মেয়ের বিয়ের জন্য এবার থেকে ১০ গ্রাম সোনা দেবে সরকার ! দেখে নিন কীভাবে মিলবে সুবিধা...

মেয়ের বিয়ের জন্য এবার থেকে ১০ গ্রাম সোনা দেবে সরকার ! দেখে নিন কীভাবে মিলবে সুবিধা...

কীভাবে আবেদন করবেন এই যোজনার জন্য -

কীভাবে আবেদন করবেন এই যোজনার জন্য -

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: বর্তমান সময়ে যে ভাবে দাম বেড়ে চলেছে সোনার তাতে প্রায় বেশির ভাগ মানুষের কাছে সোনার গয়না কেনা নাগালের বাইরে হয়ে যাচ্ছে ৷ কিন্তু প্রাচীন যুগ থেকে মেয়ের বিয়েতে সোনার গয়না দেওয়ার রীতি চলে আসছে এই দেশে ৷ তাই যতই কষ্ট হোক, জমি-বাড়ি বিক্রি করে বা ধারে দেনা করেও বাবা মায়েরা মেয়ের বিয়ের জন্য সোনার গয়নার ব্যবস্থা করে থাকেন ৷ সাধারণের কথা মাথায় রেখে এবার অসম সরকার নিয়ে এল দারুন একটি প্রকল্প ৷ নাম অরুন্ধতি গোল্ড স্কিম ৷ এই স্কিমে মেয়েদের বিয়ের জন্য সোনা দেবে সরকার ৷ মেয়েদের বিয়ের জন্য সরকারের তরফে দেওয়া হবে ১০ গ্রাম সোনা ৷ দেখে নিন কীভাবে মিলবে এই সুবিধা ৷

    এই স্কিমের সুবিধা নেওয়ার জন্য মেয়ের বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর হতে হবে এছাড়া বিয়ের রেজিস্ট্রেশন হওয়া বাধ্যতামূলক মেয়ের বাড়ির আয় বছরে ৫ লক্ষ টাকার কম হতে হবে এই যোজনার সুবিধা কেবল প্রথম বার বিয়ে করার সময় মিলবে এছাড়া ছেলের বয়স কমপক্ষে ২১ বছর হতে হবে বিয়ে স্পেশ্যাল ম্যারেজ অ্যাক্ট ১৯৫৪ অনুযায়ী রেজিস্টার্ড হতে হবে ৷ যেদিন রেজিস্ট্রেশন হবে সেদিন স্কিমের জন্য আবেদন করা যাবে

    এই যোজনায় বহু মানুষ উপকৃত হবেন ৷ এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে আর্থিক ভাবে পিছিয়ে থাকা পরিবারদের সাহায্য করা ৷ সরকারের তরফে দেওয়া সোনা মেয়েটির আর্থিক অবস্থাও মজবুত করবে ৷

    কীভাবে আবেদন করবেন এই যোজনার জন্য - >>স্কিমের জন্য রেজিস্ট্রেশন করাতে হবে >>এর জন্য revenueassam.nic.in. লিঙ্কে গিয়ে অনলাইন ফর্ম ফিলআপ করতে হবে >>এরপর প্রিন্টআউট নিয়ে জমা করতে হবে >>ফর্ম সাবমিট করার পর একটি রসিদ দেওয়া হবে >>আপনার আবেদন accept করা হয়েছে কিনা এসএমএস-এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে >>আবেদন মেনে নেওয়া হলে ১০ গ্রাম সোনার যা দাম হবে সেটি আপনার অ্যাকাউন্টে জমা করে দেওয়া হবে ৷

    অসমের বেশ কিছু এলাকায় এখনও অল্প বয়সে ছেলে মেয়েদের বিয়ে দিয়ে দেওয়া হয় ৷ যার প্রভাব তাদের পড়াশোনা ও স্বাস্থ্যের উপরে পড়ে ৷ এই স্কিমের সুবিধা নেওয়ার জন্য বেশ কিছু পরিবার এখন ছেলে মেয়েদের সঠিক বয়স না হওয়া পর্যন্ত দিচ্ছে না ৷

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published:

    লেটেস্ট খবর