ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে চাঙ্গা করতে ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বাড়তি ঋণের সংস্থান করতে চায় কেন্দ্র

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে চাঙ্গা করতে ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বাড়তি ঋণের সংস্থান করতে চায় কেন্দ্র
  • Share this:

#কলকাতা: ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের হাতেই দেশের অর্থনীতির জিয়নকাঠি। দেশের সংগঠিত ও অসংগঠিত শিল্পক্ষেপে সবচেয়ে বেশি কর্মসংস্থান করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। নোট বাতিলের প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়ানো শুরু করেছে এই ক্ষেত্র। এই অবস্থায় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে চাঙ্গা করতে ব্যাঙ্কের মাধ্যমে বাড়তি ঋণের সংস্থান করতে চায় কেন্দ্র। একইসঙ্গে বস্ত্র ও খাদ্য প্রক্রিয়া করণে ছোট-মাঝারি ব্যবসায়ীদের জন্য দুটি আলাদা প্রকল্প চালু করছে কেন্দ্র।

খাদি, হাতে তৈরি পোশাক কিংবা দেশের ঐতিহ্যপূর্ণ পোশাক তৈরিতে দেশে ১০০ টি ক্লাস্টার তৈরি হবে। এখান থেকে সরাসরি ঋণ ও পণ্য বিক্রির সুযোগ থাকবে। একইভাবে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণে তৈরি হচ্ছে মিড-প্রসেসড ল্যাব। কাঁচামাল সংগ্রহ থেকে প্রক্রিয়াকরণ ও বিক্রির সুবিধা মিলবে।

সম্প্রতি ব্যাঙ্কগুলোকে পাঠানো এক নির্দেশিকায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক জানিয়েছে, ক্ষুদ্র ও মাঝারি সংস্থাগুলোকে ঋণের পরিমাণ বাড়াতে হবে। ঋণের পরিমাণ গড়ে ২০ শতাংশ বাড়ানোর লক্ষ্যমাত্রাও বেঁধে দিয়েছে অর্থমন্ত্রক। এই নির্দেশিকা আসার পরই ঋণের পরিমাণ বাড়াতে লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে কাজ শুরু করেছে বিভিন্ন ব্যাঙ্ক। সিন্ডিকেট ব্যাঙ্কের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মৃত্যুঞ্জয় মহাপাত্র জানান, আগামী ৩ বছরে শুধু পূর্বাঞ্চলেই ছোট ও মাঝারি শিল্পে ৯০০ কোটি টাকা ঋণ দেওয়ার পরিকল্পনা ব্যাঙ্ক। এখনও পর্যন্ত এই খাতে ব্যাঙ্কের ঋণের পরিমাণ ১১০০ কোটি টাকা। এক্সিম ব্যাঙ্কের ( এক্সপোর্ট- ইমপোর্ট প্রোমোশন ব্যাঙ্ক) রিজিওনাল হেড সঞ্জয় লাম্বার দাবি, পূর্বাঞ্চল থেকে রফতানি বৃদ্ধিতে এক্সপোর্ট জোনের সুবিধা মিলছে। এই খাতেও আলাদা ঋণ দিচ্ছে ব্যাঙ্ক।

ছোট ও ক্ষুদ্র শিল্পকে সুযোগ দিতে রেলও নিয়ম পরিবর্তন করেছে। কলকাতা মেট্রোর ডেপুটি চিফ ম্যানেজার (মেটিরিয়াল) সুজিত সাহা জানান, ২৫ কোটি টাকা পর্যন্ত প্রকল্পে বরাত পেতে কোনও ফি দিতে হবে না আবেদনকারী ব্যবসায়ীকে। ছোট শিল্পের ক্ষেত্রে মূলধন ৫০ কোটি টাকার কম হলেও সুবিধা মিলবে। ছোট ও মাঝারি শিল্পের সমস্যা বুঝতে কলকাতায় সম্মেলনের আয়োজন করেছিল বণিকসভা CII। এখানেই ব্যাঙ্ককর্তা সহ বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার সঙ্গে মুখোমুখি আলোচনা করেন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোগীরা।

First published: 01:04:02 PM Jul 13, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर