corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভারত-চিন সংঘাতের প্রভাব, শীঘ্রই লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়তে চলেছে এই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের

ভারত-চিন সংঘাতের প্রভাব, শীঘ্রই লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়তে চলেছে এই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের

আমদানি আটকে যাওয়ায় প্রবল অসুবিধার মুখে পড়েছে টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি ৷ কাপড় তৈরির জন্য ৯০ শতাংশ জিনিস আসে চিন থেকেই ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: যতদিন যাচ্ছে ভারত চিন সম্পর্কে সংঘাত বেড়েই চলেছে ৷ ১৫ জুন রাতে লাদাখে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের শহিদ হওয়ার ঘটনায় আরও অবনতি হয়েছে পরিস্থিতির ৷ সীমান্তে উত্তেজনা। চোখ রাঙাচ্ছে চিন। পাল্টা আক্রমণে ভারত। একসঙ্গে ত্রিফলা আক্রমণ। অ্যাপ নিষিদ্ধ করে ডিজিটাল স্ট্রাইক। সড়ক-রেল-টেলিকমে চিনা সংস্থার বরাত বাতিল এবং চিনা পণ্য আমদানিতে কড়াকড়ি। এতে লাল ফৌজের দেশকে চাপে ফেলা গেলেও এর প্রভাব পড়তে চলছে ভারতের বাজার দরেও ৷

শীঘ্রই নিত্যপ্রয়োজনীয় বেশ কিছু জিনিসের দাম বাড়তে চলেছে ৷ চিন থেকে যেকোনও ধরনের পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করেছে সরকার ৷ এর ফলে জামা কাপড়ের দাম হুহু করে বাড়বে বলে আশঙ্কা ৷ আসলে কাপড় তৈরির জন্য দরকারি মেশিন ও কিছু জিনিস ভারতে পাওয়া যায় না ৷ তা চিন থেকেই আমদানি করতে হয় ৷ আমদানি আটকে যাওয়ায় প্রবল অসুবিধার মুখে পড়েছে টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি ৷

কাপড় তৈরির জন্য ৯০ শতাংশ জিনিস আসে চিন থেকেই ৷ যেমন- জামার বোতাম, মেটাল এবং সেলাই মেশিন, নিডল ল্যাপেল পিন এবং টেক্সটাইল মেটেরিয়ালের মতো জিনিসের জন্য ভারত চিনের উপর নির্ভরশীল ৷

একটি বহুল প্রচলিত সর্বভারতীয় সংবাদপত্রের প্রতিবেদন অনুসারে ইতিমধ্যেই চিন থেকে আসা টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির কয়েক টন প্রয়োজনীয় জিনিস পোর্টে আটকে রয়েছে ৷ যতদিন না পর্যন্ত চিন থেকে আসা সামগ্রীর কোনও বিকল্প হাতে না আসছে ততদিন বিপুল ক্ষতির বোঝা বইতে হবে বয়ন শিল্পকে ৷ যে সমস্ত কাঁচামাল ও অ্যাকক্সেসারিজ ছাড়া উৎপাদন অসম্ভব, তার কিছু কিছু বিকল্প টার্কি অর্থাৎ তুরস্ক, তাইওয়ান এবং থাইল্যান্ড থেকে যোগাড় করে গেলেও তা যথেষ্ট নয় ৷ এছাড়া অনেক অ্যাকক্সেসারিজ এবং সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ মেশিনের স্পেয়ার পার্টস শুধু চিনেই তৈরি হয় ৷

বিদেশি ব্র্যান্ডের জন্য পোশাক তৈরি করে এমন এক ফ্যাক্টরির কর্ণধার জানান, ‘এক্সপোর্টের জন্য পাওয়া অর্ডার কিভাবে পূরণ করব বুঝতে পারছি না ৷ ইতিমধ্যেই ডেডলাইন মিস করেছি ৷’ চিনা পণ্য বয়কটের এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর সবথেকে অসুবিধায় পড়েছে গার্মেন্ট সেক্টর ৷ ছোট্ট সূচ থেকে ফ্রেবিক গ্লু সবকিছুর জন্যই ভারত চিনের উপর নির্ভরশীল ৷ তবে সরকারের সাহায্য পেলে এই জিনিসগুলি ভারতেও তৈরি করা সম্ভব ৷

Published by: Elina Datta
First published: July 3, 2020, 3:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर