিলনাডু -তে ১ জানুয়ারি থেকে টেক্সটাইল প্রোডাক্টের ওপর জিএসটি ৫ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত মুলতুবি রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন - এবার মোদি যাচ্ছেন মণিপুর, ত্রিপুরা

এর আগে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডাইরেক্ট ট্যাক্সেস অ্যান্ড কাস্টমসের সুপারিশে গয়না, বস্ত্রশিল্প এবং জুতোর ওপর পণ্য ও পরিষেবা কর ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১২ শতাংশ করার ঘোষণা করে জিএসটি কাউন্সিল। ২০২২-এর ১ জানুয়ারি থেকে নয়া জিএসটি কাঠামো কার্যকর করার কথা ছিল। বৃস্পতিবারই রাজ্যের অর্থমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। সেই বৈঠকেই বস্ত্রশিল্প, জুতোর ওপর জিএসটি বৃদ্ধি নিয়ে আপত্তি তোলা হয়।

আরও পড়ুন: কলকাতার করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক, আর আহমেদ ডেন্টাল কলেজে আক্রান্ত ২৭!

এর আগে লখনউয়ে ৪৫তম জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকেও বস্ত্রশিল্প, ফুটওয়ার এবং ঠিকাকর্মীদের ওপর জিএসটি বৃদ্ধি নিয়ে আপত্তি তোলে পশ্চিমবঙ্গ। আজকের বৈঠকেও এনিয়ে তীব্র আপত্তি তোলেন রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তাঁর দাবি, বস্ত্র শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ৫ লক্ষ ৪০ হাজার কোটি টাকার ব্যবসা। তার থেকে রাজস্ব আসে ২০ হাজার কোটি টাকা। তাঁর আশঙ্কা, এইভাবে আচমকা জিএসটি বৃদ্ধি করা হলে, এই শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে।

Rajib Chakrabarty

Published by:Uddalak B
First published: