১৮ বছরে এই পদক্ষেপ নিলে পাবেন মাসে ৫০০০ টাকার পেনশন!

১৮ বছরে এই পদক্ষেপ নিলে পাবেন মাসে ৫০০০ টাকার পেনশন!

১৮ বছরে এই পদক্ষেপ নিলে মোদি সরকারের তরফে পাবেন মাসে ৫০০০ টাকার পেনশন!

সামান্য পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করে ৬০ বছরের পরে মাসে ৫০০০ টাকা বা বছরে ৬০০০০ টাকার পেনশন সুনিশ্চিত করে তোলা যায়।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ১৮ বছরে পা রাখা মানে প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে ওঠা। অতএব, এই সময় থেকে ভবিষ্যতের আর্থিক সঞ্চয়ের পরিকল্পনা শুরু করে দেওয়া উচিত। সমস্যা হল, ১৮ বছরে আইনত সাবালকের তকমা মিললেও উপার্জন বলে কিছু থাকে না। এই দিক থেকে স্বল্প উপার্জনশীল পরিবারগুলির জন্য নরেন্দ্র মোদির সরকারের তরফ (Modi Government Scheme) থেকে নিয়ে আসা হয়েছে অটল পেনশন যোজনা (Atal Pension Yojana)। যেখানে খুব সামান্য পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করে ৬০ বছরের পরে মাসে ৫০০০ টাকা বা বছরে ৬০০০০ টাকার পেনশন সুনিশ্চিত করে তোলা যায়।

মাসে ৫০০০ টাকা কী ভাবে জমা হবে?

সবার প্রথম একটা অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হয় এই সরকারি প্রকল্পের অধীনে। টাকা জমা করা যায় প্রতি মাসের ভিত্তিতে বছরে বারোটি কিস্তিতে, তিন মাস অন্তর একবার করে বছরে চার বার এবং ছয় মাস অন্তর একবার করে বছরে দুই বার। হিসেবের সুবিধার জন্য মাসিক পরিকল্পনাটি দেখে নেওয়া যাক।

এই পেনশন প্রকল্পে বয়সের উপরে নির্ভর করে বিনিয়োগের অঙ্কটি স্থির করা হয়। যদি বয়স হয় ১৮ বছর, তাহলে প্রতি মাসে জমা করতে হবে মাত্র ২১০ টাকা। এই ভাবে প্রতি বছরে জমা হবে ২৫২০ টাকা। ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত এই ভাবে প্রতি মাসে ২১০ টাকা করে জমা করে যেতে হবে। ৬০ বছর হয়ে অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে ৫০০০ টাকা করে জমা হতে থাকবে, বছরে জমা হবে ৬০০০০ টাকা।

যদি কেউ ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে টাকা জমা করেন, তাহলে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত মোট বিনিয়োগ হবে ১.০৫ লক্ষ টাকা। কেউ যদি ৩৫ বছর বয়সে এই প্রকল্পে যোগদান করেন, সে ক্ষেত্রে প্রতি তিন মাস অন্তর জমা করতে হবে ২৬৮৮ টাকা। এই ভাবে ৬০ বছর বয়স পর্যন্ত, অর্থাৎ পরের ২৫ বছে মোট বিনিয়োগ হবে ২.৬৮ লক্ষ টাকা। সেই জন্যেই কম বিনিয়োগের লক্ষ্যে ১৮ বছর বয়স থেকেই এই প্রকল্পে টাকা জমানো শুরু করা উচিত।

কেন না, ১৮ বছর বয়সে ত্রৈমীসিক ভিত্তিতে প্রতি তিন মাস অন্তর জমা করতে হয় মাত্র ৬২৬ টাকা। এক্ষেত্রে বিনিয়োগ করতে হবে ৪২ বছরের জন্য। আবার কেউ যদি বছরে দুই বার টাকা জমা করতে চান ১৮ বছর বয়স থেকে, সে ক্ষেত্রে জমা করতে হবে প্রতি ৬ মাসে ১২৩৯ টাকা। এক্ষেত্রেও বিনিয়োগের মেয়াদ হবে ৪২ বছর। দুই ক্ষেত্রেই ৬০ বছর হয়ে যাওয়ার পরে অ্যাকাউন্টে মাসে ৫০০০ টাকা করে পেনশন ঢুকতে থাকবে।

এই প্রকল্পের বেশ কিছু সুবিধা আছে। যেমন-

১. আয়কর বিভাগের ৮০ সিসি ডি সেকশনের অধীনে এখানে আয়কর ছাড়ের সুবিধা আছে। ২. সদস্য ৬০ বছরের আগে বা পরে মারা গেলে পেনশন স্ত্রী পাবেন। ৩. সদস্য এবং স্ত্রী দু'জনেরই অবর্তমানে পেনশন পাবেন নমিনি। ৪. একজন সদস্যের নামে একটিই অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। ৫. পছন্দ মতো দেশ জুড়ে যে কোনও ব্যাঙ্কে এই অ্যাকাউন্ট খোলা যায়।

Published by:Pooja Basu
First published: