বাজেট ২০২১: এবার ইনকাম ট্যাক্স স্ল্যাবে কী পরিবর্তন হতে চলেছে ?

বাজেট ২০২১: এবার ইনকাম ট্যাক্স স্ল্যাবে কী পরিবর্তন হতে চলেছে ?
বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী ২.৫-৫ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৫ শতাংশ, ৫-১০ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ২০ শতাংশ এবং ১০ লক্ষ টাকার উপরে আয়ের ক্ষেত্রে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৩০ শতাংশ।

বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী ২.৫-৫ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৫ শতাংশ, ৫-১০ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ২০ শতাংশ এবং ১০ লক্ষ টাকার উপরে আয়ের ক্ষেত্রে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৩০ শতাংশ।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আর মাত্র কয়েকদিনের অপেক্ষা। ফেব্রুয়ারির প্রথম দিনেই বাজেট পেশ করতে চলেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman)। এখন সবার চোখ সেদিকেই। এক্ষেত্রে ট্যাক্স বা আয়কর নিয়েও বড়সড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। তবে এবছর বাজেটে ইনকাম ট্যাক্স স্ল্যাবে তেমন কোনও বদল আসবে না। CNBC-TV18-এর এক প্রতিবেদন সূত্রে আপাতত এমনই খবর মিলেছে। অর্থাৎ এবারেও পার্সোনাল ইনকাম ট্যাক্স স্ল্যাবে পরিবর্তন আসা প্রায় অসম্ভব।

করোনাকালে অর্থনীতির অবস্থা বড়ই শোচনীয়। এই পরিস্থিতিতে ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেটের দিকে সবাই তাকিয়ে রয়েছে। বাজেট ঘিরে অনেক আশা। আর ঠিক এখানেই একটি বড় ভূমিকা নেয় আয়কর। তাই ইনকাম ট্যাক্সে স্ল্যাবে বদল না আনাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়াবে। এমনই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। ওই সংবাদমাধ্যমের সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, ইনকাম ট্যাক্সে স্ল্যাবের পাশাপাশি অন্যান্য ভাবে আয়করে ছাড়ের বিষয় নিয়েও বিবেচনা করছে অর্থমন্ত্রক। তবে রেভিনিউ কালেকশন ও ডিরেক্ট ট্যাক্সর ক্ষেত্রে কী হতে পারে, সেই বিষয়টি এখনও অনিশ্চিত।

এক্ষেত্রে বর্তমানে ট্যাক্স স্ল্যাবের উপর নজর দেওয়া যেতে পারে। বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী ২.৫-৫ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৫ শতাংশ, ৫-১০ লক্ষ টাকা আয়ে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ২০ শতাংশ এবং ১০ লক্ষ টাকার উপরে আয়ের ক্ষেত্রে ট্যাক্স স্ল্যাবের পরিমাণ ৩০ শতাংশ। তাই বর্তমান ট্যাক্স স্ল্যাবে কোনও পরিবর্তন না হলে, কী কী প্রভাব পড়তে পারে, সেই বিষয়টি অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য।


শোনা যাচ্ছে হাউজিং সেগমেন্টেও বড়সড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে আয়কর দফতরের তরফে। এক্ষেত্রে তুলনামূলক বেশি ট্যাক ইনসেনটিভ দেওয়া হতে পারে। এগুলির পাশাপাশি, 80C ধারায় আয়করে ছাড়ের সীমা অর্থাৎ কর মকুবের বিষয়টি নিয়েও বিবেচনা করবে অর্থমন্ত্রক। এক্ষেত্রে কর মকুবের সীমা বাড়তে পারে।

একইসঙ্গে 80D ধারায় হেল্থ ইনসিওরেন্স প্রিমিয়ামের ডিডাকশন লিমিট বাড়ানোর প্রস্তাব নিয়েও বিবেচনা করতে পারে সরকার। ক্রমবর্ধমান জল্পনার মাঝে আপাতত সবাই ফেব্রুয়ারি মাসের বাজেট পেশের দিকেই তাকিয়ে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের বাজেটে একটা বড় স্বস্তি মিলেছিল। সব চেয়ে বড় বিষয়টি ছিল, পাঁচ লক্ষ টাকার নিচে উপার্জন করলে কোনও আয়কর দিতে হবে না। এক্ষেত্রে ৫-৭.৫ লক্ষ টাকা আয়ে কর কমিয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছিল। ৭.৫ -১০ লক্ষ টাকা আয়ে করের পরিমাণ ধার্য হয় ১৫ শতাংশ আর ১০-১২.৫ লক্ষ টাকা আয়ে করের পরিমাণ ২০ শতাংশ। অন্য দিকে, ১২.৫-১৫ লক্ষ টাকা আয়ে ধার্য হয় ২৫ শতাংশ কর। যাঁদের আয় বার্ষিক ১৫ লক্ষ টাকা বা তার বেশি, তাঁদের করের পরিমাণ ধার্য হয়েছিল ৩০ শতাংশ।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: